আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৬:৪৩

জাফর ইকবালকে ‘বান-বিদ্ধ’ করলেন তসলিমা!

বিডিটাইমস ডেস্ক
জাফর ইকবালকে ‘বান-বিদ্ধ’ করলেন তসলিমা!

বৃহস্পতিবার ভোরে নির্বাসিত লেখিকা তসলিমা নাসরিন তার ফেসবুক ওয়ালে দেওয়া এক স্ট্যাটাসে মুহম্মদ জাফর ইকবালকে তীব্র ভাষায় কটাক্ষ করেছেন। একুশের বই মেলায় ব-দ্বীপ প্রকাশনীর স্টলটি বন্ধ করে দেয়ার প্রসঙ্গ টেনে এ বিষয়ে মুহম্মদ জাফর ইকবালের বক্তব্য নিয়ে তীর‌্যক মন্তব্য করেন। তার আগে প্রগতিশীল লেখক হিসেবে ‘খ্যাত’ বলে তসলিমা তাকে বিশেষায়িত করেন।

তিনি তার দীর্ঘ স্ট্যাটাসের শুরুর দিকে লিখেন, “একুশের বইমেলায় ব-দ্বীপ প্রকাশনীর যে স্টল ছিল, সেটিকে বাংলা একাডেমি কর্তৃপক্ষ বন্ধ করে দিয়েছে। বইটির লেখক-প্রকাশককে গ্রেফতার করা হয়েছে। এ প্রসঙ্গে প্রগতিশীল লেখক হিসেবে খ্যাত মুহম্মদ জাফর ইকবাল বলেছেন, 'যে বইটির কারণে স্টলটি বন্ধ করা হয়েছে, সেটির কয়েকটি লাইন আমাদের বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক শামসুজ্জামান খান আমাকে পড়ে শুনিয়েছেন। আমি কয়েক লাইন শোনার পর আর সহ্য করতে পারি নি। এত অশ্লীল আর অশালীন লেখা। এই স্টলটিকে আর অন্য দশটি সাধারণ স্টলের সঙ্গে তুলনা করলে চলবে না। তিনি বলেন, আমি মনে করে লেখালেখির সময় কিছুটা সতর্ক থাকতে হবে। যাতে কারও ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত না আসে। আর যে বইটির বিষয়ে কথা হচ্ছে, আমার অনুরোধ কেউ যেন এই বইটি না পড়ে।'

মুহম্মদ জাফর ইকবালের ওই বক্তব্যকে তিনি ‘সাংঘাতিক কথা’ বলে অভিহিত করেন এবং বলেন, মানুষের মত প্রকাশের অধিকারের চেয়ে ধর্মীয় অনুভূতির মূল্য তিনি বেশি দিচ্ছেন। লেখিকা মুহম্মদ জাফর ইকবালকে মৌলবাদীদের সঙ্গেও তুলনা করেন।

স্ট্যাটাসে তিনি আরো বলেন, ‘কোন লেখা শ্লীল আর কোনটা অশ্লীল তা বিচার করবে কে শুনি! কোনও লেখা কারও কাছে অশ্লীল ঠেকে, কারও কাছে ঠেকে না। যে লেখে তার কাছে তার লেখা শ্লীল মনে হয় বলেই সম্ভবত লেখে। ধরা যাক, কোনও লেখকের কোনও লেখা সবার কাছে অশ্লীল আর অশালীন বলে মনে হচ্ছে, তাহলে কি লেখককে শাস্তি দিতে হবে? তার স্টল বন্ধ করে দিতে হবে? অশ্লীল লেখা লেখার অধিকার কি লেখকদের নেই? প্রকাশকদের কি অধিকার নেই অশ্লীল লেখা ছাপানোর? তাদের কি অধিকার নেই বইমেলায় স্টল দেওয়ার? পাঠকের কি অধিকার নেই অশ্লীল বই কেনার? অশালীন বই পড়ার?’

স্ট্যাটাসের শেষ অংশে তিনি বলেন, ‘কে বলেছে বই লিখলে শ্লীল বই লিখতে হবে? মানুষের জীবন যাপন অশ্লীল, মানুষের চিন্তাভাবনা অশ্লীল , মানুষের বর্বরতা অশ্লীল,লোক ঠকানো, অপহরণ, ধর্ষণ, খুন সব অশ্লীল। অশ্লীল মানুষ নিয়ে লেখকরা অশ্লীল বই লিখতে পারবে না। আহ, আহলাদ দেখে বাঁচি না।’

এসব কথা বলার পর, স্ট্যাটাসের সবশেষ লাইনে তিনি জানান, একটা অশ্লীল বই লেখার জন্য নাকি তার হাত নিশপিশ করছে!

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/মাঝি

উপরে