আপডেট : ১৯ আগস্ট, ২০১৭ ১৬:১৩

‘রায় অনুরাগ-বিরাগ থেকে কিনা, বিবেচনা করুন’

অনলাইন ডেস্ক
‘রায় অনুরাগ-বিরাগ থেকে কিনা, বিবেচনা করুন’

সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায়কে আবারো  ‘ভ্রমাত্মক’ বলে মন্তব্য করেছেন সাবেক প্রধান বিচারপতি ও বর্তমান আইন কমিশনের চেয়ারম্যান এ বি এম খায়রুল হক। একই সঙ্গে এই রায় আদালতের বিরাগ থেকেও হতে পারে বলে মনে করেন তিনি।

শনিবার (১৯ আগস্ট) ঢাকার সিরডাপ মিলনায়তনে ‘জাতীয় শোক দিবস, ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের রায় ও জননেত্রী শেখ হাসিনার উন্নয়নের রাজনীতি শীর্ষক’ আলোচনা সভায় এ কথা বলেন সাবেক প্রধান বিচারপতি।

এ বি এম খায়রুল হক বলেন, সংসদ ও সরকারের প্রতি বিরাগ থেকে যদি প্রধান বিচারপতি এসকে সিনহা এই রায় দিয়ে থাকেন, তাহলে তিনি পদে থাকার যোগ্যতা হারিয়েছেন।

তিনি বলেন, আমরা জজ সাহেবেরা কোনোদিনই অনুরাগ- বিরাগের বশবর্তী হয়ে কোনো কিছু করব না। রায়ে যদি কোনো অনুরাগ বা বিরাগ রিফ্লেক্ট করে, তাহলে হোয়াট ইজ দ্য কনসিকোয়েন্স অব দ্যট জাজমেন্ট। থিঙ্ক অ্যাবাউট ইট। আমার বলার কিছু নেই।

খায়রুল হক বলেন, যে জজসাহেব অনুরাগ বা বিরাগের বশবর্তী হয়ে... যদি আপনারা অনুরাগ বা বিরাগ বলে মনে করেন আপনারা... যেগুলো আমি বললাম, ‘পার্লামেন্ট ইজ ইমম্যাচিওর’, ‘ডেমোক্রেসি ইজ ইমম্যাচিওর’, ‘পার্লামেন্ট আমাদের ডাইরেকশন শোনেনি’, এই কথাগুলো যদি অনুরাগ বিরাগের মধ্যে চলে আসে তাহলে সেই জজ সাহেবের পজিশনটাই বা কী হবে?

আইন কমিশনের চেয়ারম্যান বলেন, তিনি ওথ বাউন্ড থাকছেন কি না, সেটাও আপনারা বিচার- বিবেচনা করে দেখুন। আমি পয়েন্ট আউট করে দিলাম। ওথ ভঙ্গ হলে কি হতে পারে? আপনারা জানেন কী হতে পারে।

বক্তব্যে সাবেক প্রধান বিচারপতি খায়রুল হক আইন কমিশনের কাজের ব্যাখ্যা তুলে ধরে বলেন, যেহেতু  আইন নিয়ে গবেষণা করা তাদের কাজ, সেহেতু আদালতের ষোড়শ সংশোধনী বাতিলের এই রায় তাদের গবেষণার বিষয়ের মধ্যেই পড়ে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে