আপডেট : ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৫:০২

সিটি ব্যাংক কর্মকর্তাদের যোগসাজশেই জালিয়াতি

বিডিটাইমস ডেস্ক
সিটি ব্যাংক কর্মকর্তাদের যোগসাজশেই জালিয়াতি

সিটি ব্যাংক কর্মকর্তাদের যোগসাজশেই এটিএম কার্ড জালিয়াতির ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম।

সোমবার দুপুরে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ তথ্য জানান।

ডিএমপির এ অতিরিক্ত কমিশনার বলেন, বিভিন্ন ব্যাংকের এটিএম কার্ড জালিয়াত চক্রের হোতা সন্দেহে রাজধানীর গুলশান থেকে আটক পোল্যান্ডের নাগরিক পিটার শজেপ্যান মাজুরেক জানিয়েছেন, তার সঙ্গে আটক সিটি ব্যাংকের তিন কর্মকর্তার সহায়তায়ই এটিএম বুথ থেকে গ্রাহকদের টাকা আত্মসাৎ করেছেন তিনি।

তিনি জানান,  পিটারকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে প্রথমেই তিনি মাকসুদের নাম বলেন। তাকে আটক করলে জিজ্ঞাসাবাদে মাকসুদ দুই জনের নাম বলেন। সে দুই জন হলেন রেজাউল করিম ওরফে শাহীন এবং রেফাত আহমেদ ওরফে রনি। জিজ্ঞাসাবাদের জন্য চারজনকেই রিমান্ডে নেওয়া হবে উল্লেখ করে মনিরুল ইসলাম জানান, এই চক্রে আরও কয়েকজন জড়িত আছে। এরমধ্যে দুই জন দেশের বাইরে চলে গেছে। রয়েছেন একজন প্রবাসী বাংলাদেশিও।

তিনি বলেন, পোল্যান্ডের এই নাগরিক ম্যান পাওয়ার বিজনেসের (জনশক্তি ব্যবসা) ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে আসেন। কিন্তু তার উদ্দেশ্য ছিল এখানে এসে প্রতারণা করা। আমরা প্রাথমিক তদন্তে জানতে পেরেছি, বাংলাদেশের আগে তিনি বিশ্বের আরও কয়েকটি দেশে জালিয়াতির মাধ্যমে এভাবে টাকা আত্মসাৎ করেছেন। মনিরুল ইসলাম জানান, সিটি ব্যাংকের এই তিন কর্মকর্তা এটিএম কার্ড (ডেবিট কার্ড) ডিভিশনের কর্মী। এদের সহায়তায় এর আগেও বিদেশি কয়েকজনের অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা উত্তোলন করেন পিটার।

বাংলাদেশিদের ব্যাংক অ্যাকাউন্ট থেকে টাকা আত্মসাৎ করতে গিয়েই ধরা পড়লেন তারা।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে 

উপরে