আপডেট : ৬ জানুয়ারী, ২০১৬ ১৫:৪২

নারী শিক্ষার হার বাড়ছে-প্রধানমন্ত্রী

বিডিটাইমস ডেস্ক
নারী শিক্ষার হার বাড়ছে-প্রধানমন্ত্রী

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, শিক্ষা ছাড়া কোনো জাতি উন্নতি করতে পারে না। মেধা বিকাশের সুযোগ করে দিতে পারলে আমাদের ছেলে-মেয়েরা শুধু দেশেই নয়, বিদেশেও অবদান রাখতে সক্ষম হবে।

বুধবার (৬ জানুয়ারি) প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে কৃতি শিক্ষার্থীদের স্বর্ণপদক প্রদান অনুষ্ঠানে তিনি একথা বলেন। বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের উদ্যোগে এ আয়োজন করা হয়।

শিক্ষকদের উদ্দেশ্য প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘নতুন প্রজন্মকে এমনভাবে তৈরি করবেন যেন তারা দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়। জনগণের জন্য নিজেদের বিলিয়ে দেয়ার মানসিকতা যেন তারা অর্জন করতে সক্ষম হয়।’

শিক্ষাক্ষেত্রে বর্তমান সরকারের সাফল্য তুলে ধরে শেখ হাসিনা বলেন, ‘১৯৯৬ সালে সরকারে এসে প্রথম ১২টি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিবিষয়ক বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার সিদ্ধান্ত নিয়ে ছিলাম। তখন সরকারে থেকে ৬টি প্রতিষ্ঠা করতে পেরেছিলাম।’

প্রধানমন্ত্রী আরও বলেন, ২০০৯ সালে ক্ষমতায় এসে আবারো প্রক্রিয়া শুরু হয়। একে একে দেশে গড়ে উঠছে বিশেষায়িত বিশ্ববিদ্যালয়। দেশে প্রথম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়, একাধিক কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়, টেক্সটাইল বিশ্ববিদ্যালয় করার উদ্যোগ ও বাস্তবায়নের কথা জানান। শিক্ষায় আমাদের লক্ষ্য বহুমুখী।’

অনুষ্ঠানে নারী শিক্ষায় অগ্রগতির কথা তুলে ধরে প্রধানমন্ত্রী বলেন, নারী শিক্ষার হার বাড়ছে। প্রাথমিকে ঝড়ে পড়ার হার কমার পাশাপাশি শিক্ষার প্রতি আগ্রহও বেড়েছে। তা এবারের ইউজিসি স্বর্ণপদক অনুষ্ঠানেই প্রমাণ হয়। ইউজিসি ২০১১ সালে ৩৭.২১ শতাংশ নারী, ২০১২ সালে ৪০.২১ শতাংশ নারী শিক্ষার্থীকে স্বর্ণপদক দিচ্ছে। এভাবেই মেয়েরা প্রায় সমান সমান হয়ে উঠছে।

ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ে তোলার পথে সরকারের অগ্রগতির কথা জানান শেখ হাসিনা। আমাদের ঘোষণা ছিলো ডিজিটাল বাংলাদেশ, আমরা সে পথে এগিয়ে যাচ্ছি। সারাদেশে এখন ইন্টারনেট সুবিধা পৌঁছে গেছে। বইগুলো ডিজিটাইজড ও সহজলভ্য করা হচ্ছে। এতে শিক্ষার্থীরা এগিয়ে যেতে পারবে।

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

 

উপরে