আপডেট : ২৭ মার্চ, ২০১৬ ২০:৫৩

পরিচয় ‘গোপন করে’ লাইনে দাঁড়িয়ে তারানার সিম নিবন্ধন

বিডিটাইমস ডেস্ক
পরিচয় ‘গোপন করে’ লাইনে দাঁড়িয়ে তারানার সিম নিবন্ধন

সিম নিবন্ধনে সাধারণ মানুষ কোন হয়রানির শিকার হচ্ছেন কিনা তা দেখার জন্য অন্য সবার মতোই বিক্রয় কেন্দ্রে গিয়ে নিজের ব্যবহৃত সিম পুনরায় নিবন্ধন করিয়েছেন ডাক, তার ও টেলিযোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী তারানা হালিম।

রোববার ফোন কোম্পানির বিক্রয় কেন্দ্রে গিয়ে বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে নিজের দুটি সিম পুনরায় নিবন্ধন করিয়েছেন তিনি।

নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেজে বিকেল ৪টা ২৮ মিনিটে বিষয়টি জানান তারানা হালিম।

প্রতিমন্ত্রী লিখেছেন, ‘আমি আজ আমার নিজের দুটি সিম বায়োমেট্রিক পদ্ধতিতে ভেরিফাইড করে রি-রেজিস্ট্রি করে নিলাম। আমি নিজের পরিচয় গোপন রেখেই অন্য সকল গ্রাহকের সঙ্গে এক কাতারে প্রায় ২০ মিনিট দাঁড়িয়ে থেকে সিম দুটি রি-রেজিস্ট্রেশন করি।’

তারানা হালিম বলেন, ‘আমি বাংলাদেশের একজন গর্বিত নাগরিক হিসেবে আমার দুটি সিম আজ বায়োমেট্রিকস পদ্ধতিতে ভেরিফিকেশন করে দুটি সিমের মালিকানা স্বীকার করে নিলাম। আপনারাও আপনাদের স্ব স্ব সিম বায়োমেট্রিকস পদ্ধতিতে ভেরিফিকেশন করে রি-রেজিস্ট্রেশন করে নিন।’

রবিবার দুপুরে তিনি রাজধানীর ফার্মগেটের কেন্দ্রটির অদূরে তিনি গাড়ি থেকে নেমে আঁচল ও ফাইল দিয়ে মুখ ঢেকে হেঁটে কেন্দ্রটিতে প্রবেশ করেন এবং সিম নিবন্ধনে আগত গ্রাহকদের লাইনে দাঁড়ান। এ সময় চারদিকে তাকিয়ে তিনি গ্রাহকদের সমস্যা বোঝার চেষ্টা করেন। নিজের পালা এলে তিনি প্রয়োজনীয় কাগজপত্র জমা এবং আঙুলের ছাপ দিয়ে নিজের নামে ফোনটির নিবন্ধন সম্পন্ন করেন। মুখ ঢেকে রাখায় এ সময় তাকে কেউ চিনতে পারেনি।

সিম নিবন্ধন শেষে তারানা হালিম মুখের কাপড় সরিয়ে কেন্দ্রটির এক পাশে এসে দাঁড়ান। এ সময় কেন্দ্রটিতে আসা গ্রাহকরা তার কাছে তাদের সমস্যার কথা জানান। একজন গ্রাহক অভিযোগ করেন, তার নিজের জাতীয় পরিচয়পত্র এখনও পাননি। তিনি কীভাবে সিম নিবন্ধন করবেন? প্রতিমন্ত্রী উত্তরে বলেন, জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য আবেদন করলে একটি আবেদন নম্বর দেওয়া হয়। ওটা দিয়ে আবেদন করা যাবে, তবে পরিচয়পত্রটি যখন হাতে পাওয়া যাবে তখন আবারও নিবন্ধন করতে হবে।

পরিচয় গোপন করে গ্রাহক সেবাকেন্দ্র পরিদর্শন সম্পর্কে তারানা হালিম বলেন, আমি একজন সাধারণ মানুষের বেশে সিম নিবন্ধন করতে এসেছি। আমি বুঝতে চেষ্টা করেছি একজন সাধারণ গ্রাহক সিম নিবন্ধন করতে এসে কি কি প্রশ্নের মুখোমুখি হন, কি সমস্যা মোকাবিলা করেন সেসব। কোনও ধরনের হয়রানি হয় কিনা সেসবও বোঝার চেষ্টা করেছি।তারানা হালিম এ সময় জানান, যাদের জাতীয় পরিচয়পত্র নেই তারা আপাতত পাসপোর্ট, জন্মনিবন্ধন সনদ বা ড্রাইভিং লাইসেন্সের কপি দিয়েও সিম নিবন্ধন করতে পারবেন। তবে এটি অস্থায়ীভিত্তিতে। জাতীয় পরিচয়পত্র হাতে পেলে অবশ্যই তখন আবারও সিম নিবন্ধন করতে হবে। আর বিদেশিদের সিম নিবন্ধনে জাতীয় পরিচয়পত্রের বদলে পাসপোর্ট ব্যবহার করে তা নিবন্ধন করা হবে।

আগামী ৩০ এপ্রিলের মধ্যে সিম নিবন্ধন শেষ করতে হবে বলে জানিয়েছেন প্রতিমন্ত্রী।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে 

উপরে