আপডেট : ৩০ জানুয়ারী, ২০১৬ ১১:০৭

‘বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের স্বর্ণযুগ চলছে’-মোয়াজ্জেম আলী

বিডিটাইমস ডেস্ক
‘বাংলাদেশ-ভারত সম্পর্কের স্বর্ণযুগ চলছে’-মোয়াজ্জেম আলী

বাংলাদেশে-ভারত সম্পর্ক বর্তমানে স্বর্ণযুগ অতিবাহিত করছে। দুই দেশের বন্ধুত্ব, পারস্পরিক বিশ্বাস, আস্থা ও বোঝাপড়া এখন দ্বিপক্ষীয় সম্পর্কে এক নতুন দিগন্তের সুচনা করেছে। ভবিষ্যতে এই সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে।

নয়াদিল্লিতে নবনিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সৈয়দ মোয়াজ্জেম আলী তিন দিনের সফরে ভারতের উত্তর পূর্বাঞ্চলীয় রাজ্য ত্রিপুরার রাজধানী আগরতলায় এসে শুক্রবার ( ২৯ জানুয়ারি) এসব কথা বলেছেন।

বন্ধুত্বসুলভ এই সম্পর্ক দুই দেশের জন্যই শুভ বলে মন্তব্য করে সৈয়দ মোয়াজ্জেম বলেন, সন্ত্রাস দমন নিয়ে বাংলাদেশ সরকার সাহসী ও প্রশংসনীয় ভূমিকা নিয়েছে। ফলে পারস্পরিক অবিশ্বাস কাটিয়ে দুই দেশের সম্পর্কের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্তের সুচনা হয়েছে।

হাইকমিশনার বলেন, ‘বাংলাদেশ থেকে সন্ত্রাসবাদকে নির্মূল করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা জিরো টলারেন্স নীতি নিয়েছেন। সেই নীতি মেনেই বাংলাদেশের মাটি থেকে সন্ত্রাসবাদ নির্মূল করার প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে শুরু হয়ে গেছে। বাংলাদেশে কোনোরকম সন্ত্রাসবাদকে প্রশ্রয় দিচ্ছে না হাসিনা সরকার। বাংলাদেশ থেকে সন্ত্রাসবাদ নির্মূল করতে শেখ হাসিনা সরকার প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।

মোয়াজ্জেম আলী বলেন, বাংলাদেশ ভারতের সঙ্গে বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কের হাত বাড়িয়ে দিয়েছে। ভারতের যেসব অপরাধী লুকিয়ে বাংলাদেশের মাটিতে গিয়ে আশ্রয় নিয়েছিল তাদের ভারতের হাতে তুলে দিচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। সেইসঙ্গে বাংলাদেশ এখন ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে যোগাযোগ বৃদ্ধির ওপরও জোর দিয়েছে।

প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর সঙ্গে সড়ক, রেল, সমুদ্র এবং আকাশপথে যোগাযোগ বৃদ্ধি করার ওপর জোর দিয়েছে শেখ হাসিনা সরকার।

একইসঙ্গে প্রতিবেশী রাষ্ট্রগুলোর জন্য বাংলাদেশের চট্টগ্রাম আন্তর্জাতিক সমুদ্রবন্দরসহ অন্যান্য বন্দরকে ব্যবহারের সুবিধার্থে আঞ্চলিক কনসোর্টিয়াম গঠন করা হবে বলেও ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

ভারত-বাংলাদেশের মধ্যে অভিন্ন নদীগুলোর পানি ব্যবস্থাপনার জন্য বাংলাদেশ সরকার জয়েন্ট বেসিন ম্যানেজমেন্ট প্রতিস্থাপন করতে চায়।

ভারতসহ প্রতিবেশী দেশগুলোর সঙ্গে সম্পর্কের নতুন বাঁধন আরও দৃঢ় করতে সংকল্পবদ্ধ বাংলাদেশ।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

 

উপরে