আপডেট : ২২ জুন, ২০১৬ ১০:৫০

যেদিন ক্লাসে সব মেয়েই এল 'ব্রা' না পরে!

অনলাইন ডেস্ক
যেদিন ক্লাসে সব মেয়েই এল 'ব্রা' না পরে!

স্কুলের ইউনিফর্ম পরেছিলেন। কিন্তু অন্তর্বাস পরেননি। স্রেফ এই কারণেই এক ছাত্রীকে তীব্র অপমান করে স্কুল কর্তৃপক্ষ। প্রতিবাদে সব ছাত্রী এককাট্টা হয়ে ব্রা না পরে স্কুলে গিয়ে কর্তৃপক্ষকে নিয়ম পরিবর্তন করতে বাধ্য করলেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের মন্টানার হেলেনা হাইস্কুলের ঘটনা এটি।
বিশ্বজুড়ে যখন নারী স্বাধীনতা আন্দোলনে সামিল লক্ষ লক্ষ মহিলা অন্তর্বাস ত্যাগ করছেন, তখন তথাকথিত প্রথম বিশ্বের দেশ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের এই ঘটনা রীতিমতো আলোড়ন ফেলে দিয়েছে তামাম দুনিয়ায়। দিন কয়েক আগে হেলেনা হাইস্কুলের ছাত্রী কেইটলিন জুভিকের ঘটনাতেই প্রতিবাদের সূত্রপাত। কেইটলিন কোনও অভব্য পোশাক পরে স্কুলে যাননি। শুধু পরেননি ব্রা। বক্ষযুগলকে রেখেছিলেন খোলামেলা। পুরুষরা যখন পারে, কেন মেয়েরা পারবে না, এই প্রশ্নই নাড়া দিয়েছিল কেইটলিনের মনে।
কিন্তু স্কুল কর্তৃপক্ষ কেইটলিনকে জানিয়ে দেয়, অন্তর্বাস না পরে স্কুলে আসা স্কুলের নীতি ও নিয়মের বিরুদ্ধে। প্রত্যেক ছাত্রীকে অন্তর্বাস পরে আসতেই হবে। স্কুলের প্রিন্সিপালও কেইটলিনকে সতর্ক করে দেন। তাতেই প্রতিবাদে গর্জে ওঠে স্কুলের বাকি ছাত্রীরা। কোনও রকম হিংসার আশ্রয় তাঁরা নেননি। প্রতিটি ছাত্রী ব্রা না পরে স্কুল যাওয়াকেই বেছে নিয়েছেন প্রতিবাদের হাতিয়ার হিসেবে। জুভিক ফেসবুকে একটি কমিউনিটিও তৈরি করে ফেলেছেন।
জুভিকের প্রতিবাদের নিন্দা শুরু করেন অভিভাবকরাও। স্কুল জানায়, ছাত্রদের এই ঘটনায় অসুবিধে হচ্ছে। কিন্তু পুরুষতান্ত্রিক এই সমাজকে ছবক শেখাতে প্রতিবাদ ছাড়েননি জুভিক ও তাঁর সহপাঠিরা। জুভিকের কথায়, 'এটা আমার শরীর। তা আমি ইচ্ছেমতো ঢাকব। কারও অসুবিধা কেন দেখব?' জুভিকের প্রতিবাদে শেষ পর্যন্ত পিছু হঠতে বাধ্য হয়েছে স্কুল কর্তৃপক্ষ।

সূত্র: এইসময়

উপরে