আপডেট : ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৪:০৫

এটিএম বুথ জালিয়াতি : জড়িত পুলিশ কর্মকর্তাসহ রাজনৈতিক নেতাও!

বিডিটাইমস ডেস্ক
এটিএম বুথ জালিয়াতি : জড়িত পুলিশ কর্মকর্তাসহ রাজনৈতিক নেতাও!

সম্প্রতি এটিএম বুথে জালিয়াতির ঘটনায় পুলিশ কর্মকর্তাসহ রাজনৈতিক নেতাদেরও প্রত্যক্ষ বা পরোক্ষ জড়িত থাকার তথ্য পাওয়া গেছে বলে জানিয়েছেন গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। ইতোমধ্যে এ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশের এক কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়েছে। জালিয়াতির ঘটনায় গ্রেফতার পোল্যান্ডের নাগরিক পিওটরের কাছ থেকে নেয়া তথ্যের ভিত্তিতে ঐ কর্মকর্তাকে বদলি করা হয়।

পিওটরকে জিজ্ঞাসাবাদে পুলিশের বিরুদ্ধে তথ্য পেয়ে গুরুত্ব দিয়ে তথ্য যাচাই বাছাই করছেন তদন্ত সংশ্লিষ্ট গোয়েন্দা কর্মকর্তারা। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক গোয়েন্দা কর্মকর্তা বলেন, ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের গুলশান বিভাগের একটি থানার পুলিশ পরিদর্শকসহ থানা পুলিশের আরো এক কর্মকর্তার বিরুদ্ধে তদন্ত চলছে। তদন্তে ওই পুলিশ কর্মকর্তাসহ একাধিক ব্যাংক কর্মকর্তা ও রাজনৈতিক নেতা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে জড়িত বলে তথ্য পাওয়া গেছে।

পুলিশের একটি সূত্র জানায়, গুলশান বিভাগের একটি থানার পুলিশ পরিদর্শক (ইন্সপেক্টর) পদ মর্যাদার ওই কর্মকর্তাকে শুক্রবার রাতে গুলশান বিভাগ থেকে রংপুর রেঞ্জের একটি থানায় বদলি করা হয়েছে। প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে এমন তথ্য পাওয়ার পর পুলিশের থেকে তাকে বদলি করা হয়। তবে তদন্তে তার জড়িত থাকার সত্যতা মিললে এই মামলায় তাকে গ্রেফতার দেখানো হতে পারে।

 

ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম বলেন, পিওটরকে জিজ্ঞাসাবাদে ইতোমধ্যে রাঘববোয়ালদের নাম বেরিয়ে এসেছে। শুধু ব্যাংক কর্মকর্তা বা কর্মচারী নয়, সেখানে আরো বেশ কিছু লোক জড়িত। এদের মধ্যে রয়েছেন কিছু অসাধু ব্যবসায়ী, ব্যাংকের কর্মকর্তা, হোটেল ব্যবসায়ী, মানি  চেঞ্জিং প্রতিষ্ঠান ও ট্র্যাভেল এজেন্সির মালিক। এদের মধ্যে কেউ কেউ পিওটরের খুবই ঘনিষ্ঠ। তদন্তের পর এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

গত ১২ ফেব্রুয়ারি এটিএম জালিয়াতির ঘটনা প্রকাশ পায়। এরপর গত শুক্রবার ইস্টার্ন ব্যাংকের কয়েকজন গ্রাহক অভিযোগ করেন, তাদের অ্যাকাউন্ট থেকে তাদের অজ্ঞাতসারে টাকা তুলে নেয়া হয়েছে।  পরে জানা যায়, তিনটি ব্যাংকের ছয়টি এটিএম বুথে ‘স্কিমিং ডিভাইস’ ও ভিডিও ক্যামেরা স্থাপন করে গ্রাহকের তথ্য চুরি করা হয়েছে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে 

উপরে