আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ০১:৪৭

ফুল-ফাগুনের আগুন ধরেছে শাহবাগে

বিডিটাইমস ডেস্ক
ফুল-ফাগুনের আগুন ধরেছে শাহবাগে

ভাষার মাস ফেব্রুয়ারি, সেই সাথে উৎসবের মাসও বটে। বাংলা মাসের ক্যালেন্ডার থেকে শীতের বিদায় ঘন্টা বেজে চলছে, শুরু হচ্ছে প্রকৃতিতে নতুন উৎসবের আমেজ। পহেলা ফাল্গুন এবং সেই সাথে ১৪ই ফেব্রুয়ারী ভালোবাসা দিবসকে ঘিরে ফুল-ফাগুনের আগুন ধরেছে রাজধানীর শাহবাগে।

গোলাপের পাপড়িতে নয়ন রেখে প্রেমিকা তার প্রেমিককে অন্তঃনয়নে পুরে নেয়। গোলাপের কমল পরশে ভালোবাসার মানুষটিকে হৃদমাজারে আগলে রাখতে চায়। ফুল ভালোবাসার প্রতীক, পবিত্রতার প্রতীক। ভালোবাসার মানুষেরা সবাই তো চায় তাদের প্রেমবন্ধন ফুলের মতই পবিত্র হয়ে উঠুক।

ভালোবাসা দিবসের বাকি আর মাত্র একদিন। বিদেশি সংস্কৃতির এই দিবসটি দিনে দিনে বাঙালিরাও আপন করে নিচ্ছে। দেশব্যাপী বিশেষ আয়োজনে চলে বিশ্ব ভালোবাসা দিবস। বিশেষ করে তরুণ-তরুণীদের মধ্যে দিবসটি নিয়ে কৌতুহলের অন্ত নেই।

বাহারী পোশাক আর ফুলের মাখামাখিতে দিবসটিকে প্রাণবন্ত করতে চলে তীব্র প্রতিযোগিতা। ফুলে ফুলেই জানান দিতে চায়, তারা ভালোবাসার অনুরাগী।

ফাগুনও এসেছে। ফাগুন তো ফুলে ফুলেই আগুন ঝরায়। ফুল-ফাগুনের আগুন ধরেছে রাজধানীর শাহবাগে। এ ফুলবাজার নয়, যেন ফুল বাগান। পহেলা ফাল্গুন আর বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে দেশের সর্ববৃহৎ ফুলের বাজার শাহবাগ এখন ফুলের মেলায় রূপ নিয়েছে।

গোলাপ, রজনীগন্ধা, গন্ধরাজ, রক্তজবার প্রাধান্য থাকলেও শত রকমের ফুলে ভরে উঠেছে সেখানকার পুষ্প ভাণ্ডারগুলো। আছে বিভিন্ন পাতাবাহারও। ধুমও পড়েছে বেচা-কেনার।

গত এক সপ্তাহ থেকে চীন, থাইল্যান্ডসহ বিভিন্ন স্থান হতে ফুল আসছে শাহবাগে।   পাইকারী এবং খুচরাভাবে বিক্রি করা হচ্ছে এসব ফুল।

রাজনৈতিক সহিংসতার কারণে গত কয়েক বছর ব্যবসায় মন্দা ছিল। তবে এবারে ভালো যাবে বিশেষ করে বইমেলাকে কেন্দ্র করে প্রতিদিন বিক্রি বাড়ছে। তাছাড়া রাত পুহালেই পহেলা ফাল্গুন,ফাগুণ বরণে ফুল না হলে চলে?

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এসএম

উপরে