আপডেট : ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ ১০:২৯

ঠিকমতো দাঁত ব্রাশ করছেন কি?

অনলাইন ডেস্ক
ঠিকমতো দাঁত ব্রাশ করছেন কি?

আমাদের দাঁতের সুরক্ষা নিয়ে তো আমাদের অনেক চিন্তা। দাঁত ভালো রাখতে আপনি হয়তো সাবধানে খাওয়াদাওয়া করেন, দিনে দুবার ঠিকই ব্রাশ করেন। কিন্তু সেই ব্রাশটাও আপনি হয়তো ঠিকমতো করেন না। ফলে দাঁতের ক্ষতি করেন নিজে অজান্তেই। তাই দাঁত মাজার আগে এই সাধারণ সাবধানতাগুলো একবার জেনে নিন-

শক্ত ব্রেসুলের ব্রাশ

অনেকেই কমদামি ব্রাশ ব্যবহার করেন টাকা বাঁচানোর জন্য। সাধারণত এই ব্রাশগুলোর ব্রেসুল অনেক শক্ত হয় এবঙ অল্পদিনেই সেগুলো এলোমেলো হয়ে যায়। এই শক্ত ব্রেসুল দাঁতের উপরের এনামেলের চরম ক্ষতি করে। আর এলোমেলো ব্রেসুল হলে সেটা দিযে দাঁত মাজলে দাঁত দিয়ে রক্তও পড়ে। তাই একটু দাম দিয়ে ভালো নরম ব্রেসুলের ব্রাশ ব্যবহার করুন।

জোরে দাঁত মাজা

আমরা ভাবি যে জোরে জোরে চাপ দিয়ে মাজলে হয়তো দাঁতের ময়লা ভালো করে পরিষ্কার হবে এবং দ্রুত পরিষ্কার হবে। আর এতেই বেশি ক্ষতি হয়ে যায়। খুব বেশি জোরে চাপ দিয়ে ব্রাশ করতে গেলে দাঁতের এনামেল নষ্ট হয়ে যাওয়ার ঝুঁকি থাকে, দাঁত নড়বড়েও হয়ে যেতে পারে।

বেশি সময় নিয়ে ব্রাশ করা

আমাদের অনেকেরই বেশি সময় নিয়ে ধীরে সুস্থে দাঁত মাজার অভ্যাস আছে। আমরা ভাবি এতে বোধহয় দাঁত বেশি পরিস্কার হবে। কিন্তু এটি সম্পূর্ণ ভুল ধারণা। প্রতিটা জিনিসেরই একটি নির্দিষ্ট সময় রয়েছে। সর্বোচ্চ ২ মিনিটের বেশি দাঁত মাজলে অবশ্যই সেটা ক্ষতিকর।

খাওয়ার পরপরই দাঁত মাজা

অতিরিক্ত দাঁত সচেতন মানুষ দাঁতের সুরক্ষায় খাওয়ার পরপরই দাঁত মাজা শুরু করেন। এটা উল্টো দাঁতের ক্ষতি করে। খাওয়ার পরপরই বিশেষত অ্যাসিডিক খাবার ও ফলমূল খাওয়ার পর ব্রাশ করলে দাঁত ক্ষয় হওয়ার আশঙ্কা অনেক বাড়ে। খাওয়ার পরপর কুলকুচি করে ফেলুন। এর অন্তত আধাঘণ্টা থেকে ১ ঘণ্টা পর দাঁত ব্রাশ করুন।

ভুল টুথপেস্ট ব্যবহার

দাঁতের ক্ষয়রোধের জন্য যেমন সঠিক ব্রাশ প্রয়োজন, ঠিক তেমনই প্রয়োজন সঠিক টুথপেস্টের। বেশিরভাগ মানুষই বিজ্ঞাপন দ্বারা প্রভাবিত হয়ে বিভিন্ন রঙের টুথপেস্ট ব্যবহার করেন। স্বাস্থ্যসম্মত উপাদানের একটু দামি টুথপেস্ট কেনার পরামর্শ দেন চিকিৎসকেরা।

উপরে