আপডেট : ১২ মার্চ, ২০১৬ ১৭:০৮

'মিনিস্টার! আই হ্যাভ এ কোশ্চেন'

বিডিটাইমস ডেস্ক
'মিনিস্টার! আই হ্যাভ এ কোশ্চেন'

সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদেরকে কাছে পেয়ে গণপরিবহনে চলাচলে দুর্ভোগ নিয়ে অভিযোগ করেছে এক স্কুলছাত্রী। অভিযোগ শুনে তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি খতিয়ে দেখে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

মিটারবিহীন সিএনজিচালিত অটোরিকশা ও ফিটনেসবিহীন গাড়ির বিরুদ্ধে ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযান পরিদর্শনে শনিবার দুপুরে রাজধানীর ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় যান মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

এক পর্যায়ে সেখানে উপস্থিত সাধারণ মানুষদের অভিযোগ শুনছিলেন মন্ত্রী। এক পর্যায়ে সেখানে উপস্থিত থাকা শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট স্কুলের দশম শ্রেণির ছাত্রী শামসুন্নাহার শতাব্দী হাত তুলে ইংরেজিতে বলে, 'মিস্টার মিনিস্টার, আই হ্যাভ এ কোশ্চেন।'

জবাবে মন্ত্রী বলেন, 'হোয়াট ইজ ইয়োর কোশ্চেন। আর ইউ জার্নালিস্ট?' উত্তরে শতাব্দী বলে, 'নো! আই অ্যাম এ স্টুডেন্ট।'

এরপর রাজধানীর শেওড়াপাড়ার বাসা থেকে স্কুলে আসার পথে গণপরিবহনে নিজের দুর্ভোগের কথা মন্ত্রীর কাছে তুলে ধরে শতাব্দী। সে জানায়, শেওড়াপাড়া থেকে ১২৩ নম্বর বাসে মেয়েদের তুলতে চায় না। তাই প্রায় প্রতিদিনই তার স্কুলে আসতে দেরি হয়।

এছাড়া অন্য অনেক বাসেও সিট খালি নেই বলে মেয়েদের তুলতে চায় না বলে অভিযোগ করে শতাব্দী।

অভিযোগ শুনে মন্ত্রী ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেন এবং তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি নিয়ে বিআরটিএ চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলতে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের নির্দেশ দেন।

এ সময় মন্ত্রী বলেন, সকাল ৭টা থেকে ৮টা পর্যন্ত স্কুলটাইমে বিআরটিসির বাসে অবশ্যই স্কুল শিক্ষার্থীদের তুলতে হবে। তিনি বলেন, গণপরিবহনে নারী ও শিশুদের জন্য সংরক্ষিত আসন রাখার বিধান মেনে চলতে হবে। অন্যথায় এসব গণপরিবহনের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন মন্ত্রী।

ক্যান্টনমেন্ট এলাকায় ভ্রাম্যমাণ আদালতের অভিযানে ২৬টি গাড়িকে জরিমানা ও পাঁচটি গাড়িকে ডাম্পিংয়ে পাঠানো হয়।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে