আপডেট : ১৩ ফেব্রুয়ারি, ২০১৬ ২০:২৫

“এয়ারলিফ্ট”

বিনোদন ডেস্ক
“এয়ারলিফ্ট”

আক্ষয় কুমার, অভিনিত “এয়ারলিফ্ট” মুভিটি নয় দিনের মাথায় প্রায় ৯৪.৫০ কোটি রুপি আয় করেছে এবং বক্স অফিসে ১০০ কোটি রুপির দিকে এগিয়ে যাচ্ছে। অক্ষয় কুমার অভিনিত এটি চতুর্থ মুভি যা কিনা ১০০ কোটির ক্লাবে পা দিতে যাচ্ছে, এর আগে তার অভিনিত “হাউসফুল ২” (২০১২), “রাওডি রাঠোর” (২০১২), এবং “হলিডে” (২০১৪) মুভি গুলো ১০০ কোটির মুখ দেখেছিল।

“এয়ারলিফ্ট” মুভিটি সমালোচক ও ভক্তদের দ্বারা খুব পছন্দ হয়েছে, এবং সবার মুখের প্রসংশা কুড়িয়েছে । ছবিটিতে অক্ষয় এবং নিম্রিত’র অভিনয় সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে। ছবিটি মুক্তি পাওয়া পর প্রথম দিন ১২.৩৫ কোটি তারপর দ্বিতীয় দিনে ১৪.৬০ কোটি, তৃতিয় দিন সগ্রহ করেছে ১৭.৩৫ কোটি টাকা। আন্তর্জাতিক ভাবে চলচ্চিত্রটি ইতিমধ্যে আয় করেছে ২৬.৩৫ কোটি।  একি দিনে মুক্তি পাওয়া একতা কাপুর প্রোডাকশনের প্রাপ্তবয়স্ক কমেডি মুভি “কেয়া কুল হে হাম-৩” সাথে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। এয়ারলিফ্ট মুভিটি রাজা কৃষ্ণ মেননের নির্দেশনায় মাত্র ৩০ কোটি বাজেটে বাজারে এখন দাপট করছে। চলচ্চিত্রটি ২২ জানুয়ারি ২০১৬ তে ইন্ডিয়াতে এবং ২১ জানুয়ারি আন্তর্জাতিক প্রিমিয়ারে মুক্তি পায়।  চলচ্চিত্রটি উচ্চ শ্রোতা এবং বাণিজ্যিক প্রত্যাশায় সফলতা অর্জন করতে চলেছে।

আগস্ট ১৯৯০ এর কুয়েত ভিত্তিক ভারতীয় ব্যবসায়ী রঞ্জিত কাতয়াত (অক্ষয় কুমার) হটাত করে রাতে খবর পায় যে ইরাকি সাদ্দাম বাহিনী কুয়েতে আক্রমন করেন। তার স্ত্রী অমৃতা (নিম্রাত কাউর) এবং তার কন্যার সঙ্গে সাজানো ধনী জীবনে মুহূর্তের মাঝে নেমে আছে অত্যাচার ও বিপদজনক পরিস্থিতি। তার এই বিপদজনক পরিস্থিতি থেকে মুক্তি পেতে এবং তার সাথে লাক্ষ ইন্ডিয়ানের জীবন বাচানের জন্য যেই উদ্বাসিন নেতৃস্থানীয় থেকে লড়াই করে গেছেন সাদ্দাম হোসেনের নিষ্ঠুর বাহিনীর সাথে তা সত্যিই প্রশংসানীয়। মুভিটিতে বাস্তব জীবনে সংঘাত ও রক্তপাত এর যেই জায়গায় কুয়েতের পঁচিশ বছর আগের সেই ঘটনাকে সম্পূর্ণ ভাবে তুলে ধরার চেষ্টা করা হয়েচ্ছে। হটাত করে একটি জীবিত শহরকে কিভাবে লন্ডবন্ড করে ফেলা হইয়েছিল তার পুরটাই তুলে ধরেছেন পরিচালক  রাজা কৃষ্ণ মেনন । সেই সাথে অভিনিয়ে চমৎকার কাজ করে বাস্তব রূপ দেয়ার সম্পূর্ণ চেষ্টাটাই করে গেছেন অক্ষয় কুমার । অক্ষয়ের সাথে তার স্ত্রী চরিত্র অভিনিত নিম্রাত কৌর খুব গতিশীল ভাবে অভিনয় করেছেন। তার এইটি দ্বিতীয় ছবি, এর আগে তার অভিনীত “লাঞ্চ-বক্স” অনেক প্রশংসা কুড়িয়েছিলেন। যার ধারাবাহিকতা তিনি এই মুভিতেও রক্ষা করে গেছেন।

বলিউডের বাস্তব জীবনের ঘটনা নিয়ে নির্মিত ছবিগুলাতে বেশিরভার সময়েই মাত্রারিক্ত সংলাপ ও মাসালা সঙ্গীত দিয়ে নষ্ট করে ফেললেও এই মুভিটি তার অনেকটাই ব্যাতিক্রম । শালীন সঙ্গীত, তাদের গীতনাটক এবং অতিমিষ্টিত্ব বা ন্যাকাপনা মধ্যে সক্রিয় ছিল। মুভিটি ক্রিটিক্সদের কাছ থেকে ৫ এর মাঝে ৩.৫ স্টার পেয়েছে। তাই অবশেষে বলা চলে বছরের শুরুতে ভাল একটি ব্যাবসা সফল মুভি দিয়ে যাত্রা শুরু করল বলিউড।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম

উপরে