আপডেট : ২৩ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৩:২৮

মন্ত্রীর আল্টিমেটামেও কাজ হয়নি, সরেনি একটি ট্যানারিও!

বিডিটাইমস ডেস্ক
মন্ত্রীর আল্টিমেটামেও কাজ হয়নি, সরেনি একটি ট্যানারিও!

রাজধানীর হাজারীবাগ থেকে ট্যানারি শিল্প সাভারে স্থানান্তরের বিষয়ে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমুর দেওয়া ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম পার হয়েছে অনেক আগেই। ১৫৫ ট্যানারির একটিও সরেনি মন্ত্রীর আল্টিমেটামে। 
আল্টিমেটাম শেষে প্রথম দফায় ২৮টি ট্যানারি মালিককে উকিল নোটিশ দেওয়া হয়। সব মিলিয়ে পর্যায়ক্রমে এ পর্যন্ত ১৩৩টি ট্যানারি মালিকের বরাবর উকিল নোটিশ পাঠানো হয়েছে। আরো ৯টির নামে নোটিশ প্রস্তুত করা হয়েছে। সব ট্যানারি মালিককে নোটিশ পৌঁছে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশন (বিসিক)।

গত ১০ জানুয়ারি শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু ট্যানারি স্থানান্তরে মালিকদের ৭২ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দিয়ে বলেছিলেন, বেধে দেওয়া সময়ের মধ্যে হাজারীবাগ থেকে ট্যানারি সাভারে নিতে ব্যর্থ হলে কারখানা বন্ধ করে দেওয়া হবে। এমনকি শিল্পনগরীতে কারখানা মালিকদের নামে বরাদ্দ প্লটও বাতিল করা হবে।

তবে মন্ত্রীর আল্টিমেটাম বা উকিল নোটিশ এবারই প্রথম নয়। এর আগেও প্লট বাতিলের হুমকি দিয়েছিলেন মন্ত্রী কিন্তু তাতে কাজ হয়নি। আরও কয়েকবার সরকারের পক্ষ থেকে নানাভাবে আল্টিমেটাম দেওয়ার পরও ট্যানারি মালিকরা কারখানা সরাতে পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি।

সর্বশেষ গত ডিসেম্বরের মধ্যেই হাজারীবাগ থেকে ১৫৫ ট্যানারি স্থানান্তরে সরকারি নির্দেশনা ছিল। এ সময়সীমা শেষ হওয়ার পরই শিল্পমন্ত্রীর সর্বশেষ আল্টিমেটাম আসে।

বিসিক সূত্রে জানা গেছে, উকিল নোটিশ পাওয়ার পর বেশিরভাগ ট্যানারি মালিক তাদের জবাব দিয়েছেন। নোটিশের জবাবে ট্যানারি মালিকরা কেউ তিন মাস, কেউ চার মাস আবার কেউ এক বছর সময় চেয়েছেন। এর মধ্যে সবাই হাজারীবাগ থেকে সাভারে ট্যানারি স্থানান্তর করবেন বলে জানিয়েছেন বিসিককে।

সাভারের বলিয়াপুর ইউনিয়নের হরিণ ধরায় নদী তীরে ১৯৯ দশমিক ৪০ একর জমিতে পরিবেশবান্ধব ট্যানারি শিল্পনগরী গড়ে তুলছে বিসিক। সেখানে বিএফএলএলএফইএ’র আওতাধীন ১৫৫টি শিল্প ইউনিটের অনুকূলে ২০৫টি প্লট বরাদ্দ প্রদান করা হয়েছে। হাজারীবাগ থেকে ১৫৫ ট্যানারি কারখানা সেখানে স্থানান্তরিত হবে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে