আপডেট : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২০:৩৫

“ আমি ফেরেশতাও না শয়তানও না ” এম এ লতিফ

বিডিটাইমস ডেস্ক
“ আমি ফেরেশতাও না শয়তানও না ” এম এ লতিফ

 

 

বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতি বিকৃতির ঘটনায় নিজের অপূরণীয় ক্ষতি হয়েছে উল্লেখ করে সংসদ সদস্য এমএ লতিফ বলেছেন, ‘সব সফলতার মধ্যে ব্যর্থতা থাকে। আমি ফেরেশতাও না শয়তানও না। এ ঘটনায় জাতির কাছে একেবারে নিলাম হয়ে গেলাম।’

রোববার দুপুরে সংসদ সদস্য এমএ লতিফ বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতির অভিযোগ উঠার পর দ্বিতীয়বারের মতো আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন। এ সময় তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা যে সিদ্ধান্ত নেবেন তা মেনে নেবেন বলেও জানান। আগ্রাবাদের ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারের বঙ্গবন্ধু হলে গুরুত্বপূর্ণ এ সংবাদ সম্মেলনটি অনুষ্ঠিত হয়।
সংবাদ সম্মেলনে সংসদ সদস্য দিদারুল আলম, চিটাগাং চেম্বারের সহসভাপতি সৈয়দ জামাল আহমেদ, পরিচালক অহিদ সিরাজ চৌধুরী স্বপন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।
এমএ লতিফ বলেন, যারা বঙ্গবন্ধুর ছবি বিকৃতির সঙ্গে সংশ্লিষ্ট ছিল তাদের আমি চিহ্নিত করেছি। তাদের আপনাদের সামনে নিয়ে আসলাম। আমি তাদের সঙ্গে কথা বলেছি। তারা আমাকে উত্তর দিয়েছে আমি যে রেজুলেশনের বঙ্গবন্ধুর ছবি পাঠিয়েছি, সেই রেজুলেশনের ছবি বড় প্রতিকৃতি করার জন্য যথেষ্ট ছিল না। তাই তারা বিকল্প একটা পথ বেছে নিয়েছিল। এই বিষয়টি তাদের মুখ থেকে শোনার জন্য অনুরোধ করছি।

ফেস্টুনে পরিচ্ছন্নভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উপস্থাপন করতে গিয়েই প্রতিকৃতি বিকৃতির ঘটনা ঘটেছে বলে জানিয়েছেন হায়দার প্রিন্টার্সের প্রধান নকশাকারক কবির হোসেন বাবু। দেশের প্রথম ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টার উদ্বোধনের জন্য প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার আগমন উপলক্ষে নগরীতে লাগানো বিতর্কিত ওই ফেস্টুনগুলো ছাপানোর দায়িত্ব ছিল আন্দরকিল্লার হায়দার প্রিন্টার্সের।  
কবির হোসেন বাবু বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার চট্টগ্রাম আগমনকে ঘিরে বানানো ব্যানারগুলো তৈরির সময় ছিল খুবই কম। ব্যানারগুলো ২৭-২৮ জানুয়ারির মধ্যে আমাদের প্রিন্টিং করার তাড়া ছিল। এমপি মহোদয়ও খুব ব্যস্ত ছিলেন। দায়িত্বগুলো ছিল আমাদের ঘাড়ে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের পরিপূর্ণ আকৃতির প্রতিকৃতি তৈরির দায়িত্বও ছিল।

কিন্তু ছবি ম্যানেজ করতে গিয়েই ঝামেলাটা হয়েছে।এখানে আসলে অন্য কোনো উদ্দেশ্য ছিল না। ১০ ফুটের পরিপূর্ণ ব্যানার তৈরিতে যে ছবিটা দিতে হয়, আসলে আমরা সেরকম ছবি পাইনি। বঙ্গবন্ধুর যে পরিপূর্ণ ছবি পেয়েছিলাম তা বড় করতে গেলে, ফেটে যাচ্ছিল। তাই পরবর্তীতে বিকল্প রাস্তা হিসেবে আমি চিন্তা করলাম মুজিব কোটওয়ালা একটি ছবি যদি ম্যানেজ করতে পারি তাহলে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিটা পরিপূর্ণভাবে দাঁড় করানো যাবে। মূল উদ্দেশ্য ছিল পরিচ্ছন্নভাবে বঙ্গবন্ধুকে উপস্থাপন। আমার উদ্দেশ্যটা ছিল ভালো।’
কবির হোসেন বলেন, ‘চেম্বারের কর্মকর্তা রাসেল দাসের কাছ থেকে এমএ লতিফের মুজিব কোর্ট পরা ছবিটা নিয়েছিলাম। তাকে বলেছিলাম বঙ্গবন্ধুর যে ছবিটা পেয়েছি সেটি দিয়ে বড় ব্যানার তৈরি সম্ভব নয়, এটি ফেটে যাবে। তাই তাকে বললাম মুজিব কোর্ট পরা কারও ছবি আছে কিনা। পরবর্তীতে তার মোবাইলে থাকা এমপি মহোদয়ের ছবিটা নিয়ে বঙ্গবন্ধুর পরিপূর্ণ প্রতিকৃতি সম্বলিত ব্যানার তৈরি করি। এটা নিয়ে এত কিছু হবে জানলে আমি তা করতাম না। আমার উদ্দেশ্যটা অসৎ ছিল না। খুব দ্রুত করতে গিয়ে আমি কাজটি করে ফেলেছি। এটি আমি নিজস্ব চিন্তাধারা থেকে করেছি। পরবর্তীতে সময় স্বল্পতার কারণে তা কাউকে দেখানো হয়নি।’
বর্তমানে এটা নিয়ে এতটা বিতর্ক তৈরি হবে জানলে আমি এটা করতাম না বলেন ঢাকার ধামরাইয়ের বাসিন্দা কবির হোসেন।

সংবাদ সম্মেলনে চেম্বারের কর্মকর্তা রাসেল দাস বলেন, ‘আমার দায়িত্বে ব্যানার আনা ও টানানোর কাজটি ছিল। কবির হোসেন মুজিব কোটওয়ালা ছবি চাওয়ার পর আমার মোবাইলে থাকা এমপি মহোদয়ের ছবিটা দিই। এরপরে কী হয়েছে তা আমি জানি না।’

মূল কপিটা (‘র’ কপি) পরবর্তীতে এমপিকে দেখিয়েছেন কিনা এমন প্রশ্নের উত্তরে রাসেল দাস বলেন, সময়স্বল্পতার কারণে তা এমপি মহোদয়কে দেখানো হয়নি।
 
হায়দার প্রিন্টার্সের মালিক হায়দার আলী সংবাদ সম্মেলনে বলেন, ‘আমার প্রতিষ্ঠানের সব ডিজাইনারের কাজ করেন কবির হোসেন। আমি এসব বুঝি না। সময়স্বল্পতার কারণে ও (কবির) ভুল করে ফেলেছে।’
এরপর এমএ লতিফ বলেন, ‘শনিবার দিনভর আমি ব্যানার তৈরির সঙ্গে জড়িত সবার সঙ্গে কথা বলেছি। রাতে এদের অভিযুক্ত হিসেবে চিহ্নিত করেছি।’
একই ঘটনায় শনিবার করা প্রথম সংবাদ সম্মেলনে গত সাত বছর ধরে একটি মহল তার পেছনে লেগে আছে উল্লেখ করেছিলেন এমএ লতিফ। এই ঘটনার পেছনেও ওই মহলের ষড়যন্ত্র থাকতে পারে বলে আশঙ্কা করেছিলেন। তবে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতির সঙ্গে জড়িতদের খুঁজে বের করার পর এমএ লতিফ তার আগের দিনের অভিযোগ তুলে নেন।
তিনি বলেন, ‘আমার অতীত অভিজ্ঞতা থেকে বলেছিলাম যে, এ ঘটনায়ও ওই মহলটির সম্পৃক্ততা থাকতে পারে। এখন যেটি বেরিয়েছে তা কোনো রকম লুকোইনি। যা বেরিয়েছে তা আপনাদের (সাংবাদিক) সামনে উপস্থাপন করলাম।’   

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আইএম
 

উপরে