আপডেট : ৯ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৩:৩৫

ধর্ম পরিবর্তনের অভিযোগে চিকিৎসক হত্যা: আইএসের দায় স্বীকার

নিজস্ব প্রতিবেদক
ধর্ম পরিবর্তনের অভিযোগে চিকিৎসক হত্যা: আইএসের দায় স্বীকার
প্রতিকী ছবি

ধর্ম পরিবর্তনের অভিযোগে ঝিনাইদহ সদর উপজেলায় ছামির আলী ওরফে খাজা নামে এক হোমিও চিকিৎসকে  হত্যা করা হয়েছে। আন্তর্জাতিক  জঙ্গি সংগঠন ইসলামিক স্টেট (আইএস) এই হত্যার দায় স্বীকার করেছে বলে বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।
উগ্রপন্থী সংগঠনগুলোর অনলাইন তৎপরতা নজরদারি প্রতিষ্ঠান ‘সাইট ইন্টেলিজেন্স গ্রুপের’ ওয়েবসাইটের বরাত দিয়ে রয়টার্স জানায়, বাংলাদেশে ইসলাম ধর্ম থেকে খ্রিষ্টধর্মে ধর্মান্তরিত হওয়ার কারণে ছামির নামের এক ব্যক্তিকে হত্যার দায় স্বীকার করেছে আইএস। যুক্তরাষ্ট্রভিত্তিক সাইটের পরিচালক রিটা কাটজ এ নিয়ে একটি টুইটে বলেছেন, ‘বাংলাদেশে আরেকটি অভিযানের দায় স্বীকার করেছে আইএস: বাংলাদেশের খ্রিষ্টধর্মে ধর্মান্তর হওয়ার কারণে ছামিরকে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করা হয়েছে।’
ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়নের কালুহাটি গ্রামের ছামির আলীকে (৮০) ০৭ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার বিকেলে স্থানীয় বেলেখাল বাজারে ছুরিকাঘাত করে হত্যা করে কয়েকজন মুখোশধারী। এ ঘটনায় ওই দিন রাতে তাঁর ছেলে মনিরুল ইসলাম বাদী হয়ে অজ্ঞাতনামা কয়েকজনকে আসামি করে সদর থানায় একটি হত্যা মামলা করেন। পরের দিন শুক্রবার বিকেলে বাড়ির আঙিনায় ইসলাম ধর্মমতে জানাজা শেষে তাকে পারিবারিক কবরস্থানে দাফন করা হয়।
ঝিনাইদহের পুলিশ সুপার হাসান হাফিজুর রহমান রয়টার্সকে বলেন, ‘কোনো সন্ত্রাসী গ্রুপের দায় স্বীকার সম্পর্কে আমরা কিছু জানি না। নিহত ব্যক্তি খ্রিষ্টানধর্ম গ্রহণ করে থাকলেও পরে আবার ইসলাম ধর্মে ফিরে আসেন।’
স্থানীয় ওয়ান ওয়ে চার্চের ধর্মযাজকেরা ছামির আলী ওরফে খাজা ২০০১ সালে খ্রিষ্টানধর্ম গ্রহণ করেন বলে দাবি করেছেন।
ওয়ান ওয়ে চার্চ বাংলাদেশের আঞ্চলিক কো-অর্ডিনেটর হারুন অর রশিদ বলেন, ছামির ঝিনাইদহ সদর উপজেলার গান্না ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকায় খ্রিষ্টধর্ম প্রচারের দায়িত্ব পালন করতেন। এ কারণে কোনো জঙ্গিগোষ্ঠী তাঁকে হত্যা করে থাকতে পারে।
তবে নিহতের ছেলে মনিরুল ইসলাম বলেন, তাঁর বাবাকে কারা কেন হত্যা করেছে, সে সম্পর্কে তাঁরা কোনো ধারণা করতে পারছেন না। খ্রিষ্টধর্মে দীক্ষিত হওয়ার বিষয়টি জানতে চাইলে তিনি বলেন, এ বিষয়ে তাঁরা কিছু জানেন না, বাবার খ্রিষ্টান ধর্মগ্রহণের বিষয়টি আমরাও লোকমুখে শুনেছি কিন্তু তিনি ইসলাম ধর্ম মেনে চলতেন এমনকি তিনি নিয়মিত পাঁচ ওয়াক্ত নামাজও আদায় করতেন।

বিডিটাইমস৩৬৫.কম/জিএম

উপরে