আপডেট : ১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ১৩:৩৭

ননী-তাহেরের যুদ্ধাপরাধের রায় মঙ্গলবার

বিডিটাইমস ডেস্ক
ননী-তাহেরের যুদ্ধাপরাধের রায় মঙ্গলবার

মুক্তিযুদ্ধের সময় মানবতাবিরোধী অপরাধের মামলায় নেত্রকোনার মো. ওবায়দুল হক তাহের ও আতাউর রহমান ননীর বিরুদ্ধে রায় মঙ্গলবার (০২ ফেব্রুয়ারি) ঘোষণা করবেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল।

সোমবার(০১ ফেব্রুয়ারি) ট্রাইব্যুনাল-১ এর চেয়ারম্যান বিচারপতি মো. আনোয়ারুল হকের নেতৃত্বে তিন সদস্যের আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল রায়ের ঘোষণার এ দিন ধার্য করেন।

উভয়পক্ষের যুক্তি উপস্থাপন শেষে গত ১০ জানুয়ারি ট্রাইব্যুনাল মামলাটি রায়ের জন্য অপেক্ষমান (সিএভি) রাখে।

জানুয়ারির শুরু থেকে চার দিন রাষ্ট্রপক্ষ ও আসামি পক্ষের যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে মামলাটি রায়ের পর্যায়ে আসে।

ট্রাইবুনালে প্রসিকিউশনের পক্ষে শুনানি করেন প্রসিকিউটর মোখলেসুর রহমান বাদল ও সাবিনা ইয়াসমিন খান মুন্নী। আসামি পক্ষে ছিলেন আব্দুস সোবাহান তরফদার ও গাজি এম এইচ তামিম।

আসামি ওবায়দুল হক তাহের ও আতাউর রহমান ননীর বিরুদ্ধে হত্যা, গণহত্যা, অপহরণ, দেশান্তরকরণ, বাড়িঘরে আগুন ও লুটপাটের ৬টি মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগে আনা হয়েছে।

এ দুই আসামির বিরুদ্ধে ১৫ জনকে হত্যা, প্রায় ৫০০ বাড়িঘর লুটপাট ও অগ্নিসংযোগের সাক্ষ্য-প্রমাণ ট্রাইবুনালে পেশ করে প্রসিকিউশন।

তদন্ত সংস্থা সূত্র জানায়, ১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় এ দুই আসামি বাংলাদেশের স্বাধীনতার বিরুদ্ধে অবস্থান নেন এবং পাকিস্তানি দখলদার বাহিনীকে সহযোগিতা করতে গঠিত রাজাকার বাহিনীতে যোগ দেন।

মুক্তিযুদ্ধের সময় নেত্রকোনা জেলা সদর, বারহাট্টাসহ জেলার বিভিন্ন এলাকায় মানবতাবিরোধী কর্মকাণ্ডের জন্য তাঁরা ‘কুখ্যাত রাজাকার’ হিসেবে পরিচিতি পান।

ওবায়দুল স্থানীয় রাজাকার বাহিনীর কমান্ডার হিসেবে ননীসহ অন্যান্য রাজাকার সদস্যকে নিয়ে নেত্রকোনা শহরের মোক্তারপাড়ার মলয় বিশ্বাসের বাড়ি দখল করে সেখানে রাজাকার ক্যাম্প স্থাপন করেছিলেন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে   

 

 

উপরে