আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৪:২৫

ভিআইপি লেনের প্রস্তাব নাকচ, পাবলিক বাসের লেনের সুপারিশ

অনলাইন ডেস্ক
ভিআইপি লেনের প্রস্তাব নাকচ, পাবলিক বাসের লেনের সুপারিশ

রাজধানীর যানজট কমাতে প্রধান সড়কগুলোতে ভিআইপি লেনের প্রস্তাব নাকচ করে এবার বাস চলাচলের জন্য আলাদা লেনের সুপারিশ করেছে ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ)। সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবের কাছে পাঠানো ডিটিসিএ‘র চিঠিতে এ সুপারিশ করা হয়েছে।

এতে বলা হয়েছে, বাস চলাচলের জন্য আলাদা লেনের ব্যবস্থা থাকতে পারে। অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সেবাখাতের যানবাহন লেনটি ব্যবহার করতে পারবে। একইসঙ্গে ডিটিসিএ’র চিঠিতে ভিআইপি চলাচলের জন্য রাস্তার দুই পাশে আলাদা লেনের প্রস্তাব বাস্তবসম্মত নয় বলেও উল্লেখ করা হয়।

এ ব্যাপারে ডিসিটিএ’র নির্বাহী পরিচালক (অতিরিক্ত সচিব) সৈয়দ আহম্মদ বলেন, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে পাঠানো ভিআইপিদের জন্য আলাদা লেনের প্রস্তাব আমরা নাকচ করে দিয়েছি। কেননা বর্তমান অবস্থার পেক্ষাপটে ভিআইপি লেনের প্রস্তাব বাস্তসম্মত নয়। এটি করা হলে রাজধানীতে যানজট বেড়ে যাবে।

তিনি বলেন, সবদিক বিবেচনা করে, ডিটিসিএ ঢাকা শহরের প্রধান করিডরসমৃহে ভিআইপি লেন নয় বরং পাবলিক বাস চলাচলের জন্য আলাদা লেনের ব্যবস্থা করতে মতামত দেওয়া হয়েছে। অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী ও সেবাখাতের যানবাহনসমূহ লেনটি ব্যবহার করতে পারবে।

সৈয়দ আহম্মদ বলেন, এ বিষয়ে আমরা ৮টি সুপারিশ সংক্রান্ত একটি মতামত সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবের কাছে পাঠিয়েছি।

সূত্র জানায়, ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপক্ষ (ডিটিসিএ)‘র নির্বাহী পরিচালক সৈয়দ আহম্মদ স্বাক্ষরিত এ সংক্রান্ত একটি চিঠি গত ৬ ফেব্রুয়ারি সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবের কাছে পাঠানো হয়। ওই চিঠিতে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে পাঠানোর ভিআইপি লেনের প্রস্তাব বাস্তবসম্মত নয় উল্লেখ করে ডিটিসিএ আটটি সুপারিশ করেছে।

সুপারিশে বলা হয়েছে, ‘ঢাকা মহানগর ও ডিটিসিএ অধিভুক্ত এলাকায় পরিকল্পিত ও সমন্বিত আধুনিক পরিবহন ব্যবস্থা গড়ে তোলার জন্য সংশোধিত কৌশলগত পরিবহন পরিকল্পনা (আরএসটিপি) মন্ত্রিপরিষদ কর্তৃক অনুমোদিত হয়েছে। এতে পাঁচটি মেট্রোরেল, দুইটি আরটি, তিনটি রিংরোড, আটটি রেডিয়াল সড়ক, ছয়টি এক্সপ্রেসওয়ে, বাস নেটওয়ার্ক পুনর্গঠন এবং ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে সুপারিশ করা হয়েছে। আরএসটিপি’র প্রস্তাবে ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে পৃথক লেনের কোনো সুপারিশ নেই।’

দ্বিতীয়ত, ‘আরএসটিপি প্রণয়নকালে মহানগরের জনসংখ্যা, সড়কের প্রশস্থতা এবং যানবাহনের সংখ্যা ইত্যাদি বিবেচনায় নিয়ে বিভিন্ন সুপারিশ করা হয়েছে। যানজট নিরসনে আরএসটিপি সুপারিশ বাস্তবায়ন করা হলে পৃথক লেন নির্মাণের প্রয়োজনীয়তা হ্রাস পাবে।’

সুপারিশে বলা হয়ছে, ‘এমআরটি লইন-৬, বিআরটি লাইন-৩, ঢাকা এলিভেট এক্সপ্রেসওয়েসহ অনেক মেগাপ্রকল্প বাস্তবায়ন করা হচ্ছে। এ অবস্থায় সেবাখাতের যানবাহন এবং ভিআইপিদের চলাচলের জন্য রাস্তার উভয়দিকে ডেডিকেটেট লেন করলে যানজট বেড়ে যাবে।’

এছাড়াও ডিটিসিএ‘র চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘সড়কের প্রশস্থতা এবং গাড়ির সংখ্যা বিবেচনায় নিয়ে শহরের অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, আইন শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সেবাখাতসমূহ ও গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিবর্গের চলাচলে আলাদা লেন করা হলে যানজট পরিস্থিতির অবনতি হবে। তবে ঢাকা শহরের প্রধান করিডরসমূহে বাসের জন্য আলাদা পৃথক লেন থাকতে পারে। অ্যাম্বুলেন্স, ফায়ার সার্ভিস, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীসহ সেবাখাতের যানবাহনসমূহ ওই লেন ব্যবহার করতে পারে।’

সুপারিশে আরো বলা হয়েছে, ‘ঢাকা মহানগরে প্রধান সড়কসমৃহে রিক্সসহ অযান্ত্রিক যানের ব্যবহার নিয়ন্ত্রণ, ব্যক্তিগত গাড়ি কমিয়ে আনা এবং ব্যবহার নিরুৎসাহিত করতে পাকিং ও ট্যক্স ফি বৃদ্ধিও প্রস্তাব করা হয়েছে।’

এদিকে রোববার দুপুরে সচিবালয়ে সড়ক ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন রাজধানীর সড়কে, আলাদাভাবে ভিআইপি লেনের পক্ষে আমি নই। আমি মনে করি, দৃঢ়তার সহিত আমাদের ভিআইপি সংস্কৃতি থেকে বের হয়ে আসতে হবে। তিনি আরও বলেন, এদেশের সাধারণ জনগণ ভিআইপি সংস্কৃতি ভালোভাবে নেয় না। আমরা যারা আক্ষরিক অর্থে ভিআইপি আছি, তাদের মন মানসিকতা পরিবর্তন করতে হবে। আমি উল্টোদিকে যাব, আমার জন্য আলাদা ভিআইপি সড়ক থাকতে হবে, এটা বোধ হয় প্রয়োজন নেই।

উল্লেখ্য গত ৩১ ডিসেম্বর মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ থেকে সড়ক পরিবহন ও মহাসড়ক বিভাগের সচিবের কাছে ভিআইপি ও সেবা খাতের পরিবহন চলাচলের জন্য আলাদা লেনের একটি প্রস্তাব পাঠানো হয়। গত ১০ জানুয়ারি সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয় থেকে প্রস্তাবটি পরীক্ষা নিরীক্ষা করে মতামত দেওয়ার জন্য ঢাকা পরিবহন সমন্বয় কর্তৃপর্ক্ষ (ডিটিসিএ)‘র কাছে পাঠানো হয়। গত ৫ ফেব্রুয়ারি মন্ত্রিপরিষদ বৈঠকের পর মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম সচিবালয়ে ব্রিফিংকালে বিষয়টি উঠে আসে।

উপরে