আপডেট : ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৯:০৮

চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহারের সুযোগ পাচ্ছে ভারত

অনলাইন ডেস্ক
চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহারের সুযোগ পাচ্ছে ভারত

প্রতিবেশী দেশ ভারতকে চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহারের সুযোগ দিতে খসড়া চুক্তির অনুমোদন দিয়েছে মন্ত্রিসভা। দুই দেশের মধ্যে এই চুক্তি বাস্তবায়ন হলে ভারত তাদের উৎপাদিত পণ্য ওই দুই বন্দরের মাধ্যমে ভারতের পূর্বাঞ্চলীয় ও উত্তরাঞ্চলের রাজ্যগুলোতে সরবরাহ করতে পারবে।

সোমবার (১৭ আগস্ট) মন্ত্রিসভার বৈঠকে নৌপরিবহন মন্ত্রণালয় চুক্তিটির খসড়া উত্থাপন করলে তা অনুমোদন দেওয়া হয়। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন। মন্ত্রিসভার বৈঠক শেষে এ বিষয়ে ব্রিফিং করেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম।

শফিউল আলম চুক্তির খসড়ার বিষয়ে সাংবাদিকদের বলেন, ‘ভারত আমাদের নিকটতম বন্ধুপ্রতীম দেশ। চট্টগ্রাম ও মোংলা বন্দর ব্যবহার করে ভারত তাদের উত্তর ও পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে পণ্য সরবরাহ করার জন্য ‘Agreement on the use of Chattogram and Mongla Port for Movement of Goods to and from India between the People’s Republic of Bangladesh and Republic of India’ শীর্ষক চুক্তির খসড়া অনুমোদন করা হয়েছে।

সচিব বলেন, ‘ভারত মোংলা ও চট্টগ্রাম বন্দর ব্যবহার করে তাদের উৎপাদিত পণ্য স্থলপথে ভারতের পূর্ব ও উত্তরাঞ্চলীয় রাজ্যগুলোতে সরবরাহ করতে আটটি রুট ব্যবহার করতে পারবে।’

ভারতের পণ্য পরিবহনের জন্য বাংলাদেশের সড়ক অবকাঠামো খাত উপযোগী কি না, এমন প্রশ্নের জবাবে শফিউল আলম বলেন, ‘এগুলো সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা খতিয়ে দেখবেন।’

বাংলাদেশের বন্দর ও সড়ক ব্যবহারের জন্য ভারত বাংলাদেশকে কী পরিমাণ মাশুল ও শুল্ক দেবে তার হার এ চুক্তিতে নির্ধারণ করা হয়েছে কি না-জানতে চাইলে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘চুক্তিতে এ বিষয়ে যদিও বিস্তারিত কিছু নেই। তারপরও আমাদের শুল্ক বিভাগ এ বিষয়ে আন্তর্জাতিক রীতি-নীতি ও চুক্তির বিষয়াদি পর্যালোচনা করে শুল্ক নির্ধারণ করবে।’

কতদিনের জন্য এ চুক্তি বলবৎ থাকবে- এমন প্রশ্নের জবাবে সচিব বলেন, ‘প্রথমে পাঁচ বছর মেয়াদের জন্য এ চুক্তি করা হচ্ছে। পরবর্তী সময়ে এ চুক্তি আরো পাঁচ বছরের জন্য নবায়ন করা হবে। তবে কোনো পক্ষ এ চুক্তি বাতিল করতে চাইলে ছয় মাসের নোটিশে তা বাতিল করতে পারবে।’

এ ছাড়া আজকের মন্ত্রিসভার বৈঠকে বাংলাদেশ লোক প্রশাসন প্রশিক্ষণকেন্দ্র আইন এবং জাতীয় শিক্ষাক্রম ও পাঠ্যপুস্তক বোর্ড আইন, ২০১৮-এর খসড়ার চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে