আপডেট : ২৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৩:৪৫

‘তালা’ কতটা নিরাপদ? আঁতকে উঠবেন ভিডিওটি দেখে

বিডিটাইমস ডেস্ক
‘তালা’ কতটা নিরাপদ? আঁতকে উঠবেন ভিডিওটি দেখে

বাড়িঘর থেকে শুরু করে দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, এমনকি ব্যাংক-বীমা পর্যন্ত প্রাথমিক নিরাপত্তার জন্য ‘তালা’র ওপর নির্ভরশীল। চুরি বা অনধিকার প্রবেশ ঠেকাতে এতো বহুল ব্যবহারের দৃষ্টিকোণ থেকে এর জুড়ি নেই। সর্বপ্রথম তালা-চাবি ব্যবহারের নির্দশন পাওয়া যায়- প্রাচীন আসিরিয়ার শহর নিনেভেহতে (বর্তমান সিরিয়া)। এ ধরণের তালার উন্নয়নের পরবর্তী ধাপে কাঠের তালা পাওয়া যায় মিসরে। ইংরেজ কারিগরদের হাতের ছোঁয়ায় প্রথম ধাতব তালার দেখা মেলে ৮৭০ থেকে ৯০০ খ্রিস্টাব্দে।

অভিজাত রোমানরা তাদের মূল্যবান দ্রব্যসামগ্রী বাড়িতে গোপন বক্সে লুকিয়ে রাখতেন। আর তালার চাবি হাতের আংটি হিসেবে ব্যবহার করতেন। এর দুই ধরণের সুবিধা ছিল। এ ধরণের আংটি ছিল অভিজাত বংশের বহিঃপ্রকাশ। অষ্টাদশ শতাব্দীতে শিল্প বিপ্লবের পর তালার মেকানিজমে যথেষ্ট পরিবর্তন আসে। তখন থেকে তালা হয়ে উঠেছে আমজনতার নিরাপত্তার প্রতীক।

কিন্তু যে তালাকে ঘিরে এতো কথা, নিরাপত্তা দেবার ক্ষমতা তার কতদূর? সত্যি বলতে, আধুনিক টেকনিকের কাছে তালা সত্যিই অসহায়। বিশেষ করে নিচের ভিডিওটি দেখলে আমাদের বাসা-বাড়ি, দোকানে ব্যবহৃত লোহার তালার নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কিত না হয়ে উপায় নেই। এক ব্যক্তি যেভাবে হাতুরি দিয়ে অনেকটা আয়েশে তালা খুলে ফেললেন তা সত্যিই এক বিস্ময়। খুব সহজ এই টেকনিক ব্যবহার করে যেকেউ-ই খুলে ফেলতে পারবে ধাতব তালা। অর্থাৎ, সঠিক টেকনিক জানলে যেকোনো আগুন্তক কয়েক সেকেন্ডের মধ্যেই তালা খুলে ফেলতে পারে।

Disclaimer: ভিডিওটি ছড়ানোর উদ্দেশ্য পাঠকদের নিরাপত্তা ব্যবস্থা সম্পর্কে সচেতন করা। চোর-ডাকাতের উপদ্রব থেকে বাঁচতে বাড়ি-ঘর, দোকানের নিরাপত্তা ব্যবস্থায় নতুন কৌশল নিয়ে ভাবার সময় হয়েছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে