আপডেট : ২৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৪:২১

বিরল সাম্বার হরিণ মেরে ফেলেছে প্রত্যন্ত আদিবাসীরা!

বিডিটাইমস ডেস্ক
বিরল সাম্বার হরিণ মেরে ফেলেছে প্রত্যন্ত আদিবাসীরা!

ঘটনাটি গত ২৩ জানুয়ারীর। বেশ কয়েক ঘন্টা আগে ফেসবুকে একটি গ্রুপে কয়েকটি ছবি প্রকাশ করেন এক সমাজকর্মী। যাতে দেখা যায়, বিলুপ্ত প্রজাতির একটি সাম্বার হরিণকে শিকার করে মহানন্দে নিয়ে যাচ্ছে কয়েকজন আদিবাসী।

ঘটনার বিবরনে ওই সমাজকর্মী জানান, বান্দরবনের থানচি উপজেলার নাফাখুম এলাকায় স্থানীয় জনগণ বিলুপ্ত প্রজাতির প্রায় ১৩০ কেজি ওজনের দুর্ভাগা সাম্বার হরিণটি শিকার করে।

এ বিষয়ে বিডিটাইমস’র সঙ্গে ফোনালাপে কথা হয় সহকারী প্রধান বন সংরক্ষক অসীত রঞ্জন পাল-এর সঙ্গে।

আদিবাসীদের দ্বারা বিলুপ্ত প্রায় সাম্বার হরিণ শিকারের প্রসঙ্গে তিনি জানান, বিষয়টি সম্পর্কে তিনি এখনো অবগত হননি। তবে যে এলাকায় ঘটনাটি ঘটেছে, তা অনেক দুর্গম। মুরং অধ্যুষিত এসব এলাকার  আদিবাসীদের সঙ্গে বাইরের পৃথিবীর সম্পর্ক নেই বললেই চলে। তারা পাহাড়ী প্রকৃতির উপরই নির্ভরশীল। পশু শিকার তাদের জীবন যাত্রারই একটি অংশ। সাধারন বাঙালীদের জন্য এসব এলাকা অনেক সময় ঝুঁকির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। আর তা ছাড়া এসব আদিবাসীদের আমিষ চাহিদা পূরণের একটি উপায়- তা হলো বন্য পশু শিকার।

তবে বিরল প্রজাতির বন্য প্রাণী সংরক্ষনের বিষয়ে অসীত রঞ্জন বলেন, ‘সরকারীভাবে ঔসব এলাকার আদিবাসীদের পশু শিকারের বিকল্প কর্মসংস্থান তৈরী করতে বেশ কয়েকটি প্রজেক্ট হাতে নেওয়া হয়েছে। তবে এগুলো এমন দুর্গম এলাকায় খুব দ্রুত বাস্তবায়ন করা যাচ্ছে না।’ তিনি জানালেন, তাদের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

এসময় তিনি বিডিটাইমস’কে একটি সুখবরও প্রদান করেন, তা হলো বান্দরবানের সাঙ্গু রিজার্ভ ফরেস্ট এলাকায় পাওয়া গেছে- বাঘের পায়ের চিহ্ন। একটি নয় দুটি!

দুটি বাঘই রয়েল বেঙ্গল টাইগার।

এবার এগুলোর জন্য নিরাপদ আবাস গড়াই হবে সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/মাঝি

উপরে