আপডেট : ২৮ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৬:১৭

মানসিক যন্ত্রণা নিয়ে ভালো থাকা যায় না : প্রিন্স মুসা

বিডিটাইমস ডেস্ক
মানসিক যন্ত্রণা নিয়ে ভালো থাকা যায় না : প্রিন্স মুসা

জীবনের সব সম্পদ হারিয়ে ভালো থাকি কী করে? মানসিক যন্ত্রণা নিয়ে ভালো থাকা যায় না। আমি ডেথ ফোবিয়ায় ভুগছি। এটি একটি মারাত্মক অসুখ।

বৃহস্পতিবার (২৮জানুয়ারি) দুপুরে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক) জিজ্ঞাসাবাদ শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা বলেন আলোচিত ব্যবসায়ী মুসা বিন শমসের।

সুইস ব্যাংকের টাকা সম্পর্কে প্রিন্স মুসা বলেন, বাংলাদেশ থেকে আমি একটি টাকাও নেইনি। ৪০টি দেশের সামরিক বাহিনীর সঙ্গে আমার অস্ত্রের ব্যবসা রয়েছে। আমি দুদককে সুইস ব্যাংকের হিসাব দিয়েছি।

সুইস ব্যাংকের অর্থ ফেরত এলে দেশে বিনিয়োগ করবেন বলেও জানিয়েছেন প্রিন্স মুসা।

তিনি বলেন, এদেশে চিংড়ি মাছ রপ্তানি করলে সোনার মেডেল পায় কিন্তু জনশক্তি রপ্তানিকারকরা তা পায় না। মুক্তিযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে দেশে যে অর্থনৈতিক দুরবস্থা ও দুর্ভিক্ষের মতো অবস্থা ছিল জনশক্তি রপ্তানি শুরুর মাধ্যমে আমি তা দূর করার চেষ্টা করেছি। আমি সে সময় দেশে রেমিটেন্স আসার প্রবাহ সৃষ্টি করেছিলাম। দেশে রেমিটেন্সের জনক আমি।

মুক্তিযুদ্ধে তার বিতর্কিত ভূমিকা নিয়ে জানতে চাইলে মুসা দাবি করেন, ‘১৯৭১-এর ২৫ মার্চ রাত পর্যন্ত আমি বঙ্গবন্ধুর বাড়িতে ছিলাম। পরে বঙ্গবন্ধুর নির্দেশে আমি নদী পার হয়ে পায়ে হেঁটে ফরিদপুর যাই’।
২১ এপ্রিল ফরিদপুরে আর্মি ঢোকে। ২২ এপ্রিল আমাকে ধরে নিয়ে নির্যাতন করে পাকিস্তানি বাহিনী। ৯ ডিসেম্বর অর্ধমৃত অবস্থায় পাকিস্তানি আর্মির কাছ থেকে ছাড়া পাই আমি।

এর আগে, সকাল ১০টা ৫৫ মিনিটে শতাধিক দেহরক্ষী নিয়ে ড্যাটকো গ্রুপের চেয়াম্যান মুসা বিন শমসের ওরফে প্রিন্স মুসা দুর্নীতি দমন কমিশন কার্যালয়ে এসে পৌঁছেন। বেলা ১১টা থেকে দুপুর দেড়টা পর্যন্ত তাকে দুদকের পরিচালক মীর মো: জয়নুল আবেদীন শিবলী জিজ্ঞাসাবাদ করেন।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

 

 

উপরে