আপডেট : ২৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৩:৩১

পানির নিচে তলিয়ে যাবে ঢাকা-চট্টগ্রাম

বিডিটাইমস ডেস্ক
পানির নিচে তলিয়ে যাবে ঢাকা-চট্টগ্রাম

পরিবেশ নিয়ে আমাদের তেমন কোন মাথা ব্যাথা নেই। যে যার ইচ্ছে মত পরিবেশ নষ্ট করছেন। প্রাকৃতিক ভারসাম্যকে ঠেলে দিচ্ছেন হুমকির দিকে। ফলে প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ভয়াবহতা দিন দিন বেড়েই চলেছে। পরিবেশ দূষণই যার মূল কারণ। অন্যদিকে অপরিকল্পিত শিল্পায়নের কারনে গ্রিনহাউজ গ্যাসে ক্রমেই বড়ে চলেছে। পৃথিবীর তাপমাত্রাও দিন দিন বাড়ছে। তার সাথে সাথে সমুদ্রের পানির উচ্চতাও বাড়ছে। প্রাকৃতিক এই বিপর্যয়ের ভয়াবহতা এতো বেশী হতে পারে যে একটি দেশ বা শহর তলিয়ে যেতে পারে পানির নিচে। এমনই ঝুকিতে রয়েছে বাংলাদেশের রাজধানী ঢাকাসহ কয়েকটি দেশের গুরুত্ব পূর্ণ কিছু শহর।

পরিবেশ দূষণ আর গ্রিনহাউজ গ্যাসের ক্রমবর্ধমান নিঃসরণে সৃষ্ট প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের ভয়াবহতা দিন দিন বাড়ছেই। ক্ষরা, অতিবৃষ্টি, বন্যা, ঘূর্ণিঝড়ে বিপর্যস্ত হয়ে পড়ছে জনজীবন। সমুদ্র ফুঁসে উঠে প্রতিনিয়ত বাড়িয়ে যাচ্ছে স্থলভাগ গ্রাসের আতঙ্ক।

‘প্রসিডিংস অব দ্য ন্যাশনাল একাডেমি অব সায়েন্সেস (পিএনএএস)’- এর সাম্প্রতিক এক গবেষণায় দেখা গেছে, আগামী কয়েক দশকেই ৩ দশমিক ৩ ফুট পর্যন্ত বেড়ে যেতে পারে সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা। কোথাও কোথাও পানির উচ্চতা বেড়ে যেতে পারে ১৪ থেকে ৩৩ ফুট পর্যন্ত।

এ আশঙ্কা সত্যি হলে ঢাকা-কলকাতার মতো গুরুত্বপূর্ণ শহরগুলো তলিয়ে যেতে পারে। সাগর গর্ভে হারিয়ে যেতে পারে মালদ্বীপসহ দক্ষিণ গোলার্ধের অনেক দ্বীপদেশই।

গবেষণা পরিচালনাকারী যুক্তরাষ্ট্র, ইউরোপ ও এশিয়ার বিজ্ঞানীরা এ ব্যাপারে একমত যে, সমুদ্র পৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধির বর্তমান হার বজায় থাকলে ২১০০ সালের মধ্যে নিশ্চিতভাবেই বিশ্বের অনেক শহর পানির নিচে তলিয়ে যাবে।

সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে হযরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উচ্চতা ২৯ দশমিক ৫৩ ফুট। আর রাজধানী ঢাকার গড় উচ্চতা ১৩ দশমিক ১২ ফুট। বিজ্ঞানীদের আশঙ্কা অনুযায়ী, এ শতকে সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা ১৪ ফুট বাড়লেও দেড় কোটির বেশি মানুষের আবাস এই শহর পানির নিচে তলিয়ে যাবে। ঢাকা ছাড়াও তলিয়ে যাবে বন্দরনগরী চট্টগ্রামও। এখানে শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৩ দশকিক ১২ ফুট উঁচুতে।

বাংলাদেশের ঢাকা, চট্টগ্রাম ছাড়াও তলিয়ে যাবে পশ্চিমবঙ্গের কলকাতার অনেকাংশও। এখানকার নেতাজি সুভাষ চন্দ্র বসু আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উচ্চতা ২২ দশমিক ৯৭ ফুট। এছাড়া তলিয়ে যাবে মালদ্বীপের পুরোটাই। দেশটির রাজধানী মালেতে অবস্থিত ইব্রাহিম নাসির আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরের উচ্চতা মাত্র ৬ দশমিক ৫৬ ফুট।

বিজ্ঞানীরা বলছেন, বৈশ্বিক তাপমাত্রা ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস বাড়লেই জল ছুঁইছুঁই করবে ভারতের মুম্বাই, যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্ক, যুক্তরাজ্যের লন্ডন, দক্ষিণ আফ্রিকার ডারবান, চীনের শাংহাই, অস্ট্রেলিয়ার সিডনি ও ব্রাজিলের রিওতে। আর যদি তাপমাত্রা ৪ ডিগ্রি পর্যন্ত বাড়ে, তাহলে এসব শহরের বেশিরভাগই ডুবে যেতে পারে। লন্ডনেও পানি প্রবেশ করবে।

উপরে