আপডেট : ২১ মে, ২০১৮ ১৪:০৫

রোজায় মুখের দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ

অনলাইন ডেস্ক
রোজায় মুখের দুর্গন্ধ হওয়ার কারণ

দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে থাকলে মুখে গন্ধ হতে পারে। আর সেটার মাত্রা যদি ‘দুর্গন্ধ’কেও ছাড়িয়ে যায় তবে থাকতে পারে অন্য সমস্যা।

মুখে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হয় প্রধানত দাঁত ও গাল থেকে। অর্থাৎ দাঁত, মাঢ়ী অথবা গালে কোনো রকমের সমস্যা দেখা দিলে তা থেকে দুগর্ন্ধ সৃষ্টি হতে পারে।

এই বিষয়ে নারায়ণগঞ্জ চাষাড়ার ‘কনসালটেন্ট ডা. জেনিথ’স ডেন’য়ের দন্ত চিকিৎসক ফারহাদ আহম্মেদ জেনিথ বলেন, “দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে থাকলে বা রোজা রাখলে মুখে গন্ধ হয়। তবে দুর্গন্ধের কারণ বিভিন্ন হতে পারে।”

তিনি আরও বলেন, “যে কোনো খাবার আমরা চিবিয়ে পিষে ফেলি, তারপর খাই। খাবারের এই ছোট অংশ দাঁতের কোণা, মাঢ়ীর কোণা ইত্যাদি যে কোনো জায়গায় আটকে থাকতে পারে। যা ঠিক মতো পরিষ্কার করা যায় না। অনেক সময় মুখে নানা রকমের ছোট গর্ত থাকলে তাতেও খাবারের অংশ আটকে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে। এই সব খাদ্যকণা আটকে গিয়ে পঁচা শুরু করে দুর্গন্ধের সৃষ্টি করে।”

রোজায় মুখের দুর্গন্ধ হওয়ার অন্যতম প্রধান কারণ হল সেহরির পরে ব্রাশ না করা। একটা ভ্রান্ত ধারণা প্রচলিত আছে যে রোজা রেখে দাঁত ব্রাশ করা যায় না। তাই অনেকেই সেহেরির পরে ব্রাশ না করায় মুখে তীব্র দুর্গন্ধের সৃষ্টি হয়।

আর দাঁত ব্রাশ করার পরেও কারও দুর্গন্ধের সমস্যা হলে তাকে চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে বলে জানান, ডা. জেনিথ।  

মুখের দুর্গন্ধ দূর করা যায়। সেক্ষেত্রে প্রথমে ঘরোয়া পদ্ধতি অনুসরণ করতে হবে। যদি কাজে না দেয় তাহলে চিকিৎসকের পরামর্শ নেওয়া উচিত।

দূর্গন্ধ প্রতিকার করার উপায় সম্পর্কে এই চিকিৎসক পরামর্শ দেন, “দীর্ঘক্ষণ না খেয়ে থাকলে মুখে গন্ধ হওয়া অস্বাভাবিক কিছু নয়। তাই সেহরি শেষ করেই ব্রাশ করে নিতে হবে। সকালে অফিস বা ক্লাসে যাওয়ার আগে মাউথওয়াশ ব্যবহার করা যেতে পারে। এটা ভালো কাজে দেবে। মাউথওয়াশ সরাসরি অথবা সামান্য পানি মিশিয়ে ব্যবহার করা যায়। এটা মুখে বাড়তি দুর্গন্ধ সৃষ্টিতে বাধা দেয়।”

কুলকুচি করলে রোজা ভাঙেনা। তাই অস্বস্তি এড়াতে দিনের বিভিন্ন সময়ে পানি দিয়ে কুলিকুচি করে নিতে পারেন বলে জানান, তিনি।

এসব করার পরেও যদি মুখে দুর্গন্ধ হয় তাহলে ধরে নিতে হবে ঠিক মতো ব্রাশ করা হচ্ছে না অথবা ব্রাশ করার পদ্ধতিতে সমস্যা আছে।

যাদের মুখে আগে দুর্গন্ধ ছিল না তবে রোজা রাখলে দেখা দিচ্ছে, এই পদ্ধতিগুলো তাদের জন্য প্রযোজ্য। এমন অনেকেই আছেন যাদের মুখে আগে থেকেই দুর্গন্ধ ছিল, তাদের যত তাড়াতাড়ি সম্ভব চিকিৎসকের পরামর্শ নিতে হবে।

ডা. জেনিথ বলেন, “এমনও হতে পারে তাদের মুখে সূক্ষ্ম কোনো গর্ত আছে যা থেকে এই দুর্গন্ধের সৃষ্টি। চিকিৎসার মাধ্যমে এই সমস্যা দূর করা সম্ভব।”

 

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রুমা

উপরে