আপডেট : ৬ মার্চ, ২০১৬ ২১:১৯

মীর কাসেমের ফাঁসি বহালের দাবিতে মশাল মিছিল

বিডিটাইমস ডেস্ক
মীর কাসেমের ফাঁসি বহালের দাবিতে মশাল মিছিল

একাত্তরে মানবতাবিরোধী অপরাধে মীর কাসেম আলীর সর্বোচ্চ শাস্তির আদেশ আপিল বিভাগে বহাল রাখার দাবিতে শাহবাগে গণ-অবস্থান কর্মসূচি পালন করেছে যুদ্ধাপরাধীদের সর্বোচ্চ শাস্তির দাবিতে গড়ে ওঠা গণজাগরণ মঞ্চ।

রবিবার বিকেল থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত মঞ্চের কর্মীরা জাতীয় জাদুঘরের সামনে অবস্থান করেন। এরপর একটি মশাল মিছিল বের করেন মঞ্চের নেতা-কর্মীরা।
মিছিলটি শাহবাগ থেকে শুরু হয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসি ঘুরে ফের শাহবাগে গিয়ে শেষ হয়। এসময় স্লোগান, কবিতা আবৃত্তি ও গান পরিবেশনের মাধ্যমে গণজাগরণ মঞ্চের নেতা-কর্মীরা মীর কাসেম আলীসহ সব যুদ্ধাপরাধীর সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানান।
মঞ্চের মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার বলেন, মীর কাসেম আলী শুধু যুদ্ধাপরাধই করেননি, স্বাধীন বাংলাদেশে মুক্তিযুদ্ধবিরোধী রাজনৈতিক পুনর্বাসনে প্রধান ভূমিকা পালন করেছেন। আমরা প্রত্যাশা করি, মীর কাসেমের মত যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও সর্বোচ্চ শাস্তি প্রদানের মাধ্যমে মুক্তিযুদ্ধবিরোধী রাজনীতির কবর রচিত হবে।

মুখপাত্র ডা. ইমরান এইচ সরকার অভিযোগ করেন, মীর কাসেমের ব্যাপক সম্পত্তি থাকায় তিনি এবং তার পক্ষ থেকে পরিবার বিভিন্ন লবিস্ট কিনে চলমান বিচারের রায় নিয়ে ষড়যন্ত্র শুরু করেছে।

এ সময় সদ্য অবসরপ্রাপ্ত বিচারপতি নজরুল খানকে ইতোমধ্যে কিনে ফেলা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি।

ইমরান এইচ সরকার বলেন, মীর কাসেমের রায় নিয়ে যে ষড়যন্ত্র চলছে তা ২০১০ সালের ষড়যন্ত্রের নামান্তর। তাই এই বিচারকে অতিদ্রুত কার্যকর করতে হবে। এদিকে আমাদের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালে বিচার ব্যবস্থা উন্নত হওয়ায় বিশ্বে এর সুনাম রয়েছে। সুতারাং যারা এই বিচার নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন তাদের আইনের আওতায় আনতে হবে।

সবশেষে আগামী ০৮ মার্চ-মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে গণজাগরণ মঞ্চের অবস্থান কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

এদিনের অবস্থান কর্মসূচিতে অন্যদের মধ্য বক্তব্য দেন ভাস্বর রাশা, জীবনানন্দ জয়ন্ত, রম্মনসহ আরও অনেকে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

 

উপরে