আপডেট : ২৫ মার্চ, ২০১৬ ১২:৪১

রিল্যাক্সিং বাথ

অনলাইন ডেস্ক
রিল্যাক্সিং বাথ

সারা দিনের ছুটোছুটি, অফিস-বাসার কাজের ব্যস্ততা সবকিছু সামলে আমরা প্রায়ই হাঁপিয়ে উঠি। এমন সময়ে চাই নিজের দিকে একটু দৃষ্টি আর সামান্য বাড়তি যত্ন। তাহলেই আপনি আবার হয়ে যাবেন ফ্রেশ, রিল্যাক্স-প্রাণবন্ত। সতেজ থাকার মূলমন্ত্র হলো নিজেকে সবসময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখা। পরিচ্ছন্নতা আপনাকে ফুরফুরে করে রাখবে। আর এর জন্য গোসলের  কোনো বিকল্প নেই। গোসল শরীর-মনকে করে তোলে সজীব ও প্রাণবন্ত।

প্রতিদিনের সতেজতার জন্য চাই ফ্রেশ শাওয়ার। গরমে দিনে অন্তত দু বার গোসল করা জরুরি। সফট মিউজিক শুনতে শুনতে যদি পছন্দের সুগন্ধি সাবান দিয়ে গোসল করা যায়, তাহলে শরীর-মনে আসে সঞ্জীবনী আবহ। মনের মতো গোসল আপনাকে স্নিগ্ধ ও সতেজ করে বাড়িয়ে দেবে কাজ করার স্পৃহা।

সুস্থ ও সতেজ থাকতে হলে হারবাল বাথ খুব উপকারি। জানা যায়, প্রাচীন রোমান সম্প্রদায় প্রথম হারবাল বাথের প্রচলন করে। এরপর সারা পৃথিবীতে ছড়িয়ে পড়ে এর জনপ্রিয়তা। দেহ-মনকে সুস্থ রাখার জন্য আজকাল পৃথিবীজুড়ে হারবাল বাথ খুবই জনপ্রিয়। দেশ-কাল পেরিয়ে আমাদের দেশেও হারবাল বাথের ছোঁয়া লেগেছে।

জেনে নিন ঘরেই কীভাবে হারবাল বাথ করবেন:

•    গোসলের আগে শরীরে বেবি অয়েল কিংবা অলিভ অয়েল মেখে নিন

•    গোসলের জন্য গরম পানিতে কয়েক টুকরা আদা ফুটিয়ে ঠাণ্ডা করে নিন

•    আপনার পছন্দের সাবান ব্যবহার করুন

•    সাবান ব্যবহারের পর আদা পানি গায়ে ঢালুন

•    গোসলের সময় পাতলা কাপড় কিংবা স্পঞ্জের গায়ে সাবান লাগিয়ে শরীর ভালোভাবে মাজুন

•    পানিতে নিমপাতা দিয়ে ফোটান। এরপর পানি ঠাণ্ডা হলে ছেঁকে গোসল করুন

•    গোসলের পানিতে ফুলের পাপড়ি, লেবুর টুকরা একসাথে ফুটিয়ে রাখুন। ঠাণ্ডা হলে মুখে পানির ঝাপটা দিন

•    পানিতে কয়েক ফোটা ভিনেগার দিন

•    গোসলের যাবার আগে চন্দনের পেস্ট, গোলাপজল মিশিয়ে সাবানের মতো সারা গায়ে মেখে নিন। শুকিয়ে এলে ভেজা রুমাল দিয়ে মুছে নিন এবং প্রচুর পানি দিয়ে গোসল করুন

•    অলিভ অয়েলের সাথে চিনি মিশিয়ে তা হাতে এবং পায়ে ভালোভাবে ম্যাসাজ ত্বকের মরা কোষ দূর করে

•    গোসলের সময় প্রয়োজনে এন্টিসেপটিক সাবান ব্যবহার করুন, যা সারাদিন আপনাকে জীবাণুর হাত থেকে নিরাপদ রাখবে।

দু চামচ শ্যাম্পু, অলিভ অয়েল এবং কয়েক ফোঁটা পারফিউম একসাথে মিশিয়ে সারা গায়ে ম্যাসাজ করুন, গোসলের পর  আপনার শরীরে একটা সুন্দর গন্ধ থাকবে সারাদিন।

উপরে