আপডেট : ৪ মার্চ, ২০১৬ ১৬:৫০

বাংলাদেশিদের জন্য অপূর্ব সুযোগ, নাগরিকত্ব সহজ করছে কানাডা

বিডিটাইমস ডেস্ক
বাংলাদেশিদের জন্য অপূর্ব সুযোগ, নাগরিকত্ব সহজ করছে কানাডা

নাগরিকত্ব পেলে কানাডায় থাকার ওপর বর্তমান আইনের বাধ্যবাধকতা তুলে দেওয়া হচ্ছে। ফলে নাগরিকত্ব পাওয়া একজন অভিবাসী দেশটিতে থাকতেও পারেন, নাও পারেন। বর্তমানে ১৪-৬৪ বছর বয়সী আবেদনকারীদের ভাষা দক্ষতা ও সাধারণ জ্ঞানের পরীক্ষায় পাস করতে হয়।

কানাডায় নাগরিকত্ব প্রত্যাশীদের জন্য সুখবর নিয়ে এসেছে দেশটির উদারপন্থি সরকার। দেশটিতে নাগরিকত্ব লাভের প্রক্রিয়া সহজ করছে তারা। বিদ্যমান আইনের বিভিন্ন বিধিবিধান পরিবর্তন করতে ইতোমধ্যেই আইনে সংশোধনীর প্রস্তাব করা হয়েছে। শিগগিরই এ সংশোধনী আইনে পরিণত হবে।

সংশোধনীতে ভাষা দক্ষতা ও সাধারণ জ্ঞানের পরীক্ষায় পাসের বয়স ১৮-৫৪ বছর করার প্রস্তাব করা হয়েছে। আইনের সংশোধনী প্রস্তাবে বিশাল ছাড় দেওয়া হয়েছে স্থায়ী বসবাসের ক্ষেত্রে। আগে নাগরিকত্বের জন্য আবেদনের তারিখের আগের ৬ বছরের মধ্যে চার বছর দেশটিতে স্থায়ীভাবে বাস করতে হতো। সংশোধনীতে এটি পাঁচ বছরের মধ্যে তিন বছর করার প্রস্তাব করা হয়েছে। প্রযোজ্য ক্ষেত্রে আবেদনকারীকে এই একই সময়ের আয়কর বিবরণী (কানাডীয়) দাখিল করতে হবে। এছাড়া অস্থায়ী অভিবাসনের সময়সীমাও নাগরিকত্বপ্রত্যাশীদের আবেদনে যুক্ত হবে।

আগের রক্ষণশীল সরকার ২০১৪ সালের জুনে ব্যাপক কড়াকড়ি আরোপ করে কানাডার নাগরিকত্ব আইন সংশোধন করে। ওই আইনটি নিয়ে খোদ কানাডাতেই বিতর্কের সৃষ্টি হয়। গত বছরের নভেম্বরে লিবারেল পার্টি সরকার গঠন করেই এ আইন সংশোধনের প্রতিশ্রুতি দিয়েছিল। উদারপন্থি এ সরকার মনে করে বর্তমান আইন ‘দ্বিতীয় শ্রেণির নাগরিক’ সমাজ তৈরি করেছে।

প্রস্তাবিত আইনে বিশেষ আবেদনকারীর ক্ষেত্রে ভাষাগত দক্ষতার শর্তও শিথিল করা হয়েছে। প্রস্তাবিত আইনে দ্বৈত নাগরিকত্বের ক্ষেত্রে সন্ত্রাস ও গুপ্তচর বৃত্তির দায়ে অভিযুক্তদের নাগরিকত্ব প্রত্যাহারের বিধান রদ করা হয়েছে। প্রস্তাবিত আইনটি বাস্তবায়িত হলে নাগরিকত্ব প্রক্রিয়াকরণ সময় এক বছরেরও নিচে নেমে আসবে। এছাড়াও প্রক্রিয়াকরণের বকেয়া কাজ দ্রুততার ভিত্তিতে সম্পন্ন হবে।

কানাডার ইমিগ্রেশন নিউজলেটার সিআইসি নিউজ থেকে তথ্যগুলো পাওয়া গেছে।

উপরে