আপডেট : ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৩:৪৮

বাঘিনীর জন্য পাত্র মিলেছে, সংসার পাতবে তারা!

বিডিটাইমস ডেস্ক
বাঘিনীর জন্য পাত্র মিলেছে, সংসার পাতবে তারা!

এখন তার ভরা যৌবন। একা একা আর সময় কাটছিল না। তাই কখনও আনমনা হয়ে, কখনওবা পাঁয়চারি করে সময় কাটাচ্ছে আর অপেক্ষা করছে প্রিয় সঙ্গীর। ভারতের আলিপুর চিড়িয়াখানার সাদা বাঘিনী রূপার সময়গুলো এভাবেই কাটছে।

বিষয়টা কিছুদিন আগেই টের পেয়েছেন চিড়িয়াখানার কর্মকর্তারা। কিন্তু মনের মতো পাত্র খুঁজে না পাচ্ছিলেন না তারা। আলিপুর চিড়িয়াখানায় অবশ্য একটি সাদা বাঘ ছিল। কিন্তু সে সম্পর্কে রূপার ভাই। কিন্তু চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষের কঠোর শাসনে ভাই-বোনের মধ্য দূরত্ব ছিল। ভাই-বোনের মিলন হলে ভবিষ্যত প্রজন্মের শরীরে জিনগত ত্রুটি তৈরি হতে পারে এই আতঙ্ক থেকেই চিড়িয়াখানা কর্তৃপক্ষ তাদের আলাদা করে রাখে।

শেষমেষ একটা পাত্র মিলেছে রূপার জন্য। আলিপুর চিড়িয়াখানার কর্মকর্তা আশিসকুমার সামন্ত জানান, রূপার পাত্র হিসেবে আসছে ওড়িশার নন্দনকাননের সাদা বাঘ ঋষি। ওদের দুজনেরই বয়স এখন ১১ বছর। বেশ মানাবে ওদের।

শুক্রবার সকালে পায়েল, শীলা, স্নেহাশিস নামে আরও তিন বন্ধুকে সঙ্গে করে সঙ্গীনির উদ্দেশে রওনা হয়েছে ঋষি। তাদের নিয়ে রওনা হয়েছেন নন্দনকাননের কর্মকর্তারা।
ঋষিকে নিয়ে আসতে শুক্রবার মেদিনীপুরে গেছেন আলিপুর চিড়িয়াখানার কর্মকর্তা আশিসকুমার সামন্ত।

জানা গেছে, বিরাট মাপের খাঁচা গাড়িতে করে ঋষিকে নন্দনকানন থেকে রাজ্যে নিয়ে আসা হবে। পুরোটা রাস্তাজুড় তার জন্য নিরাপত্তা ব্যবস্থাও থাকবে। নতুন জায়গায় ক’দিন জিরিয়ে নিয়ে তারপর রূপার সঙ্গে সংসার পাতবে ঋষি।

নবদম্পতির ঘর আলো করে নতুন সাদা-কালো ডোরাকাটা অতিথি আসার অপেক্ষা এখন চিড়য়াখানা কর্তাদের। এদিকে আলিপুর থেকে নন্দনকাননে পাঠানো হচ্ছে ছয় বছর বয়সী জিরাফ জয়কে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে