আপডেট : ১৬ জুলাই, ২০১৭ ১৬:০৩

’জগ্গা জাসুস’ মুভি রিভিউ

বিনোদন ডেস্ক
’জগ্গা জাসুস’ মুভি রিভিউ

ক্যাটরিনা ও রণবীরের সম্পর্কের চড়াই-উতরাইয়ের মধ্যেই রিলিজ করেছে জগ্গা জাসুস সিনেমাটি। বরফির পর ফের দেখা যাবে অনুরাগ-রণবীরের রসায়ণ। বোঝাপড়ার রসায়ন। সেই সৌরভ শুক্লা, সেই লুকোচুরি আর সেই দুষ্টু-মিস্টি ভালোবাসা আর কৌতুক। 

মজার একটি কাহিনি। কিন্তু গল্পটা বেশ গুছিয়ে দর্শককে খাওয়ানোর চেষ্টা করেছেন। এমন গল্প মুম্বাইয়ের অনেক পরিচালকই দেখিয়েছেন বা কাজ করেছেন। স্কুলশিক্ষিকা শ্রুতি (ক্যাটরিনা কাইফ) বাচ্চাদের কমিক্স বই থেকে গল্প করে করে শোনানো থেকেই সিনেমার গল্প শুরু। জগ্গা জাসুস ইন্ড্রাস্ট্রিতে একটি পরীক্ষামূলক উদ্যোগ। কবিতার ছলে ডায়ালগ, চনমনে চরিত্র, একটি নিজের জগতে থাকা জগ্গার (রণবীর) নানা কাহিনিই এখানে রয়েছে। গোপনে রেখে দেওয়া অদ্ভূত বাদ্যযন্ত্র থেকে সুরেলা, কখনও বেসুরো আওয়াজ বের করে নিজের কায়দা দেখানো জগ্গার স্বভাব। অন্য গ্রহ থেকে আসা এক ভিন্ন চরিত্রের মানুষ! আর সেই বাদ্যযন্ত্র আর সুরের খোঁজেই এখানে আগমন জগ্গার। 

যেমন গান, তেমনি তার কোরিগ্রাফি। সিনেমার সবচেয়ে উপভোগ্য যদি কিছু থাকে তা হল, সিনেমাটোগ্রাফি। আফ্রিকা সহ নানা দেশে-বিদেশের ছবি যেন আমরা চার দেওয়ালের একটি ফ্রেমে বন্দি করে রেখেছে এই সিনেমার দৃশ্যগুলি। অমিতাভ ভট্টাচার্যের কিবতার ছলে ডায়ালগ মনে পুলক জাগায়। আর্ট ডিরেক্টর পারিজাত পোদ্দার ও ডিওপি রবি ভর্মার কারসাজিতে দর্শককে কোথায় না কোথায় পৌঁছে দেয়। কখনও সাজানো বাথটব, তো কখনও আফ্রিকার জঙ্গলে এমু পাখির পিঠে চেপে রুদ্ধশ্বাস অ্যাডভেঞ্চার। 

ইতোমধ্যে উল্লু কা পাঠ্ঠা ও গালতি সে মিসটেক এই দুচটি গান কানের ভিতর কাতুকুতু দিয়ে দিয়েছে। উল্লেখ্য, গোটা সিনেমায় মোট ২৯টি গান রয়েছে। সেই সঙ্গে রয়েছে রসবোধ। পাল্লা দিয়ে কোরিওগ্রাফির তালে নেচে দর্শককেও নাচিয়েছন রণবীর ও ক্যাটরিনা। 

সিনেমার দ্বিতীয়ভাগে, সৌরভ শুক্লার সঙ্গে জগ্গার লুকোচুরি মনে দাগ কাটবে। ঘটনাক্রমে বেআইনি আর্মস-কারবারিতে ঢুকে পড়ে জগ্গা। আর তার পর থেকেই দজ্জাল গোয়েন্দা অফিসার (সৌরভ শুক্লা)-র সঙ্গে টম অ্যান্ড জেরির খেলা শুরু। গোটাটাই স্বপ্নের মতো, ছোট্টবেলার কমিকস বইয়ের হিরোদের মতো এই সিনেমা। বাহবা দিতে হয় শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়ের অভিনয়কেও। সে বাংলাতেই বলুন আর হিন্দিতে, সর্বত্র তিনি স্বচ্ছন্দ। উল্লেখ্য, তাঁর চরিত্রের জন্য অমিতাভ বচ্চনকে প্রথমে ভাবা হয়েছিল। পরে এই শাশ্বত চট্টোপাধ্যায়কেই জগ্গার বাবা হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।

Rajeev Masand review of Jagga Jasoos

 

উপরে