আপডেট : ২৯ মার্চ, ২০১৬ ১২:১৬

যে ৫টি সময়ে হস্তমৈথুন হতে পারে বহু সমস্যার সমাধান

অনলাইন ডেস্ক
যে ৫টি সময়ে হস্তমৈথুন হতে পারে বহু সমস্যার সমাধান

সাম্প্রতিক বহু গবেষণা বলছে, প্রস্টেট ক্যানসারের সম্ভাবনা কমাতে ছেলেদের প্রতিদিনই একটি নির্দিষ্ট মাত্রায় হস্তমৈথুন করা ভাল । দিনে অতিরিক্ত হস্তমৈথুন করলে তা থেকে অবশ্য তলপেটে যন্ত্রণা, পুরুষাঙ্গে যন্ত্রণা ও অন্যান্য স্বাস্থ্য-সংক্রান্ত সমস্যা হতে পারে। সেটা যে কোনও পুরুষমাত্রেই জানেন। মেয়েদের ক্ষেত্রেও একই কথা খাটে। মেয়েদের অর্গাজম তাদের স্বাস্থ্যের জন্য ততটাই গুরুত্বপূর্ণ, যতটা ছেলেদের।

জীবনে এমন ৫টি সমস্যা রয়েছে যার সমাধান হতে পারে হস্তমৈথুনে—

১) ধরুন খুব খারাপ একটা দিন কেটেছে। সেটা হতে পারে পেশাগত কারণে বা আর্থিক কারণে। হয়তো কারও সঙ্গে তুমুল অশান্তি হয়েছে অথবা ক্লায়েন্টের সঙ্গে মিটিং ঠিকঠাক হয়নি, বসের ধমক খেয়েছেন বা প্রেমিক/প্রেমিকা দেখা করবে বলেও করেনি। সব মিলিয়ে মেজাজ খিঁচড়ে রয়েছে। এরকম ক্ষেত্রে বাড়ি ফিরে হস্তমৈথুন করলে নার্ভ রিল্যাক্সড হয়। মেজাজও ফিরে পাওয়া যায়।

২) সকালবেলা ঘুম ভেঙেই যখন মনে পড়ে যে উঠে রেডি হতে হবে, অফিস যেতে হবে এবং আবার একটা দীর্ঘ, ক্লান্ত দিন যা কাটতে চাইবে না, তখন হস্তমৈথুন করলে শরীর-মন দুই চাঙ্গা হয়। এমনটাই বক্তব্য ক্লিনিকাল সেক্সোলজিস্ট আরলিন ক্রিগার।

৩) আপনার সেক্স ড্রাইভ আপনার পার্টনারের সঙ্গে না মিলতেও পারে। যৌনতার ইচ্ছাও এমন সময়ে হতে পারে যখন পার্টনার কাছে নেই বা গভীর নিদ্রামগ্ন। সেই সময়ে তীব্র যৌন ইচ্ছা দমন করলে মনের উপরে চাপ তো পড়েই, শরীরেও তার প্রভাব পড়ে। ঠিকঠাক ঘুমও না হতে পারে। এমন একটা সময়ে হস্তমৈথুন করলে শরীর-মন দুই শান্ত হবে।

৪) বেশিরভাগ পুরুষেরই ইজাকুলেশন আগে হয় অথচ তখনও মেয়েদের অর্গাজম সম্পূর্ণ হয় না। এমনটা দিনের পর দিন হতে থাকলে মেয়েদের মধ্যে এক ধরনের ডিপ্রেশন দেখা দেয়। তাদের মনে হয় যে তারা বঞ্চিত হচ্ছে সম্পূর্ণ যৌনসুখ থেকে। তাই এই সব ক্ষেত্রে মেয়েদের উচিত হস্তমৈথুনের সাহায্য নেওয়া।

৫) ব্রেক-আপের পরে একটি বিশাল শূন্যতা ভর করে। এই সময়ে অনেকের সেক্স ড্রাইভ একেবারেই চলে যায় কিছুদিনের জন্য আবার অনেকের এই পর্যায়ে যৌন চাহিদা অস্বাভাবিক বেড়ে যায়। দু’টি অবস্থার কোনওটাই ভাল না। তাই এই সময়ে জীবনের স্বাভাবিক ছন্দে নিজেকে ফেরাতে হস্তমৈথুন অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ।

উপরে