আপডেট : ২০ নভেম্বর, ২০১৮ ০৮:৫১

ঠাণ্ডা-সর্দি-কাশি দূর করার ঘরোয়া উপায়

অনলাইন ডেস্ক
ঠাণ্ডা-সর্দি-কাশি দূর করার ঘরোয়া উপায়

গরম শেষ হতে না হতেই শীত বেশ আয়োজন করেই চলে এসেছে প্রকৃতিতে। সঙ্গে করে নিয়ে এসেছে শীতের বিভিন্ন রোগবালাই। শীত এসেছে হিসেবে ঠান্ডা নিয়ে। আর ঠাণ্ডার সাধারণ কিছু সমস্যা, কাশি, জ্বর, গলাব্যথা, সর্দি এসময়ে অনেককেই আক্রমণ করছে। সাধারণ হলেও এর ভোগান্তি একেবারেই সাধারণ নয়। তাই ভোগান্তি কমাতে ঘরে বসেই ঠাণ্ডার রোগগুলোকে মোকাবেলা করুন।

মধু হতে পারে দারুণ পথ্য
মধু যে শুধু ত্বকের জন্য উপকারী, তা নয়। এটি গলার খুসখুসে ভাব কমিয়ে দ্রুত আরাম দেয়। মধু গরম বলেই ঠাণ্ডা প্রতিরোধ করতে পারে। হালকা গরম পানির সঙ্গে মধু মিশিয়ে খেতে পারেন। এছাড়া আঙ্গুরের রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে। আবার চায়ে চিনির পরিবর্তে মধু দিয়ে খেতে পারেন। বয়স্ক মধুর সঙ্গে এক চামচ দারুচিনি গুঁড়া মিশিয়ে খেলেও বেশ উপকার পাবেন।

আদা খান রস করে

প্রাচীনকাল থেকেই ঠাণ্ডা, জ্বর, কাশি ও মাথাব্যথার জন্য আদার ব্যবহার হচ্ছে। আদা চা গলার কফ পরিষ্কার করে ও খুসখুসে ভাব কমায়। এছাড়াও আদার রসের সঙ্গে মধু মিশিয়ে কুসুম গরম করে দিনে তিনবার খেলে দ্রুত কাশি নিরাময় হবে।

রসুনের থেঁতো

রসুনে রয়েছে আলিসিন ও অন্যান্য অর্গানোসালফার উপাদান। এগুলো সংক্রমণকারী ভাইরাস ও ব্যাকটেরিয়ার নষ্ট করতে পারে। আপনার গলা বসে গেলে রসুন থেঁতো করে তাতে গরম পানি দিয়ে শরবত করে নিন। পাঁচ মিনিট পর মিশ্রণটি পান করলে ভালোবোধ করবেন।

লেবুর রস

ঠাণ্ডার সমস্যায় লেবুর কোনো বিকল্প নেই। লেবুতে রয়েছে সাইট্রিক এসিড যা ঠাণ্ডার বিরুদ্ধে কাজ করতে পারে। এজন্য লেবু চা খেতে পারেন। আবার অল্প গরম পানিতে মধু ও লেবুর রস মিশিয়ে খেলে আরামবোধ হয়। গলাব্যথা বা গলা বসে গেলে গরম পানিতে লেবুর রস ও সামান্য লবণ দিয়ে গড়গড়া করুন।

গোলমরিচ গুঁড়ো

গরম পানিতে এক চা চামচ গোলমরিচ গুঁড়োর সঙ্গে দুই চা চামচ মধু মিশিয়ে ১৫ মিনিট রেখে দিন। গোলমরিচের দানা নিচে জমা হলে আস্তে আস্তে পান করুন। দেখবেন ঠাণ্ডার সমস্যা কমে যাবে।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে