আপডেট : ৪ মার্চ, ২০১৬ ১৬:৪১

‘যদি যৌনতা না থাকে জীবনে !’ তবে...

অনলাইন ডেস্ক
 ‘যদি যৌনতা না থাকে জীবনে !’ তবে...

মানুষের আদিমতম প্রবৃত্তি। প্রাকৃতিক নিয়মে এবং নিত্যদিনকার কাজের মতোই সেক্স খুবই সাধারণ ব্যাপার। বিপরীত লিঙ্গের প্রতি এই আকর্ষণ যেমন স্বাভাবিক, তেমনই শরীরে বিভিন্ন রোগ যেমন স্ট্রেস, উত্‍কণ্ঠায় ভোগা, মাথা যন্ত্রণা ইত্যাদি থেকে মুক্তির পথের সন্ধান দেয় সেক্স। তবে এই স্বাভাবিক প্রবৃত্তি অনেকেই স্ব-ইচ্ছায় এড়িয়ে যান নানা কারণে। আর এগুলো যথেষ্ট যুক্তি সঙ্গত। দেখে নিন কী কী সেই কারণ।

) মূত্রনালি সংক্রমণ থেকে বাঁচা: প্রায় ৮০ শতাংশ মূত্রনালি সংক্রমণ সেক্সের পরবর্তী ২৪ ঘণ্টায় হয়ে থাকে। যাঁরা এই সংক্রমণে ভুগছেন তাঁরা অনেকেই সেক্স থেকে দূরে থাকা পছন্দ করেন।

) সৃজনশীলতা নষ্ট না করা: মানসিক আবেগ এবং শারীরিক টেনশনের মিশেল থেকে যে সেক্স হয় তা সকলের জানা। যদি দীর্ঘ দিন কেউ সেক্স না করেন, সে ক্ষেত্রে এই আবেগ এবং অবদমিত যৌনেচ্ছা আপনাকে সৃজনশীল করে তোলে। তাই অনেকে এ কারণেও সেক্স থেকে বিরত থাকেন।

) টেনশন থেকে মুক্তি: এক দিকে যেমন স্ট্রেস থেকে মুক্তি দেয় অন্য দিকে বড় ধরনের টেশন দিতেও সেক্সের জুড়ি নেই। প্রথমত যৌন রোগ, এইডস এবং অনিচ্ছাকৃত গর্ভধারণ থেকে বাঁচতে আপনাকে যথাযথ ব্যবস্থা নিতে হবে। না হলে সব সময় একটা চাপা টেশনে ভুগবেন। দ্বিতীয়ত, যদি আপনি গর্ভনিরোধক ব্যবহার করেন, সে ক্ষেত্রে আপনাকে শারীরিকভাবে পুরোপুরি সুস্থ হতে হবে। না হলে তা ব্যবহার করা নিরাপদ নয়। তাই এ সব হাঙ্গামা থেকে বাঁচতে অনেকে সেক্সের ব্যাপারে উত্‍সাহী হন না।

) জটিল সম্পর্ক থেকে দূরত্ব রাখা: খুব ক্যাজুয়াল সম্পর্ক হোক বা লিভ-ইন — সেক্স খুব গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে। সাধারণভাবে বলা হয়, সেক্সের মাধ্যমে সম্পর্কে গভীরতা আসে। এটা যেমন ঠিক, তেমন এটাও মানতে হবে ক্যাজুয়াল সেক্স থেকেও অনেক সাধারণ সম্পর্ক খুব জটিল হয়ে ওঠে। তাই এ সব জটিলতা এড়াতে বা সম্পর্কের টানাপোড়েন থেকে বাঁচতে সেক্সকে না বলেন অনেকে।
 

উপরে