আপডেট : ২০ মার্চ, ২০১৬ ১৬:৪৪

যেখানে বিয়েতে মৃত্যুর হাতছানি

অনলাইন ডেস্ক
যেখানে বিয়েতে মৃত্যুর হাতছানি

বিয়ে মানে আনন্দ। তা বর বা কনে হোক আর আত্মীয় স্বজনের জন্য হোক-বিয়ে পরিবারে আনন্দ বয়ে আনে। ব্যতিক্রম যে নেই তা নয়। অপছন্দের কনে বা পাত্রীর সঙ্গে বিয়ের উৎসবটা তেমন আনন্দমুখর হয় না, বরং সেখানে থাকে বিষাদের ছায়া। তবে আজ এমন কিছু বিয়ের কথা জানাবো যা সব সময়ের জন্য অতিথি বা বর বা কনের পরিবারের জন্য ভয়ঙ্কর হয়ে দেখা দেয়। যে বিয়েতে অংশ নেওয়াটা জীবনের জন্য বিপদজনক হয়ে দেখা দিতে পারে। ভারতের উত্তরাঞ্চলের উত্তর প্রদেশের ছোট্ট একটা গ্রাম রায়পুর ভুদ তেমনই একটি গ্রাম যেখানে বিয়ের উৎসব যোগ দেওয়ার অর্থ হচ্ছে বিপদের মুখে পড়ার আশঙ্কা, পদে পদে আশঙ্কা মৃত্যুর হাতছানির।

রায়পুর ভুদ গ্রামে বিয়ে মানেই অস্ত্রের ব্যবহার। তবে মারামারির জন্য নয়, আনন্দ প্রকাশের জন্য। শূন্যে গুলি ছুঁড়েই সাধারণত আনন্দ প্রকাশ করে থাকে তারা। তবে সবসময় যে তারা তাদের লক্ষ্যে অটল থাকতে পারে তা নয়। কখনো কখনো মাটিতেও গুলি ছোঁড়ে তারা। আর তখনই দেখা দেয় বিপদ। কখন যে গুলি লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়ে কার গায়ে আঘাত করে তার ঠিক নেই। লক্ষ্যভ্রষ্ট গুলি যেমন অতিথিদের গায়ে আঘাত করতে পারে তেমনি এটি বিদ্ধ করতে পারে বর বা কনে বা তাদের আত্মীয়স্বজনদের। গত সপ্তাহের এক বিয়ের অনুষ্ঠানে হঠাৎ করে এক ব্যক্তি অস্ত্র বের করে গুলি করতে শুরু করে। একটি গুলি পিন্টু নামের এক বালকের পেটে লাগে। মারাত্মক আহত অবস্থায় হাসপাতালে ভর্তি হওয়া পিন্টু আর ফিরে আসেনি। একই ঘটনায় মিনাক্ষী নামের এক কিশোরীর গায়ে গুলি লাগে। মিনাক্ষীর অবস্থা তেমন মারাত্মক নয়। অবশ্য পিন্টু বা মিনাক্ষীকে লক্ষ্য করে তিনি যেমন গুলি ছোঁড়েননি তেমনি তাদের আঘাত করার কোনো ইচ্ছাও তার ছিল না।

আরো এক ঘটনায় বরের বাবার গুলিতে ১২ বছরের এক বালক আহত হয়। অন্য এক ঘটনায় বিয়ে দেখতে গিয়ে গুলি আহত হয় এক মহিলা। একই সময়ে দিল্লির আলিপুর এলাকায় এক বিয়ে উৎসবে হঠাৎ করে বিকাশ কুমার নামের এক লোক শটগান ও পিস্তল বের করে গুলি করতে শুরু করে। দুটো গুলি সে আকাশের দিকে ছুঁড়লেও তৃতীয়টি ছোঁড়েন মাটিতে। এতে করে পাঁচজন আহত হয়। তাদের সবাইকে হাসপাতালে ভর্তি করতে হয়।

শুধু যে রায়পুরে এমন ঘটনা ঘটে তা নয়। উত্তর প্রদেশে গত ফেব্রুয়ারিতে বিয়ে উৎসবে মারা গেছেন চারজন। এক ঘটনায় তো বর মারাত্মকভাবে আহত হয়।

এসব ঘটনা থেকে বোঝা যায় বিয়েতে অস্ত্রের ব্যবহার কতটা মারাত্মক হতে পারে। অথচ এসব অঞ্চলের বিয়েতে বন্দুক এবং পিস্তলের ব্যবহার এক ধরণের ফ্যাশন হয়ে দাঁড়িয়েছে। বেশ কিছুদিন আগে এক অতিথির গুলিতে কনের চাচা মারা যাওয়ায় দিল্লির এক আদালত গুলি বর্ষনকারীকে ২৫ মাসের জেল সাজা দিয়েছে।

বন্দুক বা পিস্তল নিয়ে বিয়ে উৎসবে আনন্দ শুধু যে ভারতের কয়েকটি অঞ্চলে হয়ে থাকে তা নয়। এমন উৎসবে মেতে ওঠে আফগানিস্তান, মধ্যপ্রাচ্যে, বলকান অঞ্চলসহ আরো কিছু এলাকার মানুষজন। আরো কিছু এলাকায় এমন ঘটনা ঘটে থাকে। এতে জীবন হানিও কম ঘটে না। তাইতো বিয়েতে আগ্নেয়াস্ত্রের ব্যবহার কমাতে মেসিডোনিয়ায় এক অভিযান শুরু হয়েছে। যার স্লোগান হচ্ছে ‘বুলেট কোনো শুভেচ্ছা কার্ড নয়, অস্ত্র ছাড়াই আনন্দ উৎসব করুন।’

 

উপরে