আপডেট : ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৬:৫৭

কেন্দ্রীয়ভাবে জাতীয় পরিচয়পত্রের সেবা বন্ধ; যাচ্ছে মাঠ পর্যায়ে

অনলাইন ডেস্ক
কেন্দ্রীয়ভাবে জাতীয় পরিচয়পত্রের সেবা বন্ধ; যাচ্ছে মাঠ পর্যায়ে

পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই জাতীয় পরিচয়পত্রের (এনআইডি) সংশোধনের কাজ বন্ধ করে দিয়েছে জাতীয় পরিচয়পত্র নিবন্ধন অনুবিভাগ। ১৬ফেব্রুয়ারি থেকে পরিচয়পত্রের সেবা সংশ্লিষ্ট উপজেলা ও থানা কার্যালয়ের মাধ্যমে নিতে হবে বলে জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন।

হঠাত্ এই সিদ্ধান্তের ফলে দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে আসা কয়েক হাজার মানুষ ভোগান্তিতে পড়েছেন। এদের অনেকেরই বিদেশে যাওয়ার এবং চাকরির জন্য জরুরিভিত্তিতে এনআইডি সংশোধনের প্রয়োজন। কিন্তু আবেদন করার সুযোগ না পেয়ে তারা হতাশ হয়ে ফিরে যাচ্ছেন।
জাতীয় পরিচয়পত্র অনুবিভাগ থেকে বলা হয়েছে, ‘পরিচয়পত্র সংশোধনের কাজ এখন উপজেলা পর্যায়ে সম্পন্ন হবে। কেন্দ্রীয়ভাবে এ সংক্রান্ত কোনো আবেদন গ্রহণ করা হবে না।'

যদিও দেশের অনেক উপজেলা নির্বাচন অফিসে কর্মকর্তা-কর্মচারী সংকট রয়েছে। মাঠ পর্যায়ের সার্ভার স্টেশনগুলোও সচল হয়নি।

মার্চ থেকে জুন পর্যন্ত সারা দেশে ইউপি নির্বাচন নিয়ে উপজেলা নির্বাচন অফিস ব্যস্ত সময় কাটাবে। ফলে পরিচয়পত্র সংশোধন নিয়ে নাগরিকদের চরম ভোগান্তির আশংকা রয়েছে।

রাজধানীর আগারগাঁওয়ে জাতীয় পরিচয় নিবন্ধন বিভাগের কেন্দ্রীয় দপ্তরের ওপর অতিরিক্ত চাপ পড়ায় কমিশন এ সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে জানিয়েছেন কমিশন সচিবালয়ের সচিব সিরাজুল ইসলাম। তিনি বলেন, জাতীয় পরিচয়পত্রের জন্য সবাই ঢাকায় ছুটে আসছেন। এতে নিবন্ধন বিভাগের কর্মকর্তাদের স্বাভাবিক কাজ ব্যাহত হচ্ছে।

তবে যাঁরা দেশের বাইরে থাকেন, যৌক্তিক মনে করলে কমিশন তাঁদের কেন্দ্রীয়ভাবে সেবা দেবে।
কমিশন সচিবালয়ের সূত্র বলেছে, বর্তমানে জাতীয় তথ্যভান্ডারে ৯ কোটি ৯৮ লাখ ৯৮ হাজার ৫৫৩ জন ভোটার রয়েছেন।

২০০৮ সালে দেশে প্রথমবারের মতো ছবিসহ ভোটার তালিকার কাজ শুরু হয়। তখন ভোটার ছিল ৮ কোটি ১০ লাখ।

সম্প্রতি সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন স্কেল ঘোষণার পর জাতীয় পরিচয়পত্র সংশোধনের জন্য ২ লাখ ৬৫ হাজারের বেশি আবেদন জমা পড়ে।

পরিচয়পত্র না থাকলে বেতন-ভাতা পাওয়া যাবে না বিধায় কমিশন জরুরি ভিত্তিতে কেন্দ্রীয়ভাবে সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের জাতীয় পরিচয়পত্র বিতরণ ও সংশোধনের কাজ শুরু করে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে