আপডেট : ২২ মার্চ, ২০১৬ ১৬:২৬

‘বিকাশ’ (Bekas)

বিনোদন ডেস্ক
‘বিকাশ’ (Bekas)

কিছু কিছু সিনেমা দেখলে মনের অজান্তেই চোখে জল চলে আসে, তেমনই একটি সিনেমা হলো  ‘বিকাশ’ (Bekas) । আবেগ,ভালোবাসা ও নাটকিয়তা সবকিছুর সংমিশ্রনই পাবেন এই সিনেমায়। এটা নিশ্চিত আপনি যখন সিনেমাটি দেখতে বসবেন শেষ মিনিট পর্যন্ত টিভির পর্দা থেকে চোখ সরাতে পারবেন না।

বড় কোন ঘটনা নিয়ে নয়, দুটি এতিম বাচ্চার ছেলেমানুসি ও দুষ্টমীর সেই সাথে সুপারম্যানের সাথে দেখা করার গল্প দিয়ে সাজানো হয়েছে সিনেমাটি। ছোট ছেলেটার বয়স মাত্র ৬  আর বড় ছেলেটার বয়স ১০-১২।  তারা জুতা কালি করে জীবন চালায়, থাকার কোন জায়গা না থাকায় কারো বাসার ছাদে বা বারান্দায় রাত কাটায়।

অ্যামেরিকায় সুপারম্যানের সাথে দেখা করার জন্য পাসপোর্ট অফিসে গেলেন দুই ভাই। গিয়ে জানতে পারলেন দু’জনের ১৪ হাজার টাকার মত লাগবে অ্যামেরিকায় যেতে। তখন তারা হিসাব করেতে বসে গেলো কিভাবে যোগার করবেন এত টাকা। হিসাব করে দেখলেন ৩০-৪০  হাজার জুতা কালি করলেই পাসপোর্ট করার মত টাকা তারা যোগার করতে পারবেন।

ছোট ভাই খোদার কাছে দোয়া করতে লাগলেন যেন সবার জুতা বেশি বেশি ময়লা হয়, এটা শুনে বড় ভাই থাপ্পর দিয়ে বল্লেন ‘খোদার কাছে পাসপোর্ট চা’

থাপ্পর খেয়ে ছোট ভাই খোদাকে বলেন, ‘ খোদা তুমি কিছু মনে করো না, আজ আমার ভাইয়ের মনটা একটু খারাপ’।

যাই হোক তারা একটা ম্যাপ, একটা গাধা, আর একটা টেলিফোন ডাইরি যোগার করে অ্যামেরিকার উদ্দেশ্যে রওনা দিলেন। ছোটট ভাই আবার টেলিফোন ডাইরির পিছনে লিখে রেখেছে কার কার নামে সুপারম্যানের কাছে বিচার দিবে। এর মধ্যে আবার তার বড় ভাইয়ের নামও লিখা ছিলো।

এভাবে বিভিন্ন ঘটনা-দুর্ঘটনা, কিছুদূর গাধার পিঠে চড়ে কখনো পায়ে হেঁটে আবার কখনো তামাকের ট্রাকে করে সীমান্ত রক্ষীদের চোখ ফাকি দিয়ে হাইওয়ের রাস্তা ধরে বহুদুর পাড়ি দিয়েছেন । দুর্ভাগ্যকমে বড় ভাইটা রাস্তার পাশে পুতে রাখা একটা মাইন বোমায় পা দেয়, তারপরই মুভিটি দর্শকদের কাঁদাতে থাকে।

মাইনে পা দিয়ে বড় ভাই ছোট ভাইকে বলছে এখান থেকে দুরে চলে যেতে, ছোট ভাই নাছোড়বান্দা সে কিছুতেই বড় ভাইকে ছেড়ে যাবে না। বাধ্য হয়ে বড়  ভাই পাথার ছুড়ে মারতে থাকেন ছোট ভাইকে। ছোটভাই বলে ‘আমি আমেরিকা যেতে চাই না, সুপারম্যানকে ও চাইনা, আমি তোমাকে চাই, তুমিই আমার সুপারম্যান’

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম

উপরে