আপডেট : ২১ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৮:৩৭

নৌকায় ভোট চাই, পেট্রলবোমারুদের ক্ষমা নাই: সিলেটে প্রধানমন্ত্রী

বিডিটাইমস ডেস্ক
নৌকায় ভোট চাই, পেট্রলবোমারুদের ক্ষমা নাই: সিলেটে প্রধানমন্ত্রী

নৌকায় ভোট চেয়ে বক্তব্য শেষ করলেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বৃহস্পতিবার (২১জানুয়ারি) বিকেলে সিলেট নগরীর আলিয়া মাদ্রাসা মাঠে আয়োজিত জনসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি উপস্থিত সবার কাছ থেকে নৌকায় ভোট দেওয়ার অঙ্গীকার নেন। এসময় প্রধানমন্ত্রী আওয়ামী লীগ সরকারের নেওয়া নানা উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ডের বিবরণও তুলে ধরেন।

জনসভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা পেট্রলবোমা দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করেছে তাদের কোনো ক্ষমা নেই। যেখানে যেখানে হত্যাকাণ্ড হয়েছে, প্রত্যেকটি জায়গায় মামলা হয়েছে। সবার বিচার হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘আওয়ামী লীগ হত্যার রাজনীতিতে বিশ্বাস করে না। আমাদের মুক্তিযুদ্ধের সময় যারা হানাদার বাহিনীর পক্ষে ছিল। তাদের বিচার আমরা শুরু করেছি। এদের মধ্যে অনেকেরই বিচার হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘অবৈধভাবে ক্ষমতা দখল করে জেনারেল জিয়া যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বন্ধ করেছিলেন। আমরা সেই বিচার শুরু করেছি। বিচার অব্যাহত থাকবে, বাংলাদেশ কলুঙ্কমুক্ত হবে ইনশাল্লাহ।’

সরকারপ্রধান আরো বলেন, ‘একদিকে যেমন আমরা বিচারকার্য চালাচ্ছি, অন্যদিকে, উন্নয়ন কার্যক্রম এগিয়ে নিচ্ছি। বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ যখনই ক্ষমতায় এসেছে। তখনই উন্নয়ন হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা দেড় কোটি মানুষের চাকরির ব্যবস্থা করে দিয়েছি। বিদেশে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করেছি। তা ছাড়া আমরা বয়স্ক ভাতা, বিধবা ভাতা চালু করেছি। এ দেশের কোনো মানুষ যাতে কষ্ট না পায়, সেজন্য ভিজিএফের মাধ্যমে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছি। আট হাজার পোস্ট অফিস ডিজিটাল করার কাজ চলছে। সেখানেও কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা হবে।

সিলেটে শিগগির মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা হবে একইসঙ্গে দেশের সব বিভাগেও মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্য সরকারের রয়েছে জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় ছিল না। আওয়ামী লীগই এ বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করেছে। দ্রুতই সিলেটে মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় আমরা করে দেবো।

প্রধানমন্ত্রী তার সরকারের উন্নয়ন কর্মকাণ্ড তুলে ধরে বলেন, সিলেটে আজ ২২টি উন্নয়ন প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেছি। আমরা সিলেট বিমানবন্দরকে আন্তর্জাতিক করেছি। এর কাজ আমরা শুরু করেছিলাম, কিন্তু বিএনপি এসে কাজ বন্ধ করে দেয়। 

বিমান এখন লন্ডন থেকে সরাসরি সিলেটে আসে। ঢাকা-লন্ডন সরাসরি ফ্লাইট চালু করেছি। বিমানকে উন্নত করেছি।

আমাদের লক্ষ্য ছিল, ডিজিটাল বাংলাদেশ করবো, করেছি। থ্রি-জি চালু করেছি, দ্রুতই ফোর-জি চালু করা হবে।

শিক্ষা খাতের উন্নয়নেও প্রধানমন্ত্রী তার সরকারের নানা পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন। তিনি বলেন, এক কোটি ২৮ লাখ ছাত্র-ছাত্রীকে বৃত্তি এবং উপবৃত্তি দিয়ে যাচ্ছি। বিনা পয়সায় বই দিচ্ছি। এবারও ঠিক সময়ে শিশুদের হাতে হাতে বই পৌঁছে দিয়েছি।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, লেখাপড়া শিখতে হবে। মনোযোগ দিয়ে পড়াশোনার সুযোগ সৃষ্টি করে দিয়েছি। শিক্ষার্থীদের এগিয়ে যেতে হবে। কারণ, পড়াশোনা না শিখলে ভবিষ্যতে তারা কোনো কাজে আসবে না। সে সুযোগ কাজে লাগিয়ে শিক্ষার্থীরা এগিয়ে যাবে।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান যে স্বপ্ন দেখেছেন, সে অনুযায়ী স্বাধীনতার সুফল মানুষের দ্বারে দ্বারে পৌঁছে দেওয়াই আওয়ামী লীগের লক্ষ্য বলে জানান প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে, জনসভা মঞ্চের পাশে সিলেটের ২২টি প্রকল্পের উদ্বোধন ও ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। তারপর দেশ ও জাতির কল্যাণ কামনা করে মোনাজাত করেন তিনি।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

 

 

উপরে