আপডেট : ২৬ মে, ২০১৮ ১৩:২৩

জেনেভা ক্যাম্পে র‌্যাবের অভিযান, আটক ৫০০

অনলাইন ডেস্ক
জেনেভা ক্যাম্পে র‌্যাবের অভিযান, আটক ৫০০

রাজধানীর মোহাম্মদপুরের জেনেভা ক্যাম্পে অভিযান চালিয়ে অন্তত ৫০০ জনকে আটক করেছে র‌্যাব। তবে এরা সবাই মাদক বিক্রেতা বা মাদকাসক্ত নয়। তাদেরকে পরীক্ষা-নিরীক্ষা করে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শনিবার সকাল সাড়ে এগারোটা থেকে র‌্যাব-১, র‌্যাব‌-২ এবং র‌্যাব-৩ যৌথভাবে এই অভিযান অভিযান শুরু করে। এই প্রতিবেদন লেখার সময় অভিযান চলছে। সব মিলিয়ে বাহিনীর তিন শতাধিক সশস্ত্র সদস্য এই অভিযানে অংশ নিয়েছে। বাহিনীটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারাও অভিযানে আছেন।

অভিযান পারিচালনাকারীদের একজন র‌্যাবের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট সারোয়ার আলম জানান, পুরো ক্যাম্প ঘিরে রেখেছেন তারা। বাইরে থেকে কাউকে ভেতরে বা ভেতর থেকে কাউকে বাইরে বের হতে দেওয়া হচ্ছে না। আটকদের র‌্যাব-২ এর কার্যালয়ে নেওয়া হয়েছে। তাদের ডোপ টেস্ট করার পর আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

‘আটকদের সবাই মাদক বিক্রেতা বা মাদকসেবী না। সন্দেহজনকদের ও পূর্বের তথ্যের ভিত্তিতেই তাদের আটক করা হয়েছে।’

মাহমুদ নামে পরিচয় দেয়া র‍্যাব-২ এর অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বলেন, ‘প্রাথমিকভাবে ৫০০ জনকে আটক করা হয়েছে। তবে এর মধ্যে নিরপরাধ লোক থাকতে পারে। মোবাইল কোর্ট বসবে। এর মধ্যে অনেকেই বাদ যাবেন। অভিযান শেষ না হলে বিস্তারিত বলতে পারছি না।’

মোহাম্মদপুরের জেনেভা ক্যাম্প মাদক বিক্রির জন্য সব সময় কুখ্যাত। এখানে নানা সময় অভিযান চালাতে গিয়ে বিপাকে পড়তে হয়েছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। কারণ, মাদক বিক্রেতারা এতটাই সংঘবব্ধ যে, তারা একজোট হয়ে নানা সময় হামলাও করেছে সরকারি বাহিনীর ওপর।

গত ৪ মে থেকে সারাদেশে মাদকবিরোধী সাঁড়াশি অভিযানের কোনো প্রভাব এতদিন পড়েনি এই ক্যাম্পে। একজন প্রতিবেদকও দুই দিন আগে ঘুরে দেখেছেন, সেখানে মাদক বিক্রি হচ্ছিল আগের মতোই।

অভিযানের বিষয়ে র‌্যাবের গণমাধ্যম শাখার পরিচালক মুফতি মাহমুদ খান জানান, ক্যাম্পে গাঁজা, ফেন্সিডিল, ইয়াবাসহ বিভিন্ন ধরনের মাদকের বিক্রি হয় বলে তাদের কাছে তথ্য আছে। এই তথ্যের ভিত্তিতেই সেখানে অভিযান চলছে।

বিহারী ক্যাম্পে অভিযান শেষে মুফতি বলেন, জেনেভা ক্যাম্পে মাদক ব্যবসা আজকের নয়, অনেক পুরনো। অনেকের ধারণা ছিল ঘনবসতির কারণে এখানে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর মাদকবিরোধী অভিযান পরিচালনা করা কঠিন। আমরা সে বিষয়টি বিবেচনায় নিয়ে একাধিক টিম নিয়ে অভিযান চালিয়েছে।

অভিযান ঘিরে পুরো বিহারী ক্যাম্পে দুই শতাধিক র‌্যাব সদস্য মোতায়েন করা হয়।

অভিযান সফল দাবি করে র‌্যাবের এই কর্মকর্তা বলেন, অভিযানে বিপুল পরিমাণ মাদক ও বেশ কয়েকজনকে আটক করা হয়েছে।

বিহারী ক্যাম্পের মাদকব্যবসায়ীদের হুঁশিয়ারন করে দিয়ে মুফতি বলেন, জেনেভো ক্যাম্পে যারা মাদক ব্যবসা করেন তারা মাদক ব্যবসা ছেড়ে দেন। আমরা আর কোনো মতেই জেনেভে ক্যাম্পে মাদক ব্যবসা হতে দেব না। যে বা যারাই জড়িত থাকুক না কেন আমার এখানে অভিযান চালাতে থাকব।

উপরে