আপডেট : ১৬ জুলাই, ২০১৮ ১৮:৩০

নাক ডাকা প্রতিরোধের কিছু ঘরোয়া উপায়

অনলাইন ডেস্ক
নাক ডাকা প্রতিরোধের কিছু ঘরোয়া উপায়

নাক ডাকা শুধু অন্যদের জন্যই বিরক্তিকর নয়, স্বাস্থ্যের জন্য ও ক্ষতিকর। সম্প্রতি এক গবেষণায় দেখা গেছে, নিয়মিত নাক ডাকলে মস্তিষ্কের কর্মক্ষমতা ধীরে ধীরে কমতে শুরু করে যার প্রভাব পড়ে স্মৃতিশক্তির ওপর। শুধু তাই নয়, নাক ডাকার কারণে স্ট্রোক, হৃদরোগের সমস্যাসহ গুরুতর অসুখ শরীরে বাসা বাঁধতে পারে। আসুন তবে জেনে নেয়া যাক নাক ডাকা প্রতিরোধের কিছু উপায় সম্পর্কে:

আদা চা: নিয়মিত আদা চা পান করলে দেহের ভেতরে অ্যান্টি ব্যাকটেরিয়াল ও অ্যান্টি ইনফ্লেমেটরি উপাদানের মাত্রা বেড়ে যায়। যা নাক ডাকার পবণতা কমাতে সাহায্য করে। তাহলে আজ থেকেই শুরু করে দিন আদা চা পান।

রসুন: ঘুমানোর আগে নিয়মিত ১-২টি রসুনের কোয়া চিবিয়ে পানি দিয়ে খেয়ে নিন। এটি নাকের রেসপিরেটরি সিস্টেমের উন্নতি ঘটাতে সহায়ক ভূমিকা পালন করে। এছাড়া নিয়মিত রসুন খেলে অনেক জটিল রোগ থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

ঘি: ঘি নাক ডাকার সমস্যায় নাসাল ড্রপস এর মতো কাজ করে। ঘি এ উপস্থিত ‍উপাদানগুলো নাকের সমস্যা নিরাময়ে খুবই কার্যকরী। ঘি হালকা গরম করে সেখান থেকে কয়েক ফোটা নাকে লাগিয়ে ঘুমিয়ে পড়ুন, দেখবেন ধীরে নাক ডাকার প্রবণতা কমে আসছে।

এলাচ: এলাচের মধ্যে থাকা প্রাকৃতিক উপাদান নাকের ভেতরের বাঁধা সরিয়ে শ্বাস প্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখতে সহায়ক। তাই নাক ডাকার সমস্যা সমাধানে নিয়মিত এলাচ খান । কাঁচা না খেতে চাইলে গরম পানি বা চা এর সাথে মিশিয়ে খেতে পারেন এলাচ ।

মধু: বিভিন্ন রোগের উপশমে মধুর স্বাস্থ্য উপকারিতা সবারই জানা। নাক ডাকা প্রতিরোধে প্রতিদিন শুতে যাওয়ার আগে ১ গ্লাস গরম পানির সঙ্গে ১ চা চামচ মধু মিশিয়ে খেয়ে দেখুন। তবে এটি শুধু নাক ডাকার প্রবণতা কমাতেই না, শ্বাস-প্রশ্বাস স্বাভাবিক রাখতেও সাহায্য করে।

হলুদ: এই প্রাকৃতিক উপাদানটি গ্রহণের মাধ্যমে শরীরের ভেতরে ইনফ্লেমেশন বা প্রদাহ কমতে শুরু করে। নাক ডাকার সমস্যা সমাধানেও হলুদ কার্যকরী। গরম দুধে হলুদের গুঁড়ো মিশিয়ে ঘুমাতে যাবার আগে পান করলে ভালো ফল পাবেন।

ভিটামিন সি যুক্ত খাদ্য: নাকের ভেতরে বাঁধা সৃষ্টি করে মিউকাস নামের একটি জমে থাকা উপাদান যা নাক ডাকার অন্যতম কারণ। ভিটামিন সি জাতীয় খাদ্য বেশি খেলে নাক ডাকার প্রবণতা হ্রাস পায়। তাই নাক ডাকা প্রতিরোধে বেশি পরিমাণে ভিটামিন সি সমৃদ্ধ খাদ্য খান।

স্টিম পদ্ধতি: নাক ডাকা প্রতিরোধে একটি ঘরোয়া পদ্ধতি অনুসরণ করতে পারেন। নাক দিয়ে বায়ু চলাচল স্বাভাবিক করতে ঘুমানোর আগে নাকের ভেতর স্টিম বা ভাব নিতে পারেন। এটি সর্দি কাশি নিরাময়েও সহায়ক।

উপরে