আপডেট : ১৮ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৬:১৩

নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকবে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

বিডিটাইমস ডেস্ক
নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা থাকবে কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার

২১ শে ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবস পালন উপলক্ষে রাজধানীর জাতীয় শহীদ মিনার কেন্দ্রীক ৯ হাজার পুলিশের সমন্বয়ে চার স্তরের নিরাপত্তা ব্যবস্থা হাতে নিয়েছে ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি)।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মলনে এ কথা জানান ডিএমপি কমিশনার মো. আছাদুজ্জামান মিয়া।

তিনি বলেন, ৯ হাজার পুলিশ সদস্যের মধ্যে ১ হাজার সাদা পোষাকে এবং ৮ হাজার পোষাকধারী পুলিশ থাকবে। সার্বিকভাবে ২১ ফেব্রুয়ারির নিরাপত্তায় ২০ হাজার পুলিশ নিয়োজিত থাকবে।

তিনি আরও বলেন, ২০ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যা ৬ টার মধ্যে সুইপিং করে শহীদ মিনার এলাকা ডিএমপি বুঝে নিবে। এর পর থেকে পুলিশ সমন্বয় করে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করবে।

আছাদুজ্জামান মিয়া বলেন, সন্ধ্যা ৭ টার পর থেকে পুরো ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এলাকায় যান চলাচলে নিশেষাজ্ঞা থাকবে। শুধুমাত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টিকার সম্বলিত গাড়ি একটা নির্দিষ্ট সময় পর্যন্ত ভেতরে প্রবেশ করতে পারবে।

শহীদ মিনারে প্রতিটি প্রবেশ মুখে আর্চওয়ের মাধ্যমে লোকজনকে প্রবেশ করতে দেওয়া হবে এবং তল্লাশি করা হবে বলেও জানান তিনি। শহীদ মিনার কেন্দ্রীক পুরো এলাকাই সিসি টিভির মাধ্যমে নজরদারীতে রাখা হবে এবং ওয়াচটাওয়ারের মাধ্যমে নজরদারী করা হবে বলেও জানান তিনি।

শহীদ মিনারে রাষ্ট্রপতি, প্রধানমন্ত্রী, বিরোধীদলীয় নেত্রী, মন্ত্রী-এমপি এবং বিদেশী অতিথিদের পুষ্পস্তবক অর্পন করে স্থান ত্যগের পর ১২টা ৪৫ মিনিটে সর্বসাধারণের জন্য পলাশী মোড় উন্মুক্ত করে দেওয়া হবে বলেন কমিশনার। শহীদ মিনার এলাকার নিরাপত্তায় শুক্রবার থেকেই ওই এলাকায় সব ধরনের মিছিল ও সমাবেশ নিষিদ্ধ করা হবে বলেও জানান তিনি।

কমিশনার বলেন, জনসাধারণ দোয়েল চত্ত্বর হয়ে টিএসসি, নীলক্ষেত হয়ে পলাশী মোড় এবং শাহবাগ হয়ে নীলক্ষেত হয়ে পলাশী মোড় হয়ে শহীদ মিনারে পায়ে হেঁটে প্রবেশ করবে। পলাশীর মোড় ছাড়া অন্য কোন রাস্তা দিয়ে প্রবেশ করতে পারবে না। নির্দেশিত রাস্তার নিয়মকানুন মেনে চললে নিরাপত্তার কোন বিঘ্ন ঘটবে না, তাই সর্বসাধারণকে নির্দেশিত নিয়মগুলো মেনে চলে পুলিশকে সহায়তা করার জন্য অনুরোধ জানান কমিশনার।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

 

 

উপরে