আপডেট : ১০ জানুয়ারী, ২০১৬ ১০:৫৯

প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাতের অপেক্ষায় ইজতেমা

অনলাইন ডেস্ক
প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাতের অপেক্ষায় ইজতেমা
ফাইল ছবি

টঙ্গীর তুরাগতীরে বিশ্ব ইজতেমায় এই বারের প্রথম পর্বের আখেরি মোনাজাতের প্রস্তুতি চলছে। ইজতেমার জন্য গাজীপুর-ঢাকা গাড়ি চলাচলে বিকল্প পথ ধরতে হচ্ছে সবাইকে।

রোববার সকাল ১১টার দিকে আখেরি মোনাজাত হবে বলে জানিয়েছেন গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এসএম আলম ও ইজতেমার মুরব্বি মো. গিয়াসউদ্দিন।

গত ৮ জানুয়ারি ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হয়। আগামী ১৫ জানুয়ারি দ্বিতীয় পর্ব শুরু হয়ে তিন দিন পর শেষ হবে বিশ্ব তাবলিক জামাতের বার্ষিক এই সম্মেলন।

রোববার সকালে সরেজমিন দেখা যায়, কুয়াশার মধ্যে আখেরি মোনাজাতে শরিক হতে ঢাকা ও আশপাশের জেলাগুলো থেকে বিপুল সংখ্যক মুসল্লি তুরাগতীরে জমায়েত হচ্ছেন।

ইজতেমা ময়দানে চটের সামিয়ানার নিচে বয়ান শুনছেন মানুষ। ময়দান ভরে যাওয়ায় আশেপাশের অলিগলি ও রাস্তায় পাটি, খবরের কাগজ, পলিথিন বিছিয়ে তাতেই অবস্থান নিয়েছেন অনেকে।

বিদেশি নিবাসের পূর্বপাশে বিশেষভাবে স্থাপিত মোনাজাত মঞ্চ থেকে ইজতেমার মোনাজাত পরিচালনা করবেন তাবলিগ জামাতের মারকাজের শূরা সদস্য মাওলানা মুহাম্মদ সাদ।

এ মোনাজাতে প্রায় ৩০ লাখ মানুষ অংশ নেবেন বলে ধারণা করা হচ্ছে।

গাজীপুরের জেলা প্রশাসক এস এম আলম বলেন, রোববার ভোর থেকেই ইজতেমা ও এর আশপাশের এলাকায় যানবাহন চলাচলে নিষেধাজ্ঞা আরোপ করা হয়েছে। রোববার সন্ধ্যা পর্যন্ত এ বিধিনিষেধ বলবৎ থাকবে।

আখেরি মোনাজাত প্রচারের জন্য গণযোগাযোগ অধিদপ্তর ও গাজীপুর জেলা তথ্য অফিস বিশেষ ব্যবস্থা নিয়েছে।

জেলা তথ্য অফিসার নাসিমা আক্তার জানান, গণযোগাযোগ অধিদপ্তর ইজতেমা ময়দান হতে আব্দুল্লাহপুর ও বিমানবন্দর রোড পর্যন্ত এবং গাজীপুর জেলা তথ্য অফিস ইজতেমা ময়দান হতে চেরাগআলী, টঙ্গী রেল স্টেশন, স্টেশন রোড ও আশপাশের অলিগলিতে পর্যাপ্ত মাইক সংযোগের ব্যবস্থা করেছে।  

আখেরি মোনাজাত উপলক্ষে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থার কথা জানিয়েছে প্রশাসন।

গাজীপুরের পুলিশ সুপার মো. হারুন অর রশিদ বলেন, আখেরি মোনাজাতে বাড়তি নিরাপত্তার জন্য অন্যান্য দিনের চেয়ে দ্বিগুণ ফোর্স (দুই শিফটের ফোর্স এক শিফটে) মোতায়েন করা হবে।

“প্রায় ১২ হাজার র‌্যাব ও পোশাকধারী পুলিশের পাশপাশি রয়েছে সাদা পোশাকে কয়েক হাজার গোয়েন্দা সদস্য। আকাশ ও নৌপথে রয়েছে র‌্যাবের সতর্ক নজরদারি।”

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/এআর

উপরে