আপডেট : ২৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১০:২২

শেষ হচ্ছে প্রাণের মেলা

বিডিটাইমস ডেস্ক
শেষ হচ্ছে প্রাণের মেলা

দেখতে দেখতেই ফুরিয়ে গেল ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি, শেষ হয়ে গেল বাংলা ও বাঙালির প্রাণের উৎসব অমর একুশে বইমেলা; অপূর্ব এক মেলবন্ধনের পরিসমাপ্তি। মাসব্যাপী কাজ করতে গিয়ে বিভিন্ন স্টলের বিক্রয়কর্মীদের মধ্যেও গড়ে উঠেছিল পারস্পরিক সখ্য।

তাদের মধ্যেও বইছে বিষাদের সুর। এর বাইরে নজরুল মঞ্চে, মূলমঞ্চসহ পুরো মেলাজুড়ে গতকাল থেকেই ছিল বিদায়ের আবেশ। তবে এর পরও থেমে নেই প্রাণচাঞ্চল্য। স্টলগুলোতে বিক্রয়কর্মীদের দম ফেলার ফুরসত নেই। মেলায় আগত সবার হাতে হাতে বই। অনেকে ব্যাগভর্তি করে বই কিনছেন। দুপুর গড়াতেই দেখা যায় প্রবেশপথে দীর্ঘ লাইন। লোকে লোকারণ্য মেলা প্রাঙ্গণ।

প্রকাশকরা জানালেন এবার বইমেলায় বিক্রি যে কোনো বারের তুলনায় বেশি। তবে পাঠকদের মন খারাপ। তারা বলছেন, বইমেলা আরও কিছুদিন থাকলে ভালো হতো। গতকাল বিকালে মেলায় এসেছিলেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন। হাসিবুর রহমান মানিকের লেখা ‘আমার ছাত্র রাজনীতি ও বঙ্গবন্ধু কন্যা শেখ হাসিনা’ শীর্ষক বইটির মোড়ক উন্মোচন করেন তিনি একাডেমির নজরুল মঞ্চে। এ সময় লেখক, বুদ্ধিজীবী, রাজনীতিবিদসহ বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ উপস্থিত ছিলেন।

গতকাল রোববার ছিল অমর একুশে বইমেলার ২৮তম দিন। মেলায় নতুন বই এসেছে ৯২টি। শাকির দেওয়ানের ‘গানের মানুষ প্রাণের মানুষ’ এনেছে আলোকায়ন প্রকাশনী। রুক্কুশাহ পাবলিশার্স লিমিটেড প্রকাশ করেছে ‘কার্ল মার্কস পুঁজি : প্রথম দ্বিতীয় তৃতীয় খ-’। এবারের মেলায় পাওয়া যাচ্ছে তানিয়া সুলতানা রচিত উপন্যাস ‘ভাঙা জোসনা’। এছাড়া উদ্যোগ প্রকাশনী এনেছে আহমেদ সজলের কাব্যগ্রন্থ ‘অবিরত জোছনার গান’। বিকাল ৪টায় বইমেলার মূল মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় ডিজিটাল মুক্তিযুদ্ধের কৌশল শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন বিশিষ্ট তথ্যপ্রযুক্তিবিদ মোস্তফা জব্বার। আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন জাতীয় সংসদ সদস্য নাহিম রাজ্জাক, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি মন্ত্রণালয়ের সচিব শ্যামসুন্দর সিকদার, ড. মাহবুবুল হক এবং তারিক সুজাত। সভাপতিত্ব করেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান। সভাপতির বক্তব্যে অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান বলেন, সাম্প্রতিক সময়ে সরকারের গৃহীত নানা পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে ডিজিটাল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে আমরা যে বিপুল অগ্রগতি অর্জন করেছি তা সমগ্র বিশ্বেই দৃষ্টান্তমূলক।

সন্ধ্যায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান পরিবেশন করেন লোপা খানের পরিচালনায় আবৃত্তি সংগঠন ‘আবৃত্তিশীলন’ এবং শেখ উজ্জ্বলের পরিচালনায় সাংস্কৃতিক সংগঠন ‘বাঙালি ফাউন্ডেশন’-এর শিল্পীবৃন্দ। সংগীত পরিবেশন করেন কণ্ঠশিল্পী অদিতি মহসিন, বুলবুল ইসলাম, ডা. অরূপ রতন চৌধুরী, লাইসা আহমেদ লিসা প্রমুখ।

আজ সোমবার। অমর একুশে বইমেলা-২০১৬-এর সমাপনী দিন। মেলা শুরু হবে দুপুর ২টার পরিবর্তে দুপুর ১টায় এবং শেষ হবে রাত যথারীতি ৮টায়।

আজকের আলোচনা অনুষ্ঠান

বিকাল ৪টায় বইমেলার মূল মঞ্চে রয়েছে নওয়াজেশ আহমেদ ও নাইবুদ্দিন আহমদের স্মরণে আলোচনা অনুষ্ঠান। এতে প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন শিল্প-সমালোচক অধ্যাপক নজরুল ইসলাম। আলোচনায় অংশগ্রহণ করবেন অধ্যাপক বুলবন ওসমান, শামসুল আলম এবং নাসিম আহমেদ নাদভী। সভাপতিত্ব করবেন সংস্কৃতিমন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি।

সমাপনী অনুষ্ঠান

সন্ধ্যা ৬টায় বইমেলার মূলমঞ্চে অনুষ্ঠিত হবে অমর একুশে বইমেলা-২০১৬-এর সমাপনী অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে শুভেচ্ছা ভাষণ প্রদান করবেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান। বইমেলা ২০১৬-এর প্রতিবেদন উপস্থাপন করবেন অমর একুশে বইমেলা-২০১৬-এর সদস্য সচিব ড. জালাল আহমেদ।

অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আসাদুজ্জামান নূর এমপি। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সংস্কৃতিবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব বেগম আক্তারী মমতাজ।

সভাপতিত্ব করবেন বাংলা একাডেমির সভাপতি ইমেরিটাস অধ্যাপক আনিসুজ্জামান। অনুষ্ঠানে প্রবাসে বাংলা ভাষা ও সাহিত্যের চর্চায় অবদানের জন্য ফরাসি গবেষক ও অনুবাদক ফ্রাঁস ভট্টাচার্য ও প্রবাসী বাঙালি কথাশিল্পী মন্জু ইসলামকে সৈয়দ ওয়ালীউল্লাহ্ পুরস্কার-২০১৫ আনুষ্ঠানিকভাবে প্রদান করা হবে।

এ ছাড়া অনুষ্ঠানে ২০১৫ সালে প্রকাশিত বিষয় ও গুণগতমানসম্মত সর্বাধিকসংখ্যক গ্রন্থ প্রকাশের জন্য চিত্তরঞ্জন সাহা স্মৃতি পুরস্কার-২০১৬, ২০১৫ সালে প্রকাশিত গ্রন্থের মধ্যে গুণগতমান ও শৈল্পিক বিচারে সেরা গ্রন্থের জন্য তিনটি প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানকে মুনীর চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার-২০১৬, ২০১৫ সালে প্রকাশিত শিশুতোষ গ্রন্থের মধ্য থেকে গুণমান বিচারে সর্বাধিক গ্রন্থ প্রকাশের জন্য রোকনুজ্জামান খান দাদাভাই স্মৃতি পুরস্কার-২০১৬ এবং ২০১৬ সালের অমর একুশে গ্রন্থমেলায় অংশগ্রহণকারী প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানগুলোর মধ্যে থেকে নান্দনিক অঙ্গসজ্জায় সেরা প্রতিষ্ঠানকে শিল্পী কাইয়ুম চৌধুরী স্মৃতি পুরস্কার-২০১৬ প্রদান করা হবে। সবশেষে রয়েছে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এর পরই পর্দা নামবে অমর একুশে বইমেলা-২০১৬ এর।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

উপরে