আপডেট : ২৬ মার্চ, ২০১৬ ১৩:০৯

দুধের খোকাদের অশ্লীল এসএমএস, চিন্তায় শিক্ষকরা

অনলাইন ডেস্ক
 দুধের খোকাদের অশ্লীল এসএমএস, চিন্তায় শিক্ষকরা

প্রযুক্তি-কল্যাণে মুক্ত হচ্ছে বিশ্ব। এক দেশের সঙ্গে আর এক দেশের মানুষের চেনাজানাটা এখন একদম সহজ ব্যাপার। এর মূলে রয়েছে সোশ্যাল মিডিয়া। কিন্তু, এই সোশ্যাল মিডিয়াই এখন একদল ছেলে-মেয়ের অশ্লীল কার্যকলাপে কাঠগড়ায়।

কারোর বয়স মাত্র ৭ বছর। কারোর বয়স আবার ১০ পেরিয়েছে। আরও একদল আছে, যারা ঘোরাফেরা করছে ১১ থেকে ১৩-র মধ্যে। আর এদের সকলের দুষ্টুমিতে চুল খাড়া হয়ে গিয়েছে শিক্ষকদের। 

শিক্ষকদের দাবি, সোশ্যাল মিডিয়ার সাহায্যে এই খোকা-খুকিদের দল একে অপরকে অশ্লীল সব মেসেজ পাঠাচ্ছে। এমনকী, সেই মেসেজ মাঝে-মধ্যেই পৌঁছে যাচ্ছে আবার শিক্ষক-শিক্ষিকাদের অ্যাকাউন্টেও। চাঞ্চল্যকর এই তথ্য প্রকাশ পেয়েছে ব্রিটেনে। শিক্ষিকাদের ফোরাম ন্যাশনাল অ্যাসোসিয়েশন অফ 
স্কুলমাস্টার ইউনিয়ন অফ উইমেন টিচার্স একটি সমীক্ষা চালায় সাত থেকে ১৩ বছরের মধ্যে থাকা ছাত্র-ছাত্রীদের ওপর। তাতেই এই তথ্য সামনে এসেছে। এই সমীক্ষায় সবচেয়ে কমবয়সি শিক্ষার্থীর বয়স ৭ বছর। আর সবথেকে বড় বয়সের শিক্ষার্থীটি হল ১৩ বছরের। অন্তত ১৩০০ ছাত্র-ছাত্রীর উপরে এই পরীক্ষা চলেছে। ছাত্র-ছাত্রীদের মধ্যে অশ্লীলতার প্রবণতা লক্ষ করে এই সমীক্ষা চালানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছিল ব্রিটেনের শিক্ষিকাদের এই ফোরাম। 

উপরে