আপডেট : ১৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৬:০৩

রাজধানীতে ২৫০ টাকা কিস্তিতে সরকারী ফ্ল্যাট

বিডিটাইমস ডেস্ক
রাজধানীতে ২৫০ টাকা কিস্তিতে সরকারী ফ্ল্যাট
ফাইল ছবি

রাজধানীর নিম্ন আয়ের মানুষকে প্রতিদিন ২৫০ টাকা জমা দিয়ে ফ্ল্যাটের মালিক হওয়ার কার্যক্রম শিগগিরই শুরু করতে যাচ্ছে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষ।

ফ্ল্যাটগুলোর আয়তন হবে ৩৫০ ও ৪৬৫ বর্গফুট। প্রতি বর্গফুটের দাম ধরা হয়েছে এক হাজার ৬০০ টাকা। প্রতিটি ফ্ল্যাটে থাকবে দুটি শয়নকক্ষ, একটি গোসলখানা-শৌচাগার, রান্নাঘর ও ছোট্ট বসার স্থান। ছোটটির দাম পড়বে পাঁচ লাখ ৬০ হাজার টাকা। বড়টির দাম হবে সাত লাখ ৪৪ হাজার টাকা। ২০২১ সালের মধ্যেই প্রকল্প বাস্তবায়িত হবে।

পূর্ত মন্ত্রণালয় সূত্র জানিয়েছে, ২০২১ সালের মধ্যে বাংলাদেশ মধ্যম আয়ের দেশে পরিণত হবে। এ সময়ে রাজধানীতে বস্তি থাকলে রাজধানীসহ মধ্যম আয়ের দেশের জন্যও অস্বস্তিকর। নগরীকে বস্তিমুক্ত করতেই এমন প্রকল্প নেওয়া হচ্ছে। 

এ প্রকল্পের সঙ্গে সম্পৃক্ত গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের নির্বাহী প্রকৌশলী জাহাঙ্গীর আলম বলেন, নীতিমালা তৈরি করে মন্ত্রণালয়ে জমা দেওয়া হয়েছিল।

মন্ত্রণালয় বলেছে, কোনো সদস্য আকস্মিকভাবে কিস্তি বন্ধ করে দিলে টাকা ফেরতের প্রক্রিয়া সহজ করতে। সেসব যাচাই-বাছাই করে গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের বোর্ডসভায় দেওয়া হয়েছে। এখন বোর্ডের অনুমোদনের অপেক্ষায়।

এ প্রসঙ্গে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান খন্দকার আক্তারুজ্জামান বলেন, নীতিমালা যে কোনো সময় অনুমোদন হয়ে যাবে। অনুমোদন হলেই কাজ শুরু করা হবে।

জানা গেছে, মিরপুরের ১১ নম্বর সেকশনে বাউনিয়া বাঁধের পাশে গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের চার একর জায়গায় এ প্রকল্প বাস্তবায়নের উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। ছয়তলা উচ্চতাবিশিষ্ট মোট ২৭টি ভবন নির্মাণ করা হবে। ৩৫০ বর্গফুটের ফ্ল্যাট হবে ৪৩২টি। ৪৬৫ বর্গফুটের ফ্ল্যাট হবে ৬৪৮টি। প্রথম ধাপে নয়টি ভবনের কাজ শুরু হবে। এ জন্য ব্যয় ধরা হয়েছে ৬৬ কোটি ৩০ লাখ ৬০ হাজার টাকা।

জানা গেছে, আবেদনকারীদের প্রথমে একটি টোকেন অর্থ দিয়ে আবেদনপত্র কিনে আবেদন করতে হবে। লটারির মাধ্যমে যারা ফ্ল্যাট পাবেন তারা প্রতিদিন নির্দিষ্ট পরিমাণ অর্থ গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের ব্যাংক অ্যাকাউন্টে জমা দেবেন। ৩৫০ বর্গফুট আয়তনের ফ্ল্যাটের জন্য দিতে হবে দৈনিক ২৫০ টাকা। আর ৪৬৫ বর্গফুটের ফ্ল্যাটের বিপরীতে দিতে হবে দৈনিক ২৭০ টাকা। সাপ্তাহিক ভিত্তিতে জমা দেওয়ার সুযোগ থাকবে। ছয় বছরের মধ্যে টাকা পরিশোধ হয়ে যাবে। ততদিনে ফ্ল্যাট তৈরির কাজও শেষ।

জানা গেছে, এর আগে গৃহায়ন ও গণপূর্তমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন মিরপুরে জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষের একটি আবাসিক ফ্ল্যাট নির্মাণ প্রকল্পের উদ্বোধন করতে গিয়ে নিম্ন আয়ের মানুষের জন্য মিরপুর এলাকায় ফ্ল্যাট নির্মাণের জন্য জাতীয় গৃহায়ন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেন। 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে 

উপরে