আপডেট : ৯ মে, ২০১৬ ১৯:১৫

'প্রাণ ভিক্ষা না চাইলে নিজামীর রায় যে কোনো সময় কার্যকর'

বিডিটাইমস ডেস্ক
'প্রাণ ভিক্ষা না চাইলে নিজামীর রায় যে কোনো সময় কার্যকর'

যুদ্ধাপরাধের দায়ে মৃত্যু দণ্ডাদেশপ্রাপ্ত জামায়াত আমির মতিউর রহমান নিজামী যদি প্রাণ ভিক্ষা না চান তবে সরকার যে কোনো সময় রায় কার্যকর করতে পারবে।

সোমবার বিকেলে এক ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম এ কথা বলেন।

তিনি বলেন, কবে কোন সময় রায় কার্যকর হবে তা স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও কারা কর্তৃপক্ষের বিষয়, এ বিষয়ে আমি কিছু বলতে পারছি না। তবে প্রাণ ভিক্ষা না চাইলে রায় যে কোনো সময় কার্যকর করা যেতে পারে।

তিনি বলেন, ‘রায়ের কপি এখন ট্রাইব্যুনালে পাঠানো হবে। সেখান থেকে রায়ের কপি যাবে কেন্দ্রীয় কারাগারে। কেন্দ্রীয় কারাগারে যাওয়ার পর সেটি নিজামীকে পড়ে শোনানো হবে। এর পর প্রাণভিক্ষার বিষয়ে তার কাছে জানতে চাওয়া হবে।’

মাহবুবে আলম আরো বলেন, ‘তিনি (নিজামী) রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষা চাইলে রাষ্ট্রপতি কী সিদ্ধান্ত নেবেন তার ওপর ভিত্তি করে পরবর্তী পদক্ষেপ নেওয়া হবে।’

এসব প্রক্রিয়া সম্পন্ন করতে বা রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার চাওয়ার বিষয়ে নিজামীকে রিজেনেবল টাইম দেওয়া হবে বলে জানান অ্যাটর্নি জেনারেল।

এদিকে সোমবার একাত্তরে বুদ্ধিজীবী হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত জামায়াতে ইসলামীর আমির মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ খারিজের রায়ের পূর্ণাঙ্গ কপি প্রকাশ করেছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। সুপ্রিম কোর্ট রেজিস্ট্রারের দপ্তর থেকে পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করা হয়। রায় প্রকাশের পর সেটি ট্রাইব্যুনালে পাঠিয়ে দেওয়া হয়েছে। সেখান থেকে রায়ের কপি যাবে কারাগারে।

গত বৃহস্পতিবার (০৫ মে) মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্ত মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ খারিজ করে দেন সুপ্রিমকোর্টের আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহার নেতৃত্বে চার সদস্যের আপিল বেঞ্চ এক শব্দের এই রায় ঘোষণা করেন। বেলা সাড়ে ১১টায় এজলাসে এসে প্রধান বিচারপতি শুধু বলেন,‘ডিসমিসড’।

বেঞ্চের অপর তিন সদস্য হলেন বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে