আপডেট : ২৬ মার্চ, ২০১৬ ১৪:২৭

ভালোবাসা প্রকাশের কয়েকটি ভিন্ন রূপ

অনলাইন ডেস্ক
ভালোবাসা প্রকাশের কয়েকটি ভিন্ন রূপ
ভালোবাসি— শুধু বলার কথা নয়, অন্যসব কাজে এবং কথাতেও ভালোবাসা জানাতে হবে। তবেই না বন্ধন দৃঢ় হবে।ভালোবাসি তোমাকে’ এ কথা বলতে কোনো সমস্যা নেই। তবে রোজ রোজ শুধু বলার জন্যই বলা হলে সুন্দরতম এই শব্দ তার উপযোগিতা হারিয়ে ফেলে। এমনটাই মনে করেন যুক্তরাষ্ট্রের বৈবাহিক সম্পর্কের প্রশিক্ষক এবং ‘ব্লু প্রিন্ট ফর আ লাস্টিং ম্যারেজ’ বইয়ের লেখক লেসলি ডরিস।তার মতে ভালোবাসি কথার অর্থ সবসময় দুজনের মধ্যে একই হবে এমন নয়। সঙ্গীর কানে মিষ্টি কিছু শব্দ ফিসফিসিয়ে বলা অথবা শুধুমাত্র সঙ্গীকে মনোযোগ দিয়ে দেখার মাধ্যমেও ভালোবাসা প্রকাশ করা যায় আরও সুন্দরভাবে। ভালোবাসি শব্দটা কীভাবে আরও সুন্দর করে কাজ এবং কথার মাধ্যমে অনুধাবন করানো যায়—

১।ধন্যবাদ: সাইকোথেরাপিস্ট এবং সম্পর্ক বিষয়ক পরামর্শদাতারা বলে থাকেন- সম্পর্কে একজন আরেকজনের কাছে কৃতজ্ঞতাবোধ খোঁজে। দুজনের সম্পর্ক এবং সংসারটা ভালো রাখার জন্য যে শ্রমটা দেন সেটা স্বীকার করা এবং সেটার জন্য কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করা যায় ধন্যবাদ বলার মাধ্যমে। এতে সঙ্গীর নিজের এবং শ্রমের প্রতি একটা ইতিবাচক মনোভাব গড়ে ওঠে। তিনি খুশি মনে তাঁর শ্রমটা দিয়ে যেতে আগ্রহী হন। কারণ যাদের জন্য তিনি এই কষ্টটা করছেন তারা তার কাছে কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছে।

২।প্রশংসা: সঙ্গীর কাজের প্রশংসা করা ধন্যবাদ জানানোর মতোই জরুরি বিষয়। এটাও সঙ্গীকে তাঁর কাজের জন্য সম্মান জানানোর একটা উপায়। বিশেষজ্ঞরা বলেন সুখী দাম্পত্য চালানোর একটি জ্বালানী শক্তি হচ্ছে এই সুন্দর প্রশংসাসূচক বাক্যগুলো। কঠিন সময়ে এই শব্দগুলোই অনেক শক্তি দেয়, সাহস দেয়। পাশাপাশি দুইজনের মধ্যে আন্তরিকতাও বাড়িয়ে দেয়।

৩।আশ্বাস: প্রতিটা সম্পর্কেই এমন একটা সময় আসে যখন পুরানো সব আশ্বাস আরেকবার ঝালাই করে নেওয়ার দরকার হয়। যখন সঙ্গী খারাপ সময় পার করে, কাজ নিয়ে খুব ঝামেলায় থাকে, জীবন নিয়ে বিষণ্ণ থাকে তখন তাকে শুধু হাতটা ধরে যদি বলা যায় পাশে আছি এতেই সে অনেক সাহস পায়।

৪।একই রকম রাখা: বিয়ে করার সময় পছন্দ করে দেখে বেছে এমন একজনকেই সবাই বিয়ে করে যার সব কিছু একদম ঠিকঠাক। তারপরেও বিয়ের পরে সেটায় বদল আনার চেষ্টাটা খুব হাস্যকর। ভালোবাসা কোনো শর্ত মেনে হয় না। এভাবে বদলে ফেলার চেষ্টা, শর্তে আনার চেষ্টা এবং অন্য কারও মধ্যে নিজের অপ্রাপ্তিকে খুঁজে বেড়ানো সম্পর্কটা একদম শেষ করে ফেলতে পারে।

৫।মূল্যায়ন: সঙ্গীর প্রতিটি মতামত মন দিয়ে শোনা উচিত। দুজনে ঐক্যমত্যে পৌঁছানো অন্য বিষয়। তবে দুজনের মতামতই শুনতে তো কোনো বাধা থাকতে পারে না। দুজনের মতামত বিবেচনা করে একটা সাম্যবস্থায় আসার শিক্ষাও সম্পর্ক থেকেই আসে। এভাবেই একজন আরেকজনের মতামতকে মূল্য দিয়ে ভালোবাসায় গভীরতাও বাড়িয়ে নেওয়া যায়।

উপরে