আপডেট : ৮ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৮:১৯

পাটে কেবল বস্তা নয়! চেয়ার-টেবিল, ঢেউটিনও হয়

নিজস্ব প্রতিবেদক
পাটে কেবল বস্তা নয়! চেয়ার-টেবিল, ঢেউটিনও হয়

প্রযুক্তির উৎকর্ষতায় প্রতিনিয়ত এগিয়ে চলছে মানবসভ্যতা, আধুনিক যুগ থেকে মানবজাতি পদার্পণ করেছে অত্যাধুনিক যুগে।কত অসম্ভবই সম্ভব হচ্ছে দুনিয়ায়।অজানাকে জানার, অদেখাকে দেখার আর অদৃশ্যকে ছোঁয়ার জন্য মানুষের অতৃপ্ত বাসনায় এগিয়ে চলছে সভ্যতা।তৈরি হচ্ছে নিত্য নতুন পণ্য।

তাই বলে পাট দিয়ে তৈরি হবে চেয়ার-টেবিল, ঢেউটিন?

এমনি অসম্ভবকে সম্ভব করেছে বাংলাদেশের কারিগররা।এছাড়াও পাট দিয়ে তৈরি হচ্ছে নোটবুক, পাঠ্যবই, বইয়ের মলাট, অ্যালবাম,খেলনা, কার্পেট, বেড কভার, জুতা, ঝুড়ি, আসবাব, দরজা-জানালার পর্দা প্রভৃতি।

পাটের তৈরি এসব পণ্য একদিকে যেমন দীর্ঘস্থায়ী তেমনি অধিক রোদে সহজে তপ্ত হবে না।

শুনলে অবিশ্বাস্য মনে হলেও এটাই বাস্তব।ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্য মেলায় (ডিআইটিএফ) বস্ত্র ও পাট মন্ত্রণালয়ের জুট ডাইভারসিফিকেশন প্রমোশন সেন্টারের (জেডিপিসি) বিশাল প্যাভিলিয়নে পাটের এসব পণ্য বিক্রি হচ্ছে।
পাট ও প্লাস্টিকের সমন্বয়ে এসব পণ্য তৈরি করা হয়েছে। পাট-প্লাস্টিকের তৈরি প্রতি বর্গফুট ঢেউটিনের দাম ১৯৫ টাকা এবং আর্মি হেলমেট ১ হাজার ৫৫০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। পাট ও প্লাস্টিকের তৈরি চেয়ার ২ হাজার ৪৭৫ টাকা, টেবিল বিক্রি ৮ হাজার ১০০ টাকায় পাওয়া যাচ্ছে।


 
প্যাভিলিয়নে পাটের তৈরি বিভিন্ন ব্যাগ ছাড়াও মানিব্যাগ, খেলনা, কার্পেট, বেড কভার, জুতা, ঝুড়ি, আসবাব ও দরজা-জানালার পর্দা পাওয়া যাচ্ছে। এছাড়া পাটের তৈরি ল্যাপটপ ব্যাগ, জুতাও পাওয়া যাচ্ছে।
 
পাটের তৈরি কম্বল, সোয়েটার, জামা, ফতুয়া, লুঙ্গি, শো-পিস, শপিং ব্যাগ, হ্যান্ড ব্যাগ, পর্দাসহ নানা ধরনের বাহারি পণ্য ক্রেতাদের মন জয় করছে।

বিক্রেতারা জানান,দেশীয় পাটের মান অন্যান্য দেশের চেয়ে উন্নত। পাট থেকে একদিকে যেমন প্রয়োজনীয় পণ্য তৈরি করা যেতে পারে অন্যদিকে বিভিন্ন শৌখিন পণ্যও তৈরি করা যেতে পারে।

এসব পণ্য পরিবেশবান্ধব ও ইউনিক হওয়ায় তরুণদের আগ্রহ বেশি। পরিচিতি পাওয়ার জন্য সবার মাঝে সুলভ মূল্যে এসব পরিবেশবান্ধব পাটপণ্য বিক্রি করছেন বলে জানান তারা।


বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/আরকে

উপরে