আপডেট : ২৭ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৩৩

সাইফুরস এর পক্ষে সক্রিয় শিবির, মধ্যস্থতা চায় টাকায়

বিডিটাইমস ডেস্ক
সাইফুরস এর পক্ষে সক্রিয় শিবির, মধ্যস্থতা চায় টাকায়

ইংরেজিতে দক্ষ হ্যাকার তৈরির বিজ্ঞাপন দিয়ে শাস্তির মুখোমুখি সাইফুরস কোচিং সেন্টার ক্ষমা চেয়ে রেহাই পেতে চায়। এক্ষেত্রে ১৫ লাখ টাকার বিনিময়ে তাদের হয়ে মধ্যস্থতা করবে ‘সাংবাদিক’ পরিচয়ধারী ৪ শিবিরকর্মী।

সম্প্রতি ওই ৪ শিবিরকর্মী রাজধানীর পান্থপথে সাইফুরস’র প্রধান কার্যালয়ে প্রতিষ্ঠানটির মহাব্যবস্থাপক (জিএম) আশরাফ উদ্দিন জুয়েল ও ম্যানেজার আবদুল্লাহ মালেকের সঙ্গে গোপন বৈঠক করেন।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একটি সূত্রের খবর, ওই বৈঠকে সাইফুরস কর্তৃপক্ষ ক্ষমা চেয়ে রেহাই পাওয়ার উপায় চেয়েছে। সেসময় ওই ‘সাংবাদিক’রা তাদের সংবাদ সম্মেলন করে অথবা মন্ত্রী যেভাবে চাইবেন সেভাবেই ভুল স্বীকার করার পরামর্শ দেন। বিনিময়ে ওই চার ‘সাংবাদিক’ ১৫ লাখ টাকা নেবেন সাইফুরস কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে।

বিজ্ঞাপনটি ছড়িয়ে পড়ার প্রেক্ষিতে গত ২৩ মার্চ সচিবালয়ে এক বৈঠক শেষে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ কোচিং সেন্টারটির বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেওয়ার হুঁশিয়ারি দেন।

তিনি বলেন, সাইফুরস কোচিং সেন্টার একটা বিজ্ঞাপন দিয়েছে। বিজ্ঞাপনে তারা বলেছে ভালো ইংরেজি না জানতে পারলে ভালো লেখাপড়া করতে পারবে না। এমনকি ভালো হ্যাকারও হতে পারবে না। দেখুন, হ্যাকার হওয়ার জন্যও তার কাছে গিয়ে পড়তে হবে! বিজ্ঞাপন দিচ্ছে, এটা অবশ্যই বেআইনি, (এ ধরনের বিজ্ঞাপন) দিতে পারে না। আমরা তার (সাইফুরস) বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেবো।

কোচিং সেন্টারগুলোকে উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী বলেন, এরা এই রকম পর্যায়ে পৌঁছে গেছে এদের বিরুদ্ধে কখনও আমরা সহনশীল হতে পারি না। তারা আমাদের ছেলে-মেয়েদের প্রলোভন দেখাচ্ছেন ভালো ইংরেজি শিখলে ভালো চোর হতে পারবে, ভালো করে হ্যাকিং করতে পারবে। চুরি শেখানোর বিজ্ঞাপন দিয়ে বলেছে ভালো চোর বানাবে।

হ্যাকিংয়ের মাধ্যমে বাংলাদেশ ব্যাংকের অর্থ চুরি এবং একটি শব্দের বানান ভুলে ২ কোটি ডলার রক্ষা পাওয়ার ঘটনা সংবাদমাধ্যমে প্রকাশের পর একটি দৈনিকে বিজ্ঞাপন দেয় সাইফুরস।

ওই বিজ্ঞাপনের শিরোনামে দেওয়া হয়, ‘English-এর ভুলে বাংলাদেশ ব্যাংকের ১৬০ কোটি টাকা হ্যাকারদের হাতছাড়া!’ বিবিসির বরাত দিয়ে বিজ্ঞাপনটিতে বলা হয়, ‘হ্যাকিংকৃত ডলার শ্রীলংকাতে স্থানান্তরের সময় ‘Foundation’ শব্দকে ‘Fandation’ লেখাতে বিদেশি Deutsche ব্যাংকের সন্দেহ হয়। তারা বাংলাদেশ ব্যাংককে জানালে বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃপক্ষ এই ২০ মিলিয়ন ডলার স্থানান্তর বন্ধ করে দেয়। একইভাবে ইংরেজিতে দুর্বলতার কারণে… MBA, অফিসার, Lawyer (এমনকি দক্ষ হ্যাকার!) প্রভৃতি হতে হলে reading, রাইটিং, Speaking, লিসেনিং ও spelling সবকিছুতেই ভালো হওয়া জরুরি!’

এ বিষয়ে জানতে সাইফুরস কোচিং সেন্টারে যোগাযোগ করা হলেও তাদের সঙ্গে কথা বলা সম্ভব হয়নি। সূত্রঃ বাংলানিউজ

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে 

উপরে