আপডেট : ২৩ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১৭:৩১

নারীর যৌনাকাঙ্খার রহস্য!

অনলাইন ডেস্ক
নারীর যৌনাকাঙ্খার রহস্য!

বিষয়টি যখন যৌনতা, গর্ভধারণ এবং সংশ্লিষ্ট অন্যান্য বিষয়, তখন আধুনিক নারীরা পেয়েছেন তার বিশ্বস্ত বন্ধু।

একটা স্মার্টফোন! কি অবাক হচ্ছেন?

নারীর উর্বরতা পর্যবেক্ষণ করে এমন একটি অ্যাপ ‘গ্লো’। ২০১৩ সালে তেরি অ্যাপটি ইতোমধ্যে বিশ্বব্যাপী দেড় লাখ নারীর গর্ভাধারণ সম্পর্কে অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য দিয়েছে।

বিজনেস ইনসাইডারের এক প্রতিবেদনে এ তথ্য উঠে এসেছে।

ফার্টিলিটি সাইকেল সংক্রান্ত তথ্য দিয়েছে ৪৭ মিলিয়ন। এ ছাড়া অ্যাপটি গোটা বিশ্বের নারীদের যৌনজীবন সংক্রান্ত নানা তথ্য প্রকাশ করেছে। সেইসঙ্গে তারা দেখিয়েছে, কোন দিনটিতে নারীরা সঙ্গম সবচেয়ে বেশি উপভোগ করেন।

অ্যাপটির দেওয়া তথ্য মতে:

১. সঙ্গম সবচেয়ে বেশি উপভোগ করেন কানাডিয়ানরা। গ্লো ব্যবহারকারীদের গড়ে তারা ৪৫ শতাংশ বেশি সঙ্গমে লিপ্ত হয়।

২. কানাডা কিন্তু গর্ভধারণের সবচেয়ে উর্বর দেশ। গ্লো ব্যবহারকারী কানাডার নারীরা ২১ শতাংশ বেশি গর্ভধারণ করেন।

৩. অস্ট্রেলিয়ানরাও যৌনতায় এগিয়ে। ৩৭ শতাংশ বেশি সঙ্গম করেন অস্ট্রেলিয়ার নারীরা।

৪. অস্ট্রেলিয়ান নারীরা ১৪ শতাংশ বেশি গর্ভধারণ করেন।

৫. যৌনতার জন্যে আমেরিকাও আকর্ষণীয় দেশ। গড় অপেক্ষা ১৫ শতাংশ বেশি সেক্স করেন আমেরিকানরা।

৬. যৌনজীবনটা একেবারেই উপভোগ্য নয় ল্যাটিন আমেরিকা। এদের যৌনতা গড়ের চেয়ে ৪ শতাংশ কম।

৭. পিরিয়ডের ওপর ভিত্তি করে নারীর যৌন তৃপ্তি। মাসের প্রথম পিরিয়ডের প্রথম দিন থেকে তার মাসিক চক্র শুরু হয়। সাধারণত ৫ দিন পিরিয়ড থাকে। এই ৫ দিনে নারীরা সঙ্গমের প্রতি উদাসীন থাকেন।

৮. পিরিয়ডের সময় নারীর যৌন আকাঙ্ক্ষা এবং প্রাণশক্তি কম থাকে। প্রথম পিরিয়ড শেষ হওয়ার পরের সপ্তাহ থেকেই তাদের আকাঙ্ক্ষা চূড়ান্তে পৌঁছে।

৯. পিরিয়ড শুরুর পর ১২তম দিনে নারীরা আবারো সঙ্গমে আগ্রহী হয়ে উঠেন।

১০. ১২তম থেকে ১৪তম দিন পর্যন্ত নারীরা প্রতিদিনই সঙ্গমে আগ্রহী থাকেন। গ্লো-এর মতে, এই সময়টাই নারীদের যৌন আকাঙ্ক্ষার চূড়ান্ত সময়।

১১. বিশেষ করে ১৩তম বা ১৪তম দিনে তাদের আকাঙ্ক্ষা চূড়ায় থাকে। লক্ষণীয় বিষয় হলো, এ সময় তাদের যে সেরা মানের সঙ্গম প্রয়োজন তা নয়। মূলত সঙ্গমেই তারা এ সময় চরম তৃপ্তি লাভ করেন।

১২. এক মাসের শেষ পিরিয়ডের শেষ দিনটিতে আবারো তীব্র আকাঙ্ক্ষ অনুভ করেন নারীরা। গ্লো একে অর্গাজমের চূড়ান্ত সময় বলে তুলে ধরেছে।

১৩. প্রথম পিরিয়ডের পর ১৫তম এবং ১৬তম দিনে তারা অহরহ সঙ্গমে করতে প্রস্তুত থাকেন।

১৪. সঙ্গমে করতে গিয়ে মন-মানসিকতা বিগড়ে গেছে এমন রিপোর্ট গ্লোতে ৭০ লাখ ৬০ হাজারটি জমা পড়েছে।

১৫. স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি যৌনতা উপভোগ করেন খুব কম সংখ্যক নারী।

১৬. গ্লো যারা ব্যবহার করেন তারা মোট ২০ লাখ বার প্রেমে পড়েছেন বলে রিপোর্ট করেছেন।

১৭. যে নারীরা সঙ্গম করছেন, তারা সবাই তৃপ্ত নন। এদের এক-তৃতীয়াংশ সঙ্গমে পুরো আগ্রহ হারিয়েছেন। এর চেয়ে স্মার্টফোন তাদের কাছে বেশি উপভোগ্য।

১৮. তবে দুই-তৃতীয়াংশের কাছে যৌনতাই জয়ী।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে