আপডেট : ৭ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৩:৩৩

সব ধর্মই নারী বিদ্বেষী: তাসলিমা নাসরিন

অনলাইন ডেস্ক
সব ধর্মই নারী বিদ্বেষী: তাসলিমা নাসরিন

২০০৫ সালের পর এই প্রথম ভারতের রাজধানী দিল্লির বাইরে কোন অনুষ্ঠানে যোগ দিলেন বাংলাদেশে বিতর্কিত, সাহসী লেখিকা তসলিমা নাসরিন। শনিবার (০৬ ফেব্রুয়ারি) কেরালার কোজিকোড়িতে অনুষ্ঠিত এক সাহিত্য উৎসবে যোগ দেন তিনি ।

সেখানে দেওয়া বক্তব্যে তাসলিমা নাসরিন বলেন, ‘সব ধর্মই নারী বিদ্বেষী, কোন ধর্মই নারীকে তার প্রাপ্য সম্মান দেয়নি’।

সরকার থেকে ধর্মকে আলাদা রাখতে হবে। ধর্মের ওপর ভিত্তি করে আইন হওয়া উচিত নয়।৭ম শতাব্দীর আইন এই একবিংশ শতাব্দীতে চলতে পারে না।আইন প্রণয়নে ধর্ম কিভাবে বাংলাদেশে মুসলিম ও হিন্দু নারীদের ওপর নিষ্পেষণ করে তার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে তিনি এসব মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ভারতে সমতার ভিত্তিতে আইন প্রণয়ন করা হয়েছে। তাই এখানে নারীদের অবস্থা তুলনামুলক ভাল। ভারতকে তিনি অসহিষ্ণু দেশ হিসেবেও মনে করেন না।তসলিমা বলেন, আমি মনে করি ভারতের বেশির ভাগ মানুষ একে অন্যের ধর্ম বিশ্বাসের প্রতি সহিষ্ণু। ভারতের আইন অসহিষ্ণুতাকে সমর্থন করে না্।তা সত্ত্বেও ভারতে অনেক মানুষ আছেন, যারা অসহিষ্ণু আচরণ করেন।

লেখক কে শচিনানন্দের এক প্রশ্নের জবাবে তসলিমা নাসরিন বলেন, কেন ভারতের ধর্ম নিরপেক্ষরা শুধু হিন্দু কট্টরপন্থিদের নিয়ে প্রশ্ন তোলেন। কেন মুসলিম কট্টরপন্থিদের নিয়ে প্রশ্ন তোলা হচ্ছে না?

তিনি বলেন, ভুয়া ধর্মনিরপেক্ষতার ওপর ভিত্তি করে যে গণতন্ত্র তা মোটেও সত্যিকারের গণতন্ত্র নয়। ভারতে প্রকৃতপক্ষে যে সংঘাত চলছে তা হলো ধর্মনিরপেক্ষ ও কট্টরপন্থিদের মধ্যে, নতুন ধ্যানধারণা ও পুরনো প্রথার মধ্যে, মানবতা ও বর্বরতার মধ্যে, স্বাধীনতার মূল্যবোধে বিশ্বাস করে এমন মানুষ ও এর বিপরীত অবস্থানের মানুষের মধ্যে।

এ সময় তিনি দাদ্রিতে গরুর মাংস খাওয়া নিয়ে পিটিয়ে আখলাক নামে এক মুসলিমকে হত্যার নিন্দা জানান। দাদ্রি কাণ্ডের প্রতিবাদে ভারতের বুদ্ধিজীবিরা তাদের সম্মাননা ফিরিয়ে দিয়েছেন। তসলিমা এমন ঐক্যবদ্ধ প্রতিক্রিয়ার প্রশংসা করেন।

বাংলাদেশে ভাল নারী লেখিকা না থাকায় তিনি অনুতাপ প্রকাশ করেন। তিনি মনে করেন, বাংলাদেশের সাহিত্য জগতে প্রাধান্য বিস্তার করে আছেন পুরুষরা। তিনি বলেন, নারী লেখিকাদের উচিত হবে না পুরুষ লেখকের ভীতির কারণ হওয়া। তাদের অভিজ্ঞতা ভিন্ন। তাদের অনুভূতি ভিন্ন। নারীরা যদি তার নিজের সঙ্গে কথা বলেন তাহলে তারা বড় লেখিকা হতে পারবেন। বাংলাদেশের নারীদের মন খুলে লিখতে আহবান জানান তিনি।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে