আপডেট : ২৭ মার্চ, ২০১৬ ১৭:৫০

স্কুল ক্যাবিনেট নির্বাচন নিয়ে এ কি কাণ্ড!

বিডিটাইমস ডেস্ক
স্কুল ক্যাবিনেট নির্বাচন নিয়ে এ কি কাণ্ড!

উপরের ছবিটি সত্যিকারেরই একটি নির্বাচনী সমাবেশ। দেশে ২০১০সালে স্কুল পর্যায়ে এটির প্রচলন করা হয়। তবে এ বছর এই নির্বাচনকে নিয়ে শুরু হয়েছে হুলস্থুল। হয়ে গেছে রক্তারক্তির ঘটনাও।

সামাজিক দায়িত্ববোধ, নেতৃত্বসুলভ গুণাবলির বিকাশ, পরমতসহিষ্ণুতা, গণতন্ত্র চর্চার অভ্যাস ও শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের উন্নয়নের লক্ষ্যে বিদ্যালয়ের শিশু শিক্ষার্থীদের মধ্যে স্কুল ক্যাবিনেট নির্বাচনের প্রচলন করেছে সরকার। ২০১০ সালে ১০০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এটি অনুষ্ঠিত হয়, আর পরের বছর হয় প্রায় ৬০০ বিদ্যালয়ে।

এবছরের নির্বাচনে ঘটে যাচ্ছে চমকপ্রদ কিছু ঘটনা। সংবাদের ছবিটি তার প্রমাণ।

এছাড়াও কুষ্টিয়ার ভেড়ামারায় এই নির্বাচনকে কেন্দ্র করে এক ছাত্রের ছুরিকাঘাতে অপর এক ছাত্র গুরুতর আহত হয়। সোমবার দুপুর ভেড়ামারা মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় এ ঘটনা ঘটে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, ভেড়ামারা মডেল পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের স্কুল কেবিনেট নির্বাচনকে কেন্দ্র করে কিছুদিন ধরে ওই দুই ছাত্রের মধ্যে বাক-বিতণ্ডা চলে আসছিল। আজ কেবিনেট নির্বাচনে ৮জন প্রতিনিধি নির্বাচিত হয়। এর মধ্যে ৯ম শ্রেণির ছাত্র শান্তও নির্বাচিত হয়। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ১০ম শ্রেণির ছাত্র রাকীন দুপুর একটার দিকে টিফিন বিরতির সময় স্কুল চত্বরেই শান্তকে হুমকি দেয়।

এতে দুজনের মধ্যে তর্ক বেধে যায়। এক পর্যায়ে রাকীন পকেট থেকে ধারালো চাকু বের করে শান্তর পেটে আঘাত করে। এতে শান্ত গুরুতর আহত হয়। পরে স্কুলের শিক্ষকরা তাকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে যায়।

এমন সব কাণ্ডকে ঘিরে অনেকেই সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তাদের হতাশার কথা ব্যাক্ত করছেন। অনেকে মনে করছেন, পড়া-লেখার বাইরে বাচ্চাদের মধ্যে এমন প্রতিযোগীতা ভবিষ্যতের জন্য অনেক খারাপ ফল বয়ে আনতে পারে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/মাঝি

উপরে