আপডেট : ১৬ মার্চ, ২০১৬ ১৫:৪২

পেট্রোল পাম্পে আপনাকে ঠকানো হচ্ছে কি না, বুঝবেন কি ভাবে?

অনলাইন ডেস্ক
পেট্রোল পাম্পে আপনাকে ঠকানো হচ্ছে কি না, বুঝবেন কি ভাবে?

খেয়াল রাখুন, পেট্রোল পাম্পে যিনি আপনার গাড়িতে তেল ভরছেন, তিনি খেজুরে গপ্পো জুড়েছেন কি না। এটা দেখলেই সতর্ক হয়ে যান। বুঝে নিন, এর নেপথ্যে থাকতেও পারে আপনাকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা।

খেয়াল করে দেখবেন, অনেক পেট্রোল পাম্পেই ফুয়েল অ্যাটেনড্যান্টরা নজ্‌ল-এ শক্ত করে আঙুল ঠেকিয়ে রাখেন। এটা সাধারণত তখনই করা হয়, যখন আগে থেকে নির্দিষ্ট পরিমাণ তেল ঠিক করে রাখা থাকে। নজ্‌ল-এ শক্ত করে আঙুল ঠেকিয়ে রাখলে তেলের ফ্লো বাধাপ্রাপ্ত হয়। ফলে তেল ঢোকে একাধিক কিস্তিতে। এভাবেই আপনি বঞ্চিত হন প্রাপ্য তেলের থেকে।

অনের পেট্রল পাম্পে ফুয়েল ডিসপেনসার পাইপ ব্যবহার করা হয়। যে পাইপ ব্যবহার করার কথা, এই পাইপগুলি তার থেকে লম্বা হয়। এতে কী হয়? ধরা যাক, আপনি একলিটার তেল কিনলেন। মিটারে আপনি দেখছেন, এক লিটার রি়ডিং উঠল। আপনিও সন্তুষ্ট হলেন। কিন্তু ওই একলিটারের কতটা লম্বা পাইপের ভিতর থেকে গেল, জানেন? কতটা তেল পাম্পড ব্যাক হয়ে ওই লম্বা পাইপে ফিরছে, আপনি টেরই পাবেন না।

তিন নম্বরটি অতি পুরনো চাল। আপনার সঙ্গে নানা অছিলায় কথা শুরু করবেন পাম্পের লোকেরা। ‘‘আপনার কি কার্ড আছে?’’, ‘‘ক্যাশ দিলে খুচরো দিন’’, ‘‘পাশের দোকান থেকে খুচরো করে আনুন’’-গোত্রের কথাবার্তা বলে আপনাকে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করবেন। আপনি যখন এ সব নিয়ে বিভ্রান্ত, তখনই মেশিনে কারিকুরি করে দেবেন তাঁরা।

ধরা যাক, আপনি হাজার টাকার তেল ভরবেন। পাম্পের লোক ২০০ টাকায় মিটার থামিয়ে আপনার কাছে ফের জানতে চাইতে পারেন, ‘‘কত টাকার বললেন?’’ আপনি যেই না বলবেন ১,০০০ টাকা তখনই তিনি রিসেট না-করে অটো কাট-অফ ৮০০ টাকায় সেট করবেন। অর্থাৎ? আপনার ২০০ টাকা স্রেফ উবে গেল।

তবে সব পেট্রোল পাম্পেই এই সব হয়, এমন কিন্তু মোটেই নয়। বিভিন্ন সময়ে অভিযোগ ওঠে বিভিন্ন পাম্পের বিরুদ্ধে। সেই সব অভিযোগের ভিত্তিতে কীভাবে আপনাকে ঠকানো হতে পারে, সে সম্পর্কে স্রেফ ওয়াকিবহাল করা হল। পেট্রোল পাম্পগুলির বিরুদ্ধে কোনরকম অপপ্রচার এই প্রতিবেদনের উদ্দেশ্য নয়।

উপরে